নির্বাচন সারাবিশ্বের কাছে গ্রহণযোগ্য হয়েছে : ওবায়দুল কাদের

রফিকুল ইসলাম বিপ্লব, গাজীপুর  |  ১৫:৪৭, জানুয়ারি ১১, ২০১৯

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সারাবিশ্বের কাছে গ্রহণযোগ্য হয়েছে। দুনিয়ার সব গণতান্ত্রিক দেশই বাংলাদেশের এই নির্বাচনকে স্বীকৃতি দিয়েছে, প্রসংশা করেছে। এমতাবস্থায় এ নির্বাচন নিয়ে জাতীয় সংলাপের দাবি হাস্যকর ছাড়া আর কিছুই নয়।

শুক্রবার (১১ জানুয়ারি) দুপুরে গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার চন্দ্রা এলাকায় ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে ফ্লাইওভার ও চারলেন সড়কের সার্বিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণে গিয়ে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের একথা বলেন। এসময় মন্ত্রীর সঙ্গে ঢাকা বিভাগীয় তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী সবুজ উদ্দিন খান, গাজীপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক দিদারে আলম মাকসুদ চৌধুরী, নির্বাহী প্রকৌশলী সাইফুদ্দিন, গাজীপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আমিনুল ইসলাম, স্থানীয় প্রশাসন এবং সড়ক ও জনপদের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, তারা (বিএনপি-ঐক্যফ্রন্ট) কী বললেন তাতে আমাদের কিছু আসে যায় না। বাংলাদেশের জনগণ কী বললো সেটা হলো বড় কথা। জনগণ বিপুলভাবে শেখ হাসিনার উন্নয়ন, গণতন্ত্র এবং সততার পক্ষে রায় দিয়েছে। ৭০-এর পর নৌকার পক্ষে এমন গণজোয়ার কেউ আর দেখেনি। এই নির্বাচন যদি তারা মনে করে সঠিক নয় তারা বলতেই পারে। আমরা বলবো এ দেশের জনগণ বিপুল ভোটে আওয়ামী লীগ-মহাজোটকে বিজয়ী করেছে। কাজেই এই নির্বাচন নিয়ে কোনো প্রশ্ন পৃথিবীর কোথাও নেই এবং বাংলাদেশেও নেই। জনগণের মাঝেও নেই। তাদের জনগণ ভোট না দিয়ে প্রত্যাখান করেছে। এখন তারা নানা দাবি জানিয়ে নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার চেষ্টা করছে।

মন্ত্রী আরও বলেন, তারা যে সংসদে নির্বাচিত হয়ে আসবে না এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে এটাও তো অবৈধ। এটার বৈধ্যতা আছে? জনগণের রায়কে যারা অসম্মান করেছে সেটা কি বৈধ? আমি যদি প্রশ্ন করি কি জবাব তারা দেবে। তারা আগে সংসদে আসুক। অধিবেশনে যোগ দিক। ৩০ তারিখ আমি তাদের আহ্বান করছি সংসদে যোগ দেওয়ার জন্য।

সাতদিনের মধ্যে মহাসড়ক থেকে অবৈধ স্থাপনা সরাতে হবে
আগামী সাত দিনের নোটিশ দিয়ে সড়ক ও মহাসড়ক থেকে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের নির্দেশ দিয়েছেন ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, ‘মহাসড়ক থেকে অবৈধ স্থাপনার সরানোর জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এক সপ্তাহের মধ্যে সারাদেশের সড়ক ও মহাসড়ক দখলমুক্ত করা হবে।’

সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘সরকারের অগ্রাধিকার হচ্ছে সড়কে ও পরিবহনে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনা। সেজন্য সড়ক ও জনপথ অধিদফতরকে নির্দেশ দিয়েছি, সাত দিনের নোটিশে মহাসড়কের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ ও দখলমুক্ত করতে হবে। এখনই এই কাজটি আমাদের করতে হবে। পরে নানা রাজনৈতিক চাপ আসে, চাপের মুখে কাজ করা যায় না।’