শিরোনাম

বগুড়া-৫ আসনে বিএনপি প্রার্থীর গাড়ি ভাংচুর-অগ্নিসংযোগ

বগুড়া প্রতিনিধি  |  ২০:০২, ডিসেম্বর ১১, ২০১৮

বগুড়া-৫ (শেরপুর-ধুনট) আসনে বিএনপি প্রার্থী সাবেক এমপি গোলাম মোহাম্মদ সিরাজের গাড়ি বহরে হামলা হয়েছে।

মঙ্গলবার (১১ডিসেম্বর) সকালে ধুনট বাজার এলাকায় হামলাকারীরা সিরাজের ব্যক্তিগত গাড়িসহ ৪টি গাড়ি ও অন্তত ১০টি মোটর সাইকেল ভাংচুর করেছে। হামলায় ১৬ নেতাকর্মী আহত হবার দাবি করা হয়েছে।

এ হামলার ঘটনায় সিরাজ স্থানীয় আওয়ামী লীগের এমপি হাবিবর রহমান ও তার ছেলে সনির বাহিনী ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীদের দায়ি করেছেন। ফোন না ধরায় এমপি ও তার ছেলে বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

সাবেক এমপি বিএনপি নেতা গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ জানান, সোমবার রাতে ধুনটের এলাঙ্গী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগ নেতা এমএ তারেক হেলালের নেতৃত্বে দুর্বৃত্তরা রাঙ্গামাটি গ্রামে যুবদল কর্মী মুরাদ হোসেনের বাড়ি আগুন দিয়ে ভস্মীভূত করা হয়। মুরাদের বাড়ি পরিদর্শন ও ধুনটে নির্বাচনী কর্মসভায় অংশ নিতে মঙ্গলবার সকালে নেতাকর্মীদের গাড়ি বহর নিয়ে যাচ্ছিলেন।

বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ধুনট বাজারের কলাপট্টি এলাকায় পৌঁছালে বিভিন্ন দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত ২০-২৫ জনের আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগের সন্ত্রাসীরা তার গাড়ি বহরে হামলা করে। তারা তার ব্যক্তিগত গাড়িসহ ৪টি গাড়ি ও ১০-১২টি মোটর সাইকেল ভাংচুর করে।

হামলা প্রসঙ্গে সাবেক এমপি গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ আরও জানান, নির্বাচনে প্রার্থীতা নিয়ে নিজ দলের নেতাকর্মীদের সঙ্গে তার কোন বিরোধ নেই। অতর্কিতভাবে তার গাড়ি বহরে হামলা চালানো হয়েছে। অল্পের জন্য তিনি প্রাণে বেঁচে গেছেন।

তিনি জানান, আওয়ামী লীগ নীল নকশার নির্বাচন করতে যাচ্ছে। পুলিশের সামনেই তার গাড়ি বহরে হামলা হয়েছে। তাই প্রশাসন নিরপেক্ষ না হলে সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন হবেনা। এ ব্যাপারে থানায় মামলা করবেন। থানা গ্রহণ না করলে আদালতে যাবেন।

এ প্রসঙ্গে এলাঙ্গী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও একই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এমএ তারেক হেলাল জানান, কোন ঘটনার সঙ্গে আওয়ামী লীগের কেউ জড়িত নয়। বিএনপির অভ্যন্তরীণ কোন্দলে এসব ঘটনা ঘটেছে।

ধুনট উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি শফিকুল ইসলাম জানান, হামলার ঘটনার সাথে তাদের সংগঠনের কারো সম্পৃক্ততা নেই।

ধুনট থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই শফিকুল ইসলাম জানান, ধুনট বাজার এলাকায় দুর্বৃত্তরা সাবেক এমপি গোলাম মোহাম্মদ সিরাজের গাড়ি বহরে হামলা করেছে। ৪টি গাড়ি ও কয়েকটি মোটর বাইক ভাংচুর করা হয়েছে। হামলার জন্য স্থানীয় স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের দায়ি করা হয়েছে। তিনি আরো জানান, মামলা দিলে তদন্ত সাপেক্ষে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ধুনট উপজেলা সহকারি রির্টানিং ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রাজিয়া সুলতানা জানান, সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন এবং বিএনপি প্রার্থীর সাথে কথা বলেছেন। এ বিষয়ে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা এবং ভোট যাতে সুষ্ঠু হয় সে জন্য সকল উদ্যোগ নেওয়া হবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত