আ.লীগের চূড়ান্ত মনোনয়ন পেলেন যাঁরা

নিজস্ব প্রতিবেদক  |  ১২:২৮, ডিসেম্বর ০৭, ২০১৮

আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলের চূড়ান্ত প্রার্থী নির্ধারণ করেছে আওয়ামী লীগ। শুক্রবার (০৭ডিসেম্বর) ধানমন্ডিতে দলের সভানেত্রীর কেন্দ্রীয় কার্যালয় থেকে চূড়ান্ত মনোনয়ন পাওয়া প্রার্থীদের চিঠি দেয়া শুরু হয়েছে। আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের হাত থেকে নিজ নিজ আসনের চিঠি নিচ্ছেন প্রার্থীরা।

নৌকার প্রতীকে নির্বাচনের জন্য চূড়ান্ত মনোনয়নের চিঠি যাঁরা হাতে পেয়েছেন:
সৈয়দ অাশরাফুল ইসলাম (কিশোরগঞ্জ-১), মো. মোজাফফর হোসেন (জামালপুর-৫), হাবিবুর রহমান মোল্লা (ঢাকা-৫), হাজী মো. সেলিম (ঢাকা-৭), অাকবর হোসেন পাঠান ফারুক (ঢাকা-১৭), ড. মহীউদ্দীন খান অালমগীর (চাঁদপুর-১), মা. নুরুল অামিন (চাঁদপুর-২), মুহম্মদ শফিকুর রহমান (চাঁদপুর-৪), এ কে এম শাহজাহান কামাল (লক্ষ্মীপুর-৩), নিজাম উদ্দিন জলিল (নওগাঁ-৫), মো. শহিদুল ইসলাম বকুল (নাটোর-১), বি এম কবিরুল হক (নড়াইল-১), ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভু (বরগুনা-১), অা স ম ফিরোজ (পটুয়াখালী-২), তানভীর হাসান ওরফে ছোট মনির (টাঙ্গাইল-২) ও অাবুল কালাম অাজাদ (জামালপুর-১)।

এসব আসনে প্রাথমিকভাবে দুইজন করে প্রার্থী দিয়েছিলো আওয়ামী লীগ। সংবাদ সম্মেলনে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আওয়ামী লীগের মোটামুটি ২৪০ জন প্রার্থী চূড়ান্ত। তবে দুই-একজন এদিক-ওদিক হতে পারে। জয়ী হতে পারে এমন প্রার্থী দেখেই আমরা মনোনয়ন দিয়েছি।’

আওয়ামী লীগ নিজেদের প্রার্থীদের জন্য ২৪০টি আসন রেখে জোটের অন্যান্য শরিকদের ৬০টি আসন ছেড়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ৬০টি আসনের মধ্যে এরশাদের নেতৃত্বাধীন জাতীয় পার্টি পাচ্ছে ৪০-৪২টি আসন। ওয়ার্কার্স পার্টি ৫টি, বিকল্পধারা বাংলাদেশ ৩টি, হাসানুল হক ইনুর নেতৃত্বাধীন জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ) ৩টি, জাতীয় পার্টি (মঞ্জু) ২টি, বাংলাদেশ তরিকত ফেডারেশন ২টি ও আম্বিয়ার নেতৃত্বাধীন জাসদকে একটি আসন দেওয়া হচ্ছে। শরিকদের মধ্যে এরশাদের জাতীয় পার্টি লাঙ্গল প্রতীকে ছাড়া অন্য সবাই নৌকা প্রতীকে নির্বাচন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। বিকল্পধারা বাংলাদেশের জন্য যে তিনটি আসন ছেড়ে দিয়েছে আওয়ামী লীগ তার মধ্যে মাহী বি. চৌধুরী মুন্সিগঞ্জ-১, এমএম শাহীন মৌলভীবাজার-২ ও মেজর (অব.) মান্নান লক্ষ্মীপুর-৪ আসন থেকে নৌকা প্রতীক লড়বেন।

তিনি বলেন, ‘শরিকদের যারা আছেন, তারা যদি আরও আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে চান, তবে নিজেদের প্রতীকে করতে পারবেন। আমরা শুধু নৌকা প্রতীকে কয়েকটি আসন দিলাম। সবারই বেশি পাওয়ার আকাঙ্ক্ষা রয়েছে। তবে, আমরা এর বেশি দিতে পারছি না।’

চূড়ান্ত মনোনয়ন বিষয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আমরা মনোনয়ন দেওয়া শেষ করেছি। যারা চূড়ান্ত মনোনয়ন পেয়েছেন, তাদের চিঠি দেওয়া হয়েছে। ১৭টি আসনে একাধিক প্রার্থী ছিল, আমরা তা সিঙ্গেল করে নিয়ে এসেছি। বেশিরভাগ চূড়ান্ত প্রার্থীকে চিঠি দিয়ে দেওয়া হয়েছে। যারা বাকি আছেন, তারা জাহাঙ্গীর কবির নানকের সঙ্গে দেখা করে চিঠি সংগ্রহ করবেন।’

চূড়ান্তভাবে মহাজোটের প্রার্থী তালিকা জানতে চাইলে তিনি বলেন, আগামীকাল (শনিবার) নির্বাচন কমিশনে চূড়ান্ত তালিকা পাঠিয়ে দেওয়া হবে। সেখান থেকে জেনে নিতে পারবেন।

এদিকে জোটের শরিকদলগুলোর প্রার্থীদের মধ্যে যারা নৌকা প্রর্তীকে নির্বাচন করবেন তাদের হাতেও চিঠি দেওয়া হয়েছে। তারা হলেন- জাসদের (আম্বিয়া) মঈনউদ্দিন খান বাদল (চট্টগ্রাম-৮), জাতীয় পার্টি (জেপি) রুহুল অামিন (কুড়িগ্রাম-৪), অানোয়ার হোসেন মঞ্জু (পিরোজপুর-২), সৈয়দ নজিবুল বশর মাইজভান্ডারী (চট্টগ্রাম-২)।

এছাড়া যুক্তফ্রন্টের (বিকল্পধারা বাংলাদেশ) এফএম শাহীন (মৌলভীবাজার-২), মেজর (অব.) এমএ মান্নান (লক্ষ্মীপুর-৪) এবং মাহী বি চৌধুরী (মুন্সীগঞ্জ-১) নৌকা প্রতীকে নির্বাচনের জন চিঠি পেয়েছেন।

নৌকা মার্কায় নির্বাচনের চিঠি পেয়েছেন- জাসদের শিরীন অাখতার (ফেনী-১), রেজাউল করিম তানসেন (বগুড়া-৪) ও হাসানুল হক ইনু (কুষ্টিয়া-২), বাংলাদেশের ওয়ার্কাস পার্টির রাশেদ খান মেনন (ঢাকা-৮), ফজলে হোসেন বাদশা (রাজশাহী-২) ও মোস্তফা লুৎফুল্লাহ (সাতক্ষীরা-১)।

উল্লেখ্য, নির্বাচন কমিশন ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ তারিখ ছিল ২৮ নভেম্বর। বাছাইয়ের শেষ তারিখ ২ ডিসেম্বর, প্রত্যাহার ৯ ডিসেম্বর। ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে ৩০ ডিসেম্বর।