শিরোনাম

নাসিরনগরে লড়াই হবে হাড্ডা-হাড্ডি

প্রিন্ট সংস্করণ॥নাসিরনগর (ব্রাক্ষণবাড়িয়া)  |  ০১:৪০, মার্চ ২৫, ২০১৯

আর মাত্র সাত দিন বাকি। ৩১ মার্চ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে চর্তুথ ধাপের নাসিরনগর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন। বিরোধী দল বিনপি ও জাতীয় পার্টি নেই মাঠে। নাসিরনগরে চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে শুধু আ.লীগের লোকজনই প্রতিযোগিতা করছেন। নির্বাচন নিয়ে সাধারণ ভোটারদের মাঝে তেমন কোনো উৎসাহ-উদ্দীপনা দেখা যাচ্ছে না। প্রতিদিন সকাল-সন্ধ্যা চলছে নির্বাচনি প্রচার-প্রচারণা। নাসিরনগরে উপজেলা চেয়ারম্যান পদে আ.লীগের সভাপতি ও প্রবীণ রাজনীতিবিদি ডা. রাফি উদ্দিন আহমেদ দলীয় প্রতীক (নৌকা) অপর দিকে উপজেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক ও র্বতমান উপজেলা চেয়ারম্যান এ টি এম মনিরুজ্জামান সরকার বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে (আনারস) প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে প্রতিযোগিতা করছেন।নির্বাচন নিয়ে উপজেলা আ.লীগ সভাপতি ডা. রাফি উদ্দিন তার মতামত ব্যক্ত করে বলেন, আমি ৪৬ বছর ধরে আ.লীগের রাজনীতি করে আসছি, জীবনে কোনো দিন ভোটে দাঁড়াইনি, এবার দল আমাকে মনোনয়ন দিয়েছে আর আমিও বিশেষ কারণে ও দলীয় নেতাকর্মীদের অনুরোধে ভোটে দাঁড়িয়েছি। তিনি বলেন, উপজেলা, ইউনিয়নসহ বিভিন্ন ওয়ার্ডের আ.লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা আমার সাথে রয়েছে। জয়ের ব্যাপারে তিনি শতভাগ আশাবাদ ব্যক্ত করেন। অপরদিকে বিদ্রোহী প্রার্থী বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক এ টি এম মনিরুজ্জামান সরকার বলেন, দলীয় কর্মকাণ্ড ছাড়াও এলাকার উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডে আমার যথেষ্ট ভূমিকা রয়েছে এবং দলীয় নেতাকর্মীসহ সাধারণ ভোটাররা আমার সাথে রয়েছে। তাই নির্বাচনে জয়ের ব্যাপারে তিনি শতভাগ আশাবাদী। পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান পদে উপজেলা আ.লীগের সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক অরুনজ্যোতি ভট্টাচার্য (তালা), সৈয়দ ফজলে ইয়াজ আল হোসাইনি ফয়েজ চিশতি (চশমা) ও স্বরজিত দাস (টিউবওয়েল), মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রভাষক রুবিনা আক্তার (কলস) ও বর্তমান মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সৈয়দা হামিদা লতিফ পান্না (প্রজাপতি) প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে প্রতিযোগিতা করছেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত