শিরোনাম

উপজেলা নির্বাচনের তৃতীয় ধাপেও ভোটার উপস্থিতি কম

প্রিন্ট সংস্করণ॥নিজস্ব প্রতিবেদক  |  ০০:২৮, মার্চ ২৫, ২০১৯

সংঘর্ষ, ভোট বর্জন, জাল ভোট, স্থগিত ও ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার মধ্য দিয়ে পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের তৃতীয় ধাপের ভোটগ্রহণ সম্পন্ন করেছে নির্বাচন কমিশন। আগের দুই ধাপের মতো তৃতীয় ধাপেও ভোটার উপস্থিতি ছিল অনেক কম। তবে এর মধ্যেও ঘটেছে অনেক ঘটনা। ভোটকেন্দ্রে গোলাগুলি ও ভোট জালিয়াতি রুখতে গিয়ে গুলিবিদ্ধ হয়েছেন পুলিশ কনস্টেবল। শুধু তাই নয়, ভোট জালিয়াতিতে যুক্ত থাকার দায়ে জেলার একজন এএসপি এবং ওসিকে প্রত্যাহারের ঘটনা ঘটেছে। একাধিক জায়গায় আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীরা ভোট বর্জনও করেছেন। গতকাল উপজেলা নির্বাচনের তৃতীয় ধাপে ১১৭ জেলায় ভোটগ্রহণ করা হয়। বিএনপিসহ কয়েকটি বিরোধী দল এ নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দেয়ায় এমনিতেই এর জৌলুস কমে যায়। আগের দুই ধাপে দেখা গেছে, ভোটার উপস্থিতি বেশ কম। এবারের উপজেলা নির্বাচনের প্রথম ধাপে ভোট পড়ে ৪৩ দশমিক ৩২ শতাংশ হারে। প্রথম ধাপে ১০ মার্চ ভোটগ্রহণ হয় ৭৮টি উপজেলায়। দ্বিতীয় ধাপে ১৮ মার্চ ১১৬টি উপজেলায় ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। এর মধ্যে গোলাগুলি ও প্রাণহানির ঘটনাকে কেন্দ্র করে পাঁচটি উপজেলার ভোটের হিসাব ইসিতে এসে পৌঁছেনি। বাকি ১১১টি উপজেলায় ভোটগ্রহণ হয়েছে ৪১ দশমিক ২৫ শতাংশ হারে। দুই ধাপ মিলিয়ে ১৮৯ উপজেলায় ভোট পড়েছে ৪২ দশমিক ২৮ শতাংশ।জানা যায়, চট্টগ্রামের চন্দনাইশে জোর করে ভোট দিতে যায় একদল লোক। প্রিসাইডিং কর্মকর্তা দ্রুত পুলিশের সহায়তা চাইলে সেখানে পুলিশের সদস্যরা যাওয়া মাত্র দুর্বৃত্তরা পুলিশের ওপর গুলি চালায়। সেখানে এক কনস্টেবল আহত হন। তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ওই কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়। সেখানে আওয়ামী লীগের সঙ্গে দলটির বিদ্রোহী প্রার্থীর প্রতিদ্বন্দ্বিতা চলছিলো বলে জানা যায়। কক্সবাজারের পেকুয়ায় দুপক্ষের গোলাগুলিতে তিনজন আহত হন। বিবদমান দুপক্ষই একে অপরের বিরুদ্ধে গুলিবর্ষণের অভিযোগ এনেছে। মানিকগঞ্জের দৌলতপুর উপজেলায় ভোটার শূন্য একটি কেন্দ্রে নৌকা প্রতীকে সিল মারার সময় এক সহকারী প্রিসাইডিং কর্মকর্তাকে আটক করা হয়েছে। আটক রুহুল আমিন জিয়নপুর খাঁপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে সহকারী প্রিসাইডিং কর্মকর্তার দায়িত্ব পালন করছিলেন। গতকাল সকাল ৯টায় এ ঘটনা ঘটে বলে গণমাধ্যম কর্মীদের জেলা প্রশাসক এসএম ফেরদৌস বিষয়টি নিশ্চিত করেন। এই অভিযোগের কারণে ওই উপজেলায় আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী আব্দুল কাদের ও আমিনুর রহমান ভোট বর্জন করেন। সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা ও দৌলতপুরের ইউএনও আব্দুল মোমিন জানান, ভোটের দিন সকাল সাড়ে ৯টায় জিয়নপুর খাঁপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ব্যালট পেপার ছিঁড়ে নৌকা প্রতীকে ভোট দেয়ার চেষ্টা করছিলেন সহকারী প্রিসাইডিং কর্মকর্তা রুহুল আমিন। ঘটনাটি কেন্দ্রের দায়িত্বপ্রাপ্ত আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নজরে এলে তারা বিষয়টি পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের জানান। এরপর তাকে আটক করা হয়। একই জেলার সদর উপজেলার মত্ত সরকারি প্রাথমিক বালক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রের ইভিএম মেশিনের যান্ত্রিক সমস্যা থাকার কারণে সেখানে নির্ধারিত সময়ে ভোটগ্রহণ সম্ভব হয়নি। পরে সেনা সদস্যরা মেশিনটি ঠিক করলে ভোটগ্রহণ শুরু করা হয়। একইদিন কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী ফারুকুজ্জামান নৌকা প্রতীকের প্রার্থীর সমর্থকদের কেন্দ্র দখল ও ভোট জ্বালিয়াতির অভিযোগে ভোট বর্জন করেন। ভোট কারচুপির অভিযোগে কিশোরগঞ্জের কটিয়াদী উপজেলার সব কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ স্থগিত করেছে নির্বাচন কমিশন। এছাড়া নির্বাচনে অনিয়মের অভিযোগে কিশোরগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক্রাইম) মো. শফিকুল ইসলাম ও কটিয়াদী থানার ওসি মো. শামসুদ্দিনকে দায়িত্ব থেকে প্রত্যাহার করা হয়। গতকাল সকাল সাড়ে ১০টার দিকে জেলা নির্বাচন অফিসার মো. তাজুল ইসলাম এসব তথ্য নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, ভোটে কারচুপির অভিযোগে নির্বাচন কমিশনের নির্দেশে কটিয়াদী উপজেলার সব কেন্দ্রের ভোট স্থগিত করা হয়েছে। কটিয়াদী উপজেলায় মোট ভোটকেন্দ্র ৮৯টি। পরবর্তীতে পুনর্নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করা হবে বলে জানান তাজুল ইসলাম।পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের প্রথম ধাপের ভোটগ্রহণের শুরু থেকে এ পর্যন্ত দেড় ডজন এমপির বিরুদ্ধে আচরণবিধি লঙ্ঘনের প্রমাণ পায় নির্বাচন কমিশন (ইসি)। সতর্ক বার্তা দিয়ে তৃতীয় ধাপের ভোটেও সংসদীয় আসনের পাঁচ এমপিকে সতর্ক করে চিঠি দেয়া হয়েছিলো। তাতেও কাজ হয়নি। তারা ঠিকই নির্বাচনি এলাকায় অবস্থান করেন। নড়াইল-১ আসনের এমপি কবিরুল হক মুক্তিকে ইসি থেকে সতর্ক করার পরও তিনি নির্বাচনি এলাকায় অবস্থান করছেন বলে গোয়েন্দা সূত্রে খবর এসেছে। ওই এমপিকে ইসির নজরদারিতে রাখা হয় বলে জানা যায়। এই ধাপে আরও যেসব সংসদ সদস্যের বিরুদ্ধে আচরণবিধি লঙ্ঘনের প্রমাণ পাওয়া গেছে তাদের মধ্যে রয়েছেন- কক্সবাজার-৩ আসনের সাইমুম সরওয়ার কমল, কিশোরগঞ্জ-৫ আসনের আফজাল হোসেন, রাজবাড়ী-২ আসনের জিল্লুল হাকিম ও লক্ষ্মীপুর-৩ আসনের এ কে এম শাহজাহান কামাল। কক্সবাজারের বিভিন্ন উপজেলার কেন্দ্রগুলোতে ভোটার উপস্থিতি না থাকায় কেন্দ্রের ফাঁকা ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে যায়। কেউ কেউ নানা কথা লিখে ছবিসহ নিজের ফেসবুক ওয়ালে প্রকাশ করেন। এতে ওইসব সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারকারীরা লিখেছেন- ‘ভোটার কেন আসে না, কিছু ভালো লাগে না, একবার আসুক তারে’সহ নানা ধরনের কথা। ভোটার শূন্য কেন্দ্রগুলোতে অলস সময় কাটাতে দেখা যায় দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের। ওই জেলার পাঁচটি উপজেলা যথাক্রমে টেকনাফ, উখিয়া, রামু, পেকুয়া ও কুতুবদিয়া উপজেলায় ভোটগ্রহণ চললেও ভোটার উপস্থিতি ছিল একেবারে কম। বরিশাল সদর উপজেলার ভোটকেন্দ্রগুলোও একেবারে ফাঁকা দেখা যায়। কারণ ওই উপজেলাতে এমনিতেই চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে গেছে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায়। ফলে ভোটারদের বিন্দুমাত্র আগ্রহ নেই নির্বাচনের প্রতি। তাই সকাল থেকেই ভোটকেন্দ্রগুলো ফাঁকা দেখা যায়। কয়েকটি কেন্দ্রে অল্পকিছু ভোটার থাকলেও বেশিরভাগ ভোটকেন্দ্রই ভোটার শূন্য দেখা গেছে। নড়াইলের কালিয়া উপজেলায় আওয়ামী লীগ ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে গুলি ছুড়েছে পুলিশ। এতে ১০ জন আহত হয়েছেন। গতকাল দুপুর পৌনে একটার দিকে উপজেলার নোয়াগ্রাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে নৌকা প্রতীক ও আনারস প্রতীকের প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। ঝিনাইদহের শৈলকূপায় কেন্দ্র দখল নিয়ে নৌকা ও আনারস প্রতীকের কর্মী-সমর্থকদের ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এতে ৫ জন আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে দুজনকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। গতকাল বেলা সাড়ে ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ভোটগ্রহণ চলাকালে শৈলকূপা উপজেলার মির্জাপুর কেন্দ্রে নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী নায়েব আলী জোয়ার্দ্দার এবং বিদ্রোহী আনারস প্রতীকের প্রার্থী শিকদার মোশাররফ হোসেনের সমর্থকদের মধ্যে আধিপত্য বিস্তার ও ভোটারদের বাধা দেয়া নিয়ে ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এতে ৫ জন আহত হয়। শৈলকূপা থানার দায়িত্বপ্রাপ্ত অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মির্জা সালাহ উদ্দিন জানান, ঘটনাস্থলে পুলিশ, বিজিবি পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত