শিরোনাম

বিনিয়োগকারীদের আগ্রহে লভ্যাংশ বিতরণের শীর্ষ ২৯ কোম্পানি

প্রিন্ট সংস্করণ॥অর্থনৈতিক প্রতিবেদক  |  ০১:৫১, আগস্ট ১৯, ২০১৮

পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত জুন ক্লোজিংয়ের কোম্পানিগুলোর আর্থিক বছর সমাপ্ত হওয়ায় কোম্পানিগুলো বিনিয়োগকারীদের জন্য লভ্যাংশ ঘোষণা করতে শুরু করেছে। স্বাভাবিক কারণে জুন ক্লোজিংয়ের কোম্পানিগুলোকে ঘিরে বিনিয়োগকারীদের বিশেষ আগ্রহ লক্ষ্য করা যাচ্ছে। বিশেষ করে লভ্যাংশ ঘোষণার শীর্ষ কোম্পানিগুলোকে নিয়ে বিনিয়োগকারীদের বিশেষ আগ্রহও দেখা দিয়েছে। বাজার বিশ্লেষণে দেখা যায়, কিছুদিন যাবত জুন ক্লোজিংয়ের কোম্পানিগুলোর শেয়ারদর ও লেনদেন বেড়েছে। এরমধ্যে লভ্যাংশ ঘোষণার শীর্ষ কোম্পানিগুলোর শেয়ারদর ও লেনদেনে বড় অগ্রগতি দেখা দিয়েছে। তথ্য বিশ্লেষণে দেখা যায়, ব্যাংকিং, নন-ব্যাংকিং আর্থিক প্রতিষ্ঠান, বীমা ও বহুজাতিক কোম্পানি বাদে পুঁজিবাজারে তালিকাভূক্ত জুন ক্লোজিং কোম্পনির সংখ্যা২৩৮টি। এরমধ্যে গতবছর জুন ক্লোজিংয়ের ৩৯টি কোম্পানি বিনিয়োগকারীদের লভ্যাংশ দেয়নি। তবে ৩১টি কোম্পানি বিনিয়োগকারীদের ভালো লভ্যাংশ দিয়েছে। এসব কোম্পানি বিনিয়োগকারীদের ৩০ শতাংশের বেশি লভ্যাংশ দিয়েছিল। এসব কোম্পানির মধ্যে ২টি কোম্পানি ইতোমধ্যে লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। কোম্পানি ২টি হলো-ইউনাইটেড পাওয়ার ও এ্যাপেক্স ট্যানারী। এ্যাপেক্স ট্যনারী গতবছরের সমপরিমাণ লভ্যাংশ ঘোষণা করলেও ইউনাইটেড পাওয়ার গতবছরের চেয়ে বেশি লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। লভ্যাংশ ঘোষণার অপেক্ষায় থাকা অবশিষ্ট ২৯ কোম্পানির আর্থিক প্রতিবেদনে দেখা যায়, চলতি হিসাব বছরের প্রথম নয় মাসে ১৪টি কোম্পানি গত হিসাব বছরের তুলনায় বেশি মুনাফা করেছে এবং ১৫টি কোম্পানি গত হিসাব বছরের তুলনায় কম মুনাফা করেছে। যেসব কোম্পানির মুনাফায় ঊর্ধ্বগতি রয়েছে, সেসব কোম্পানির লভ্যাংশ নিয়ে বিনিয়োগকারীদের প্রত্যাশা বাড়ছে। অন্যদিকে, যেসব কোম্পানির মুনাফা কমে গেছে, সেসব কোম্পানির লভ্যাংশ নিয়ে বিনিয়োগকারীরা শংকার মধ্যে রয়েছেন। মুনাফা বৃদ্ধি পাওয়া কোম্পানিগুলোর মধ্যে অন্যতম হলো-রেনেটা, ইস্টার্ন লুব্রিকেন্ট, স্টাইলক্রাপ্ট, পদ্মা ওয়েল, যমুনা ওয়েল, মেঘনা পেট্রোলিয়াম, স্কয়ার ফার্মা ও ফার্মা এইড। আর মুনাফা কমে যাওয়া কোম্পানিগুলোর মধ্যে অন্যতম হলো-এসিআই, এসিআই ফর্মুলেশন, এ্যাপেক্স ফুটওয়ার, জেমিনি সী ফুড, আইসিবি ও নর্দার্ন জুট। অন্যদিকে, যেসব কোম্পানি সম্প্রতি নানা মূল্য সংবেদনশীল তথ্য প্রকাশ করেছে, সেসব কোম্পানির প্রতিও বিনিয়োগকারীদের বিশেষ ঝোঁক দেখা দিয়েছে। এরমধ্যে রয়েছে স্টাইলক্রাপপট, আমান ফিড ও শাহাজীবাজার পাওয়ার। আমান ফিডের সম্প্রসারিত প্রকল্পের উৎপাদন সম্প্রতি শুরু হয়েছে। কোম্পানি কর্তৃপক্ষ ইতোমধ্যে ঘোষণা দিয়েছে, সম্প্রসারিত প্রকল্প উৎপাদনে আসায় শেষ প্রান্তিকে কোম্পানিটির মুনাফায় ইতিবাচক প্রবৃদ্ধি দেখা যাবে। ফলে এবছর কোম্পানিটির লভ্যাংশ বৃদ্ধি পাবে বলে বিনিয়্গোকারীদের প্রত্যাশা বাড়ছে। অন্যদিকে, শাহাজীবাজার পাওয়ার নতুন কোম্পানির সাথে মূলধনী অংশীদারিত্বে যুক্ত হয়েছে এবং স্টাইলক্রাপট অনুমোদিত মূলধন বৃদ্ধির ঘোষণা দিয়েছে। এই দুই কোম্পানিকে ঘিরেও বিনিয়োগকারীদের প্রত্যাশা বাড়ছে। যদিও কোম্পানি ২টির তাৎক্ষনিক ফলাফল সমাপ্ত হিসাব বছরে পাওয়ার সম্ভাবনা নেই।
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত