শিরোনাম

আধুনিকতার ফুটবল শুরু মেক্সিকো বিশ্বকাপ দিয়ে

ক্রীড়া ডেস্ক  |  ১৯:২৯, মে ১৬, ২০১৮

অনেকের মতে, ১৯৭০ সালের মেক্সিকো বিশ্বকাপ ছিলো ফুটবলে আধুনিকতার শুরু। বিশ্ব ফুটবলের টার্নিং পয়েন্ট। সেবারই সারা বিশ্বে ফুটবল ভক্তদের একটা বিশাল অংশ স্যাটেলাইটের মাধ্যমে টিভিতে প্রথমবারের মতো রঙ্গিন বিশ্বকাপ উপভোগ করেছিলেন। সেবার একঝাঁক দুর্দান্ত তারকার সেরা ফর্ম, দুরন্ত আক্রমণাত্মক ফুটবল ব্রাজিলকে করে তুলেছিলো অপ্রতিরোধ্য। ফাইনালে ইতালিও ব্রাজিলের কাছে খড়কুটোর মতো উড়ে গিয়েছিলো ব্রাজিলের কাছে। ফাইনালে ইতালিকে ৪-১ গোলে বিধ্বস্ত করে সেলেকাওরা। তৃতীয় বারের মতো বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হয়ে জুলেরিমে কাপ চিরদিনের মতো নিজেদের করে নেয় ব্রাজিল।

১৬ দল ছিলো চার গ্রুপে। স্বাগতিক মেক্সিকো এবং ১৯৬৬ সালের চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড পেয়েছিলো সরাসরি বিশ্বকাপে খেলার টিকেট। সেবারই দুটি নিয়ম চালু হয়েছিলো। বদলি খেলোয়ার নামানোর (এক ম্যাচে প্রতি দলে সর্বোচ্চ দুজন) এবং হলুদ ও লাল কার্ডের প্রচলন। বিশ্বকাপের ইতিহাসে প্রথম বদলি খেলোয়ার হিসেবে প্রথম ম্যাচেই মেক্সিকোর বিপক্ষে নেমেছিলেন রাশিয়ার আনাতোলি পুজাচ। ব্রাজিল তখন তারকায় টইটম্বুর। পেলে, জায়ারজিনহো, গারসন, টোষ্টাও, রিভেলিনো, মারিও জাগালো, ব্রিটো এবং কার্লোস আলবার্তো। যেটা ছিলো ফুটবল সম্রাট পেলের বিদায়ী বিশ্বকাপ।

সেমিফাইনালে উঠেছিলো ব্রাজিল-উরুগুয়ে এবং ইতালি-পশ্চিম জার্মানি। উরুগুয়েকে ৩-১ গোলে হারায় ব্রাজিল। সেমির অন্য ম্যাচে বিশ্বকাপের এখনতক সেরা ম্যাচে ইতালি ৪-৩ গোলে জেতে জার্মানির বিপক্ষে। জার্মানি শেষ পর্যন্ত তৃতীয় হয় উরুগুয়েকে ১-০ গোলে হারিয়ে। ১০ গোল করে সর্বোচ্চ গোলদাতা জার্মানির 'দ্য বম্বার' গার্ড মুলার। মেক্সিকো সিটির আজটেক ষ্টেডিয়ামে ২১ জুনের ফাইনালে ১৮ মিনিটে রিভেলিনোর ক্রস থেকে হেডে গোল করে ব্রাজিলকে ১-০ তে এগিয়ে দেন পেলে। ৩৭ মিনিটে ব্রাজিলের রক্ষনভাগের ভুলে গোল শোধ করে ম্যাচে ইতালিকে সমতায় ফেরান রবার্তো বনিনসেগা। দ্বিতীয়ার্ধে ব্রাজিলের দুর্দান্ত ফুটবল ছুয়ে যায় পুরো বিশ্বের কোটি-কোটি ফুটবল প্রেমিদের। ৬৬ মিনিটে দুর্দান্ত শটে গোল করে খেলায় ব্রাজিলকে আবারো লিড এনে দেয় গারসন। চার মিনিট পরই গারসনের ক্রসে পেলের হেড, তা থেকে জায়ারজিনহোর গোল। ৮৬ মিনিটে আরো এক গোল করে ব্রাজিল। ইতালিকে এক প্রকার বিধ্বস্ত করে তৃতীয় বারের মত বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হয়ে জুলে রিমে কাপ চিরদিনের জন্য নিজের করে নেয় ব্রাজিলিয়ানরা। ফাইনালের পরদিন ইতালির রোমের পত্রিকাতেও ছাপা হয় ইতালি বিশ্বের সেরা খেলোয়ারদের কাছেই হেরেছে )

১৯৭০ সালেই শেষ হয় 'পেলে' নামক সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ খেলোয়ারের বিশ্বকাপ অধ্যায়। সেই সাথে পৃথিবীর ফুটবল ইতিহাসের একমাত্র খেলোয়ার হিসেবে ৩ টি বিশ্বকাপ জেতার অনন্য এক রেকর্ড করেন এই ফুটবল সম্রাট, যা এখন পর্যন্ত অক্ষুন্ন আছে, আদৌ এ রেকর্ড কেউ ভাঙ্গতে পারবে কীনা তা নিয়ে সন্দেহ থেকেই যায়) আর ১৯৭০ সালের বিশ্বকাপের ব্রাজিল দলটাকে সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ দল হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত