শিরোনাম
যন্ত্রপাতি ও খালের রেলিং নির্মাণ

উন্নয়ন কাজে ১৬ কোটি টাকা ব্যয় করবে ওয়াসা

প্রিন্ট সংস্করণ॥ফারুক আলম  |  ০০:৩০, অক্টোবর ১১, ২০১৮

ঢাকায় খালের রেলিং নির্মাণ, পাম্পের মেরামত ও যন্ত্রপাতি ক্রয়ে ১৬ কোটি ৪০ লাখ টাকা ব্যয় করবে ঢাকা ওয়াসা। ২০১৮-১৯ অর্থবছরের কর্মপরিকল্পনায় এসব কাজ শুরু হবে। চলমান এসব উন্নয়ন কাজের বাস্তবায়ন হলে এলাকাবাসী উপকৃত হবেন।ওয়াসার সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানান, খালের রেলিং, স্টর্ম ওয়াটার পাম্পিং স্টেশন মেরামত ও কিছু যন্ত্রপাতি ক্রয়ে ১৬ কোটি ৪০ লাখ টাকা ব্যয় ধরা হয়েছে। ছোটোখাটো এসব কাজে দুর্নীতি ও অনিয়ম না হলে স্থানীয় লোকজন উপকৃত হবেন। কিন্তু ওয়াসা নিয়োজিত ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের অদক্ষতা, অনিয়ম, অবহেলা, অসততা প্রভৃতি কারণে এসব ছোটো কাজগুলো প্রশ্নের সম্মুখীন হয়। মেরামতের কাজে ওয়াসার নিয়োজিত ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানগুলো গড়িমসি করে। এতে নগরবাসীর দুর্ভোগ বৃদ্ধি পায়।খালের রেলিং নির্মাণ ও মেরামতের মধ্যে রয়েছে খিলগাঁও-বাসাবো ইউ-চ্যানেলের সাইড প্রকেটশনসহ এক হাজার ৬৬০ মিটার রেলিং নির্মাণে খরচ ধরা হয়েছে ১ কোটি ৫০ লাখ টাকা। জিরানী খালে বিদ্যমান ইউ-চ্যানেলের সাইড প্রটেকশনসহ এক হাজার ৬০০ মিটার রেলিং নির্মাণে খরচ ১ কোটি ৫০ লাখ টাকা। শাহাজাদপুর ইউ-চ্যানেলের সাইড প্রটেকশনসহ এক হাজার ৯০০ মিটার রেলিং নির্মাণে খরচ ধরা হয়েছে ২ কোটি টাকা। সাংবাদিক কলনি ইউ-চ্যানেলের সাইড প্রটেকশনসহ ৫শ মিটার রেলিং নির্মাণে ৫০ লাখ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। মহাখালী ইউ-চ্যানেলের সাইড প্রটেকশনসহ ৬২০ মিটার রেলিং নির্মাণে ব্যয় হবে ৭০ লাখ টাকা। ১০টি ভিএফডি ও প্যানেল বোর্ড সার্ভিসিং ও রক্ষণাবেক্ষণ কাজের জন্য ১০টি আইটেম ক্রয়ে ৬০ লাখ টাকা ধরা হয়েছে। কল্যাণপুর/ধোলাই খাল পাম্পে মালামাল সংগ্রহসহ মেরামত কাজের জন্য ১টি আইটেম ক্রয়ে ব্যয় ধরা হয়েছে ৩ কোটি টাকা। এছাড়াও ৪টি স্টর্ম ওয়াটার পাম্পিং স্টেশনের মেরামত, রক্ষণাবেক্ষণ ও পরিচালনার আনুষঙ্গিক কাজে ৪টি আইটেমে ব্যয় ধরা হয়েছে ৬ কোটি ৫০ লাখ টাকা।এ বিষয়ে ঢাকা ওয়াসার পরিচালক (কারিগরি) এ কে এম সহিদ উদ্দিন আমার সংবাদকে বলেন, খালের রেলিং, পাম্পিং স্টেশন মেরামত এবং যন্ত্রপাতি ক্রয়ে একটি তালিকা তৈরি করা হয়েছে। নিয়ম অনুযায়ী টেন্ডার প্রক্রিয়ায় মাধ্যমে ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানগুলো এসব কাজ পাবেন। সেখানে অনিয়ম হওয়ার কোনো সুযোগ নেই। উল্লেখ, রাজধানীর শাহাজাদপুরে বৃষ্টির পানি ও বসত-বাড়ির পানি দ্রুত নিষ্কাশনে ঢাকা ওয়াসার আওতায় বিশ্বব্যাংকের অর্থায়নে ২০১৩-১৪ সালে ‘ইউ চ্যানেল’ খাল খনন করা হয়েছে। রেলিং ছাড়াই খালটি খনন করা হলেও গত ৪ বছরেও রেলিংয়ের ব্যবস্থা করা হয়নি। যা নিয়ে গত মে মাসে দৈনিক ‘আমার সংবাদ’ পত্রিকায় ‘ওয়াসার মরণ ফাঁদ’ শিরোনামে সংবাদ প্রকাশিত হয়। সংবাদটি ওয়াসা কর্তৃপক্ষের নজরে আসায় শাহজাদপুরে এক হাজার ৯শ মিটারের খালটিতে রেলিং নির্মাণের পরিকল্পনার পাশাপাশি অন্যান্য ‘ইউ চ্যানেল’গুলোতেও রেলিং নির্মাণ করতে যাচ্ছে। এসব ‘ইউ চ্যানেল ও মেরামতের’ জন্য ইতোমধ্যে প্রপোজাল তৈরি করেছে ওয়াসা। কিছুদিনের মধ্যেই এই প্রপোজাল স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত