শিরোনাম

প্রাথমিক শিক্ষকদের সংকট নিরসনে হচ্ছে কমিটি

প্রিন্ট সংস্করণ॥ বেলাল হোসেন  |  ০১:৪৮, ডিসেম্বর ২৭, ২০১৭

বেতন বৈষম্য নিরসনের সমাধানে এক সপ্তাহের মধ্যে বসতে যাচ্ছে সরকার। গতকাল সচিবালয়ে প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী মো. মোস্তাফিজুর রহমান তার নিজ দপ্তরে আমার সংবাদের সাথে আলাপচারিতায় একথা জানান। মন্ত্রী বলেন, সংকট নিরসনের বিষয়টি শুধু আমাদের মন্ত্রণালয়ের একার নয়। এর সাথে অর্থ ও জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সম্পৃক্ত। ফলে তাদের সাথে কথা বলেই এর সমাধান করতে হবে। তিনি বলেন, অর্থ ও জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সাথে আমরা সমন্বয় করে দাবিগুলো নিয়ে আলোচনা করতেই শিক্ষক নেতাদের নিয়ে একটি কমিটি করার সিন্ধান্ত নিয়েছি। তবে শিক্ষকদের সংগঠনগুলো নিবন্ধিত না হওয়ায় তাদের তো চিঠি দিয়ে ডাকা সম্ভব না। এজন্য শিক্ষকদের মধ্যে থেকে পাঁচ/সাত জনের একটি প্রতিনিধি দল ঠিক করতে বলা হয়েছে। তিনি বলেন, গঠিত কমিটি মন্ত্রী, সচিব ও বিভাগীয় ডিজির সাথে মিটিং করবেন এবং দাবি-দাওয়ার বিষয়ে একটি সামারাইজ তৈরি করবেন। আমরা শিক্ষকদের সমস্যা সমাধানে আন্তরিক জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, আমাদের ভুল বুঝলে হবে না। আমরা চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। তবে এভাবে আন্দোলন করলেই সমস্যার সমাধান হবে না বরং আলোচনা করেই সমাধানের পথ খুঁজে বের করতে হবে।  প্রসঙ্গত, বেতন বৈষম্য নিরসনের দাবিতে গত শনিবার থেকে বাংলাদেশ প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক সমিতি মহাজোটের ব্যানারে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আমরণ অনশন শুরু করে শিক্ষকরা। পরে প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী গত সোমবার বিকালে এসে নেতাদের জুস খাইয়ে অনশন ভাঙ্গান। তবে সুস্পষ্ট কোনো আশ্বাস না পেলেও নেতাদের অনুরোধে সোমবার সন্ধ্যায় অনশন ভাঙেন আন্দোলন চালিয়ে আসা হাজারো সহকারী শিক্ষক। সহকারী শিক্ষকরা জানিয়েছেন, আগের বেতন স্কেলগুলোতে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকদের এক ধাপ নিচে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত সহকারী শিক্ষকরা বেতন পেতেন। কিন্তু ২০১৫ সালের বেতন কাঠামোতে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত সহকারী শিক্ষকদের সঙ্গে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকদের ব্যবধান তিন ধাপ। এখন প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত সহকারী শিক্ষকরা ১৪তম গ্রেডে (মূল বেতন ১০ হাজার ২০০) বেতন পাচ্ছেন। আর প্রধান শিক্ষকরা পাচ্ছেন ১০তম গ্রেডে (মূল বেতন ১৬ হাজার টাকা)। সহকারী শিক্ষকরা এ বৈষম্য নিরসনে প্রধান শিক্ষকদের এক ধাপ নিচে ১১তম গ্রেডে (১২ হাজার ৫০০) বেতন চান। এছাড়া উন্নীত ধাপে প্রধান শিক্ষকরা যখন ৫৩ হাজার ৬০ টাকা স্কেলে বেতন পাবেন, তখন সহকারী প্রধান শিক্ষকরা প্রধান শিক্ষকদের প্রায় অর্ধেক ২৭ হাজার ৩০০ টাকা পাবেন বলেও জানিয়েছেন শিক্ষকরা।
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত