শিরোনাম

ছোট দলের বড় আশা

প্রিন্ট সংস্করণ॥ আফছার আহমদ রূপক  |  ০৯:৫৮, অক্টোবর ১২, ২০১৭

সব বড় রাজনৈতিক দল যেখানে আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অংশগ্রহণমূলক দেখার জন্য নানা তৎপরতা চালাচ্ছে সেখানে কয়েকটি ছোট রাজনৈতিক দলের ভাবনা ঠিক উল্টো। ওইসব ভুঁইফোড় ছোট দলের নেতাদের ইচ্ছা আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন যেন ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের মতো ভোটারবিহীন হয়। তাদের আশা ২০১৪ সালের মতো যদি ২০১৮ সালের ডিসেম্বর অথবা ২০১৯ সালের জানুয়ারিতে অনুষ্ঠিতব্য একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি অংশ না নেয় তাহলে তাদের পোয়াবারো অবস্থা হবে।

অর্থাৎ ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ এসব ছোট দলকে নিয়ে নির্বাচন করবে। তাতে তাদের মূল্যায়ন হবে। এমনকী এসব নামসর্বস্ব দল থেকে একজন বা দুজন এমপিও পেয়ে যেতে পারে। যেমনভাবে ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির জাতীয় সংসদ নির্বাচনে একজন এমপি পেয়েছিল বিএনএফ নামে একটি অখ্যাত রাজনৈতিক দল। ওই দলের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ রাজধানী ঢাকার একটি আসনে এমপি নির্বাচিত হয়ে যান।

তবে তাতে জনগণ তেমন অবাক হয়নি। কারণ বিএনপিবিহীন ওই নির্বাচনে জাতীয় পার্টির পাশাপাশি সংসদে অন্য দলেরও এমপি চেয়েছিল আওয়ামী লীগ। বিএনএফর মতো এ ধরনেরই ভাগ্যের চাকা ঘোরাতে চায় অনেক ছোট দল। তাই শকুন যেমন গরু মরার দোয়া করে, তেমনি কিছু ছোট দল ভোটারবিহীন একাদশ নির্বাচন কামনা করছে। এ লক্ষ্যে এই ছোট দলগুলো নির্বাচন কমিশনে নিবন্ধন হওয়ার জন্য মরিয়া। আবার অনেক ছোট দল আগে থেকেই নিবন্ধিত। এ নিবন্ধিত দলগুলো বড় দলের ছোঁয়ায় এমপিও পেয়ে যাচ্ছে। এ ধরনের দলগুলো এবারো বড় দলের অনুগত দল হয়ে একই ফললাভ করতে চাচ্ছে।

অনুসন্ধানে দেখা গেছে, জাতীয় সংসদ নির্বাচনের এক থেকে দেড় বছর আগেই নতুন দলের আত্মপ্রকাশ ঘটছে। এ ধরনের একটি নতুন সংগঠন যুক্তফ্রন্ট। রাজধানীর বেশ কয়েকটি দেয়ালে এই সংগঠনটির পোস্টার দেখা গেছে। পোস্টারে ৩৫টি দল নিয়ে এই যুক্তফ্রন্টের কথা বলা হয়েছে। তবে পোস্টারে বড় করে একটি বৃহৎ দলের সভাপতির প্রশংসা। মজার ব্যাপার হচ্ছে উল্লিখিত দলীয়প্রধান যুক্তফ্রন্টের কেউ নন। তাকে খুশি করে আগামী নির্বাচনে হয়তো ফাঁকা মাঠে গোল দিতে চায় যুক্তফ্রন্ট। অথচ প্রকৃত বিরোধী দল হলে কেবল সেই দলের সভাপতি বা দলের ভালো কাজের ফিরিস্তি তুলে ধরা হয়ে থাকে। ব্যতিক্রম দেখা যাচ্ছে এ সংগঠনের ক্ষেত্রে। এরকম প্রশংসাসূচক বাণী দেখা গেছে লেবার পার্টি নামে একটি ভুঁইফোড় সংগঠনের পোস্টারেও। ঘটনাটি অবশ্য বছর দুয়েক আগের। বিএনপিবিহীন গত দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনএফ নামক অখ্যাত রাজনৈতিক দলটির এমপি হয়ে যাওয়ার পর থেকেই ক্ষমতাসীন দলকে তোষামোদ করে এসব ছোট রাজনৈতিক সংগঠনগুলো এমন প্রচারণা বেশি দেখা যাচ্ছে।

এসব দল আশা করছে আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনও দশম নির্বাচনের মতো বিএনপিবিহীন হবে আর তাতে অংশ নিলেই বিএনএফর আবুল কালাম আজাদের মতো এমপি হয়ে যাওয়া। অনেকটা বিনামেঘে বজ্রপাত। এরকম আরও কয়েকটি ছোট দল হচ্ছে বিজেপি, জনতাপার্টি, ন্যাশনাল পিপলস পার্টি, এনডিএফ, নতুনধারা বাংলাদেশ, বাংলাদেশ তফসিল ফেডারেশন, তরিকত ফেডারেশন ইত্যাদি ইত্যাদি।

 

আরও পড়ুন:- ভোটারদের মনে আ.লীগের জয়!<

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত