শিরোনাম

চকবাজার-সোয়ারীঘাট সড়ক ব্যবহার অনুপযোগী

কোটি টাকার ব্যবসায় ধস
প্রিন্ট সংস্করণ॥হাসান-উজ-জামান  |  ০১:১৯, মার্চ ১৬, ২০১৯

‘নাউজুবিল্লাহ! আস্তাগফিরুল্লা। মনে চাইলে হাত-পা বাইন্ধা আধাঘণ্টা পিটাইয়া যান, তবুও ওই রাস্তায় যাইতে কইবেন না’। সম্প্রতি চকবাজার হয়ে সোয়ারীঘাটের যেতে চাইলে জনৈক যাত্রীকে উদ্দেশ্য করে রিকশাচালক ফরিদ এ মন্তব্য করেন। রিকশাচালককে কারণ জিজ্ঞাসা করলে তার উত্তর- যদি সাংবাদিক হন তাহলে একবার ঘুরে আসুন। সরেজমিন এলাকা ঘুরে দেখা যায়, চকবাজার থেকে সোয়ারীঘাটের মূল রাস্তাটির করুণ অবস্থা। একেতো ভাঙাচোরা। তার পর হাঁটু কাদা। ওই সড়কটিতে রয়েছে শত শত ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান। রাস্তার বেহালদশার কারণে তাদের মাথায় হাত। ক্রেতা পা মাড়াচ্ছেন না সেদিকে। পরিচিতজনরা বিকল্প দিয়ে যাতায়াত করেন। রকমারি ব্যবসায়ী সুলেমান বলেন, শুধু এ রাস্তাটির কারণে এখানকার ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানগুলোর বারোটা বাজতে বসেছে। আগে কোটি কোটি টাকার বেচাকেনা হতো। এখন কোম্পানির গাড়িও আসতে চায় না। ব্যবসায়ী শিপন বলেন, চকবাজার এলাকা ছোট ছেলে-মেয়েদের খেলনা সামগ্রীসহ বিভিন্ন পণ্যের দেশের বড় পাইকারি বাজার হিসেবে বিখ্যাত। অনুপযুক্ত যোগাযোগ ব্যবস্থার কারণে ক্রেতারা আসতেই চায় না। চিন্তা করছি ব্যবসা অন্যত্র সরিয়ে নেব। অন্য ব্যবসায়ীরা বলেন, এখনই এ অবস্থা। বর্ষাকাল শুরু হলে এখানে নৌকা চলবে। স্থানীয় জনগণ ও ব্যবসায়ীরা জানান, ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের ৩০ নম্বর ওয়ার্ডের প্রাণকেন্দ্র চকবাজার-সোয়ারীঘাটের সড়ক।সড়কটির পিচ ঢালাই, খোয়া বেরিয়ে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে অনেক আগেই। সামান্য বৃষ্টিতে চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়ে সড়ক। কাদা-পানি মাড়িয়ে চলাচল করতে হচ্ছে এলাকাবাসীকে। রিকশাসহ হালকা যানবাহনও যেতে চায় না। বাজার করে হাতে নিয়েই বাসায় ফিরতে হয়। একেবারে পাশ ঘেষেও হাঁটা যায় না। কি যে বিব্রতকর পরিস্থিতি তা কেবল ভুক্তভোগীরা অনুভব করতে পারেন। ওই সড়ক দিয়ে প্রতিদিন লাখো মানুষের চলার কথা। অন্যরা বিবল্প পথ ব্যবহার করলেও স্থানীয়রা যাবেন কোথায়। তাদের দুর্ভোগ সীমাহীন। স্কুলে যেতে চায় না শিশুরা। তাদের দাবি- সড়ক, ফুটপাত ও ড্রেনেজ অব্যবস্থায় চরম ভোগান্তি সৃষ্টি হচ্ছে। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে ৩০ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর হাসান পিল্লুকে একাধিকবার ফোন করা হলেও তিনি রিসিভ করেননি। তবে স্থানীয়দের অভিযোগ- কাউন্সিলর কাগজে কলমে জনপতিনিধি হলেও তিনি আসলে এলাকার উন্নয়নে কোনো কাজ করেন না। এ রাস্তাটিই তার প্রমাণ। স্থানীয়রা এ রাস্তাটি দ্রুত সংস্কারের দাবিতে মেয়রসহ সংশ্লিষ্টদের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত