গ্রাম পর্যায়ে বাড়ছে টেলিটকের নেটওয়ার্ক

নিজস্ব প্রতিবেদক | ১৭:২৪, জানুয়ারি ১১, ২০১৭

 দেশব্যাপী টেলিটকের নেটওয়ার্ক বাড়াতে গ্রাম পর্যায়ে সম্প্রসারণ ও সুসংহত করার লক্ষ্যে নকিয়া এবং অ্যালকাটেল লুসেন্ট সাংহাই বেলের সঙ্গে দুটি চুক্তি স্বাক্ষর করেছে টেলিটক। বুধবার সচিবালয়ে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে এ চুক্তি সই হয়।

টেলিটকের পক্ষে প্রতিষ্ঠানটির এমডি গিয়াসউদ্দিন আহমেদ, নকিয়ার পক্ষে অঞ্চলিক প্রধান নিকোলাস পিক এবং অ্যালকাটেলের পক্ষে প্রতিষ্ঠানের কান্ট্রি লিডার রোলান্ড রে লিসার চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন। নোকিয়ার সঙ্গে টেলিটকের ১৮ দশমিক ৪ মিলিয়ন মার্কিন ডলার ও অ্যালকাটেলের সঙ্গে ১৪ দশমিক ৭ মিলিয়ন ডলারের চুক্তি হয়েছে।

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন, ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম। তিনি বলেন, সিম নিবন্ধনের পর গত ছয় মাসে টেলিটকের গ্রাহক সংখ্যা ছয় লাখ বেড়ে বর্তমানে ৩৮ লাখ হয়েছে। আমাদের লক্ষ্য অনেকদূর, আমরা এখানেই থেমে থাকবো না।

টেলিটকের নেটওয়ার্ক বাড়ানো ছাড়া আমাদের আর কোনও উপায় নেই। তারানা হালিম বলেন, আমাদের অন্য সেবাগুলো নিশ্চিত করা হয়েছে। এখন নেটওয়ার্ক বাড়ানোই মূল কাজ। টেলিটক ও নকিয়ার (প্যাকেজ-২) মধ্যে চুক্তির আওতায় বরিশাল, খুলনা ও সিলেট বিভাগের বিভিন্ন এলাকায় বিটিএস/নোড-বি ও আনুষাঙ্গিক বসানোর মাধ্যমে টেলিটকের টু-জি ও থ্রি-জি নেটওয়ার্ক শক্তিশালী করা হবে।

আর টেলিটক ও অ্যালকাটেলের (প্যাকেজ-৩) মধ্যে চুক্তির আওতায় বিটিএস/নোড-বি ও আনুষাঙ্গিক বসানোর মাধ্যমে ঢাকার উত্তরা, গাজীপুর, সাভার, ময়মনসিংহ, বগুড়া, রাজশাহী বিভাগের বিভিন্ন এলাকায় নেটওয়ার্ক শক্তিশালী করা হবে।

প্রতিমন্ত্রী আরও জানান, চুক্তিসমূহ বাস্তবায়নের মাধ্যমে গ্রাম পর্যায়ে টেলিটকের নেটওর্য়াক সম্প্রসারিত হবে এবং জনসাধারণের মাঝে টেলিটকের দুর্বল নেটওর্য়াক বিষয়ে যে আক্ষেপ আছে তা উত্তরণ আরও একধাপ এগিয়ে যাবে।

এসকল চুক্তির আওতায় সর্বাধুনিক মানের যন্ত্রপাতি ব্যবহার করা হচ্ছে জানিয়ে তারানা বলেন, এর ফলে পরবর্তীতে অতিসহজেই টেলিটকের বিদ্যমান নেটওর্য়াক ৪-জি চালুর মাধ্যমে গ্রহকদেরকে আরও অধিকতর আধুনিক মোবাইল সেবা দেয়া সম্ভব হবে।



 

 

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
close-icon