শিরোনাম

চকবাজারে ভয়াবহ আগুন, দগ্ধ-আহত বহু মানুষ

নিজস্ব প্রতিবেদক  |  ২৩:৩৯, ফেব্রুয়ারি ২০, ২০১৯

 

পুরান ঢাকার চকবাজারে চার তলা একটি বাড়িসহ কয়েকটি ভবনে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে বলে খবর পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় বহু মানুষ দগ্ধ-আহত হয়েছেন।

বুধবার (২০ফেব্রুয়ারি) রাতে রাড়ে ১০টার দিকে চুড়িহাট্টা শাহী মসজিদের পেছনের ওই ভবনগুলোতে আগুন লাগার পর অন্তত ৩০ জনকে আহতাবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। এদের মধ্যে অন্তত ১০ জন অগ্নিদগ্ধ এবং বাকিদের বিভিন্ন স্থানে জখম রয়েছে বলে হাসপাতালে কর্তব্যরত কর্মীরা জানিয়েছেন। রাত ২টায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করছিল ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ ফাঁড়ির এসআই বাচ্চু মিয়া ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেছেন, “আহত আরও অনেকে আসছে।” হাসপাতালে ভর্তি হওয়াদের মধ্যে রয়েছেন আলামিন (২৫), রিমন (২৮), সিয়াম (২৩), রেজাউল (২১), বাবুল (২৮), শহিদ (৫২), শহিদুল্লাহ (৫০), করিম (৫০), শামীমুর রহমান (৪২), সাইফুল (৩৫), সালাউদ্দিন (২৬), জাকির হোসেন (৫০), মাহমুদ (৫০), লামিম (১২), আনোয়ার (৫৫), সালাউদ্দিন (৩৫), পীর মোহাম্মদ (৪৭), কাউছার (৪৫), সোহেল (৩৫), পলাশ (৩৫), জাহাঙ্গীর (৩৫), সালাম (৩৫), রবিউল (২৭), মন্জুরুল আলম (৪৫), জিয়াউদ্দিন (২৪)।

বার্ন ইউনিটের ইউনিটের চিকিৎসক হোসাইন ইমাম সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, তারা অগ্নিদগ্ধ ১০ জন রোগী পেয়েছেন, তার মধ্যে নয়জনকে ভর্তি করেছেন। এর মধ্যে চারজনের অবস্থা গুরুতর; সোহাগ নামে একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। যে ভবনে প্রথম আগুন লেগেছে, তার নিচতলায় একটি দোকান রয়েছে, দোতলায় রয়েছে বিভিন্ন প্রসাধন-প্লাস্টিক সামগ্রীর গুদাম। উপরের দুটি তলায় রয়েছে বাসা।

ফায়ার সার্ভিসের নিয়ন্ত্রণ কক্ষের জিয়াউর রহমান বলেন, চকবাজারে চুড়িহাট্টা মসজিদ গলির একটি চারতলা ভবনে আগুন লাগে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের ৩২টি ইউনিট সেখানে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ শুরু করে। তিনি জানান, কীভাবে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে, তা জানা যায়নি। চারতলা আবাসিক ভবনের নিচে রাসায়নিকের গুদাম রয়েছে। তাই আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে।

রাতেই ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায়, দাউদাউ করে আগুন জ্বলছে। হাজারো উৎসুক জনতা আশপাশ এলাকায় ভিড় করেছেন। হাজী ওয়াহেদ মিয়ার বাড়ির সামনের আরেকটি ভবনেও আগুন ছড়িয়ে পড়ছিল। থেমে থেমে বিকট শব্দ শোনা যায়। এলাকাবাসী জানান, ওয়াহেদ মিয়ার বাড়িতে রাসায়নিকের গুদাম রয়েছে। তাই আগুন লাগার পরপর তা দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে।

চকবাজার থানার এসআই কামরুজ্জামান বলেন, আগুনের খবর পেয়ে একাধিক কর্মকর্তা সেখানে গেছেন। আগুন লাগা ভবনের আশপাশের এলাকায় বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে।

এদিকে, ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

উল্লেখ্য, পুরান ঢাকার নিমতলীতে ২০১০ সালের ৩ জুন কেমিক্যালের গুদামে ভয়াবহ আগুনের ঘটনা ঘটে। সে ঘটনায় ১২৪ জন মারা যান। 

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত