শিরোনাম

ফেনীতে কৃষি জমির প্রাণ যাচ্ছে ইট ভাটায়

মুহাম্মদ মিজানুর রহমান, ফেনী  |  ১৭:১৬, ফেব্রুয়ারি ১১, ২০১৯

ফেনী জেলার কৃষি জমির প্রাণ উর্বর মাটি চলে যাচ্ছে বিভিন্ন ইট ভাটায়। এতে ফসল উৎপাদনে হুমকির মুখে পড়ছে কৃষি বিভাগ। ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেও মাটি ব্যবসার রোধ করা যাচ্ছে না। গতকাল রোববার (১০ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে সদর উপজেলার লেমুয়ায় ইট ভাটায় মাটি বিক্রয় করার অভিযোগে ২৬ হাজার টাকা জরিমানা ও ১টি স্কেভেটর জব্দ করে ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) নুরের জামান চৌধুরী।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, ফেনীর ছয় উপজেলায় শতাধিক ইট ভাটা রয়েছে। এসব ইট ভাটায় কৃষি জমির মাটির উপর নির্ভরশীল। কিছু অসাধু ব্যবসায়ী নিজেদের লাভে কৃষকদের ফাঁদে ফেলে নামমাত্র মূল্যে কৃষি জমির প্রাণ ইট ভাটার মালিকদের কাছে বিক্রি করে দিচ্ছে। টপ সয়েল কৃষি জমির সবচেয়ে উর্বর অংশ। ফেনীতে কৃষি উৎপাদনের স্বার্থে টপ সয়েলের সর্বোত্তম সুরক্ষা করতে মাঠে নেমেছে ভ্রাম্যমান আদালত। গতকাল দুপুরে সদর উপজেলার লেমুয়া ইউনিয়নের কসকায় কৃষি জমির মাটি কাটারোধ করতে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) নুরের জামান চৌধুরী। এ সময় নুরুল হুদা (৬৫), কামাল উদ্দিন (৫৫) ও মো: সায়েদুল হক (২৮) এর ২৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। মাটি বহন করার অভিযোগে পিকআপ চালক মো: নুরুল্লাহ (৪৫) এর ৫০০ টাকা ও বাবুল (২২) কে ড্রাইভিং লাইসিং না থাকার অপরাধে ৫০০ টাকা জরিমানা করা হয়।

ভূক্তভোগী এলাকাবাসী জানায়, ইট ভাটার মাটি বিক্রয় করার ফলে পরিবহনের কারণে গ্রামীণ সড়কগুলোর বেহাল দশা। অনেক সড়কের ইট সুরকি উঠে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। ইট ভাটার মালিকরা সড়ক মেরামত করার কথা বললেও তা করছে না।

সহকারী কমিশনার (ভূমি) নুরের জামান চৌধুরী জানান, কৃষি জমির টপ সয়েল হল সবচেয়ে উর্বর অংশ যা ফসলের উৎপাদনের জন্য অত্যন্ত জরুরী। আমাদের মত ঘনবসতিপূর্ণ দেশে কৃষি উৎপাদনের স্বার্থে টপ সয়েলের সর্বোত্তম সুরক্ষা খুবই প্রয়োজন। কিছু অসাধু ব্যক্তি সাময়িক লাভের আশায় দেশের সুদূর-প্রসারী ক্ষতি সাধন করছে। জনসার্থে তাদের বিরুদ্ধে এ ধরনের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত