শিরোনাম

চাকরি জাতীয়করণের দাবি: আমরণ অনশনে অসুস্থ ১০৬ শিক্ষক

নিজস্ব প্রতিবেদক  |  ১৭:০৮, জানুয়ারি ১২, ২০১৮

চাকরি জাতীয়করণের দাবিতে অবস্থান কর্মসূচির পর আমরণ অনশন করছেন বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষাবোর্ডের রেজিস্ট্রেশনপ্রাপ্ত ইবতেদায়ি মাদ্রাসার শিক্ষকরা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ জাতীয়করণের ঘোষণা না দেয়া পর্যন্ত তারা আমরণ অনশন কর্মসূচি চালিয়ে যাবেন।

শুক্রবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে চাকরি জাতীয়করণের দাবিতে টানা চতুর্থ দিনের মতো আমরণ অনশন কর্মসূচি পালন করছে বাংলাদেশ স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদ্রাসা শিক্ষক সমিতি। এদিকে এই চার দিনে ১০৬ জন শিক্ষক অসুস্থ হয়ে পড়েছেন বলে দাবি স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদ্রাসা শিক্ষক সমিতির।এদের মধ্যে ৫ জন ঢাকা মেডিক্যালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

শিক্ষক সমিতির সভাপতি রুহুল আমিন চৌধুরী বলেন, ইবতেদায়ি মাদ্রাসায় শিক্ষকতা করে আমরা মানবেতর জীবনযাপন করে আসছি। ন্যায্য দাবি প্রতিষ্ঠায় স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদ্রাসা জাতীয়করণের দাবিতে আমরা এর আগে আট দিন ধরে শীতের মধ্যে অবস্থান ধর্মঘট পালন করে আসলেও সরকারের পক্ষ থেকে সুনির্দিষ্ট কোনো আশ্বাস দেওয়া হয়নি। এ কারণে আজ চারদিন হলো আমরা আমরণ অনশন চালিয়ে যাচ্ছি।

সমিতির মহাসচিব মোখলেছুর রহমান বলেন, গত ১০ নভেম্বর প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন করে প্রধানমন্ত্রী বরারব স্মারকলিপি দেওয়ার পর ৩১ ডিসেম্বর জাতীয়করণের ঘোষণার আলটিমেটাম দিয়ে কর্মসূচি স্থগিত করা হয়। প্রধানমন্ত্রী ৩০ ডিসেম্বর পর্যন্ত জতীয়করণের সিদ্ধান্ত না নেওয়ায় ১ জানুয়ারি থেকে ৮ জানুয়ারি লাগাতার অবস্থান ধর্মঘট পালন করা হয়। কিন্তু দাবি না মানার কারণে ৯ জানুয়ারি থেকে আমরণ অনশন পালন করা হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী ও শিক্ষামন্ত্রী জাতীয়করণের ঘোষণা না দেওয়া পর্যন্ত আমরণ অনশন চলবে।

এর আগে, গত বছরের ২৩ ডিসেম্বর থেকে রাজধানীতে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে বেতন-ভাতায় বৈষম্য নিরসনের দাবিতে আমরণ অনশন করে বাংলাদেশ প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক মহাজোট। প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রীর আশ্বাসে ২৫ ডিসেম্বর তারা অনশন কর্মসূচি শেষ করেন। পরে এমপিওভুক্তির দাবিতে সদ্যবিদায়ী বছরের ৩১ ডিসেম্বর থেকে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে আমরণ অনশন শুরু করেন নন-এমপিও শিক্ষকরা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আশ্বাসে ৫ জানুয়ারি অনশন ভাঙেন তারা।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত