শিরোনাম

সীতাকুণ্ডে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে ৩ জন নিহত

সীতাকুণ্ড (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি  |  ১৩:২৫, আগস্ট ২৩, ২০১৭

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে দুই নির্মাণ শ্রমিক ও এক কৃষক মারা গেছেন বলে খবর পাওয়া গেছে।বুধবার সকাল ৯টার দিকে উপজেলার কুমিরা ও এয়াকুবনগর এলাকায় পৃথক এ দুর্ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শী জানান, বুধবার সকালে সীতাকুণ্ড উপজেলার কুমিরা ঘাটঘর এলকায় কক্সবাজার টুরিস্ট পুলিশের এডিশনাল ডিআইজ মুহাম্মদ মুসলিমের ভবনের ছাদে কাজ করছিল তিন শ্রমিক। এসময় তারা ভবনের ওপর থাকা ১১ হাজার ভোল্টেজ বিদ্যুৎ লাইনে স্পৃষ্ট হয়ে নীচে পড়ে যায়। এতে গুরুতর আহত হয় তিন শ্রমিক। স্থানীয়রা তাদের তাদের উদ্ধার করে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক দুই শ্রমিককে মৃত ঘোষণা করেন।

নিহতরা হলো- সুনামগঞ্জ জেলার দিরাই থানার দক্ষিণ সিবিআরপার গ্রামের মঙ্গল আলীর ছেলে মোহাম্মদ শাহীদ (১৮) ও নোয়াখালী জেলার কোম্পানিগঞ্জ থানার চরপাবর্তী গ্রামের মোহাম্মদ দুলালের ছেলে শীমুল (১৭)। এঘটনায় গুরুতর আহত ফাহিম (১৬) মেডিকেলের ২৬ নং ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন আছে। সে সীতাকুণ্ড উপজেলার কুমিরা রহমতপুর গ্রামের মোহাম্মদ দেলোয়ারের ছেলে।

একই সময় সীতাকুণ্ড পৌরসভার এয়াকুবনগর এলাকায় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মারা গেছেন দুলাল মিয়া (৩৫) নামে এক কৃষক। তিনি জয়পুরহাট জেলার কালাই থানার শালকগাড়ি গ্রামের দিলদার হোসেনের ছেলে। কৃষি জমিতে বন্য শুকুর মারার জন্য দেওয়া বিদ্যুৎ সংযোগের তারে জড়িয়ে তিনি মারা যান।

কক্সবাজার জেলার টুরিস্ট পুলিশের এডিশনাল ডিআইজি মোহাম্মদ মুসলিম জানান, তার ভবনে কাজ করার সময় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে তিন নির্মাণ শ্রমিক আহত হয়েছেন বলে শুনেছেন। তাদের চট্টগ্রাম মেডিকেলে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

সীতাকুণ্ড মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইফতেখার হাসান বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, এডিশনাল ডিআইজির ভবনে কাজ করার সময় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয় তিন নির্মাণ শ্রমিক। তাদের মধ্যে দুইজন মারা যায়। গুরুতর আহত আছে আরও এক শ্রমিক। এছাড়া পৌরসভার এয়াকুবনগরে ধান কাটতে যাওয়া এক কৃষক বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মারা যান।

 

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত