শিরোনাম

আশুলিয়ায় আন্তঃজেলা ট্রাক চালক ইউনিয়ন দখলে নিতে মরিয়া বিএনপি চক্র

জাহাঙ্গীর আলম প্রধান, আশুলিয়া  |  ১৭:২৪, মে ১৬, ২০১৯

ঢাকাস্থ আশুলিয়ার নয়ারহাট ট্রাক টার্মিনালে বাংলাদেশ আন্তঃজিলা ট্রাক চালক ইউনিয়ন এর শাখা কার্যালয় দখলে নিতে উঠেপড়ে লেগেছে আওয়ামী লীগে অনুপ্রবেশকারী বিএনপি নেতাকর্মীরা।

২০০০ সালে শ্রমিকদের ভোটে আওয়ামীলীগ প্যানেল জয়ী হয়, ২০০১ সালে বিএনপি সরকার গঠনেরপর নির্বাচিত কমটিকে মারধর করে তারিয়ে দেয় এবং বাংলাদেশ আন্তজিলা ট্রাক চালক ইউনিয়ন নয়ারহাট শাখাটি বিএনপির লোকজন প্রায় নয়বছর জোরপূর্বক দখলে রাখে। ২০০৯এ আওয়ামী লীগ সরকার গঠনের পর বিএনপির দখলদাররা ২লক্ষ টাকা দেনা রেখে চলে যায়। তখন দেওয়ান হেলাল উদ্দিনকে সভাপতি ও হাসান মিয়াকে সাধারণ সম্পাদক করে ফের কমটি গঠন করা হয়।

তৎকালীন বিএনপি ক্যাডার সালাম, খসরু নোমান,শহিদুল,মতিউর,আবুল হোসেন,মন্টু হঠাৎ আওয়ামীলীগ বনেগিয়ে পুনরায় অপতৎপরতা চালাচ্ছে কমটি দখলে নিতে। এমনি অভিযোগ বর্তমান কমিটি সাধারণ সম্পাদক হাসান মিয়া।

তিনি আরো বলেন, আমাদের কমিটির তিন বছর মেয়াদ থাকা সত্ত্বেও সাধারণ সদস্য আব্দুস সালাম বিএনপি নেতা কর্মীদের সাথে হাত মিলিয়ে বর্তমান কমিটি ব্যানচাল করার চেষ্টা করছে এবং আমাদের শ্রমিকদের বিভিন্ন রকমের হুমকি ধামকি দিয়ে তাদের পক্ষে কাগজে স্বাক্ষরও করিয়ে নিচ্ছে।

জাতীয় শ্রমিকলীগের পাথালিয়া ইউনিয়ন সভাপতি মোঃ মোস্তফা কামাল বলেন, আমি চাই কোনো রকম অভ্যন্তরীণ কোন্দল ছাড়া আওয়ামীলিগের শ্রমিক নেতাকর্মীরা মিলে প্রয়োজনে নির্বাচনের মাধ্যমে কমিটি গঠন করুক।

এ ব্যাপারে আব্দুস সালাম এর নিকট জানতে চাইলে তিনি বলেন, বর্তমান কমিটি দীর্ঘদিন যাবৎ নির্বাচন ছাড়াই চলছে, নেতারা চালকদের কোন উপকারে আসেনা, তাই আমরা সকল চালক শ্রমিকেরা একত্রিত হয়ে নির্বাচনের মাধ্যমে একটি নতুন কমিটি গঠনের জন্য কেন্দ্রে একটি আবেদন করেছি। এটা সকল শ্রমিকের চাওয়া আমি একক ভাবে কিছুই চাচ্ছি না। আমার নামে যে অভিযোগ তা মিথ্যা।

সংশ্লিষ্টরা জানান, এই বিষয়টির সুস্পষ্ট সমাধান না হলে যে কোন মুহুর্তে হতে পারে বড় ধরনের কোন্দল। এ ব্যাপারে নয়ার হাট ট্রাক ও বাস মালিক সমতির সভাপতি, মোঃ সাহাজুদ্দিন জানান, আমি তাদের এ বিষয় নিয়ে বসেছিলাম, বিষয়টি নিয়ে যেন এলাকায় কোন সহিংস ঘটনা না ঘটে এব্যাপারে তাদের সতর্ক করেছি। এবং কেন্দ্রীয় কমিটি যে সিদ্ধান্ত দেয় সেই সিদ্ধান্ত মেনে সংগঠন চালানোর পরামর্শ দিয়েছি। এর পরও যদি তারা সহিংসতা করেন, তাহলে স্থানীয় প্রশাসন বিষয়টি খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা গ্রহণ করবেন বলে আমি মনে করি।

বিষয়টি নিয়ে জানতে চাইলে স্থানীয় পাথালিয়া ইউপির চেয়ারম্যান পারভেজ দেয়ান জানান, আমি তাদেরকে বলেছি নিজেদের ভিতরে কোনো কোন্দল না করে কেন্দ্রীয় নির্দেশনা মেনে চলতে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত