শিরোনাম

কোটচাঁদপুরে ভাঙা রাস্তায় নৌকা চালিয়ে প্রতিবাদ!

প্রিন্ট সংস্করণ॥কোটচাঁদপুর (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি  |  ০৭:৫৪, এপ্রিল ২১, ২০১৯

ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুরে রাস্তায় জমে যাওয়া পানিতে নৌকা চালিয়ে বিদ্রুপাত্মক ভাষায় প্রতিবাদ জানিয়ে এরই মধ্যে সোস্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে একদল প্রতিবাদকারী তরুণ। দেখা যায়, গত দুইদিন আগে সাবদারপুরের এ রাস্তাটিতে সামান্য বৃষ্টির পর হাঁটুপানি জমে গেলে যাতায়তের অযোগ্য হয়ে পড়ে। এতে এলাকার একদল তরুণ-যুবক জমে যাওয়া পানিতে একটি নৌকা এনে চালাতে থাকে। তাদের দাবি, সড়ক কর্তৃপক্ষ এক যুগেও রাস্তাটি সংস্কারে কোনো পদক্ষেপ নেয়নি। যে কারণে শেষ পযর্ন্ত তাদের এই প্রতিবাদ।এলাকার ভুক্তভোগীরা জানায়, কোটচাঁদপুর উপজেলার সাবদারপুর বাজার সংলঘ্ন এ রাস্তাটি প্রায় এক দশক ধরে সংস্কার হয়নি। যে কারণে রাস্তায় বর্ষায় সামান্য পানিতেই হাঁটুপানি জমে চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়ে। উপজেলার সাবদারপুর বাজার ও এলাকার অন্তত ৩০টি গ্রামের লোকজনকে কোটচাঁদপুর ছাড়াও লক্ষ্মীপুর ও খালিশপুর যাওয়ার ক্ষেত্রে এ রাস্তাটি ব্যবহার করতে হয়। এলাবাসীর ভাষ্যমতে, দীর্ঘদিন থেকে জনগুরুত্বপূর্ণ এই সড়কটি মেরামতের দাবি জানিয়ে এলেও তাতে সাড়া দেয়নি ঝিনাইদহ সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর। এ নিয়ে পত্রপত্রিকায় অনেক লেখালেখি হয়েছে। কিন্তু কোনো ফল হয়নি। তাই এবারের বর্ষা শুরুর আগেই সামান্য বৃষ্টিতে পানি জমে গেলে রাস্তায় নৌকা এনে চালিয়ে বিদ্রুপাত্মক অভিনব প্রতিবাদ জানিয়েছে একদল তরুণ। এতে ওই এলাকার মানুষ একাত্মতা প্রকাশ করে কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে নৌকা চালিয়ে রাস্তা মেরামতের দাবি জানিয়েছেন। বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। গত সোমবার বিকালে বৃষ্টির পর ভাঙা রাস্তায় জমে যাওয়া পানিতে এলাকার স্কুল ও কলেজগামী যুবকরা বিশাল আকারের একটি নৌকা এনে চালিয়ে অভিনব প্রতিবাদ জানায়। নৌকা চালানোর এই দৃশ্যটি ফেসবুকে ভাইরাল হয়। এ ব্যাপারে সাফদারপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি নওশের আলী রাস্তায় নৌকা চালানোর কথা স্বীকার করে বলেন, খালিশপুর বাজার থেকে লক্ষ্মীপুর পর্যন্ত রাস্তাটি ভেঙে একাকার হয়ে গেছে। রাস্তায় এখন খালি পায়েও চলা যায় না। গত ৫ বছর ধরে গুরুত্বপূর্ণ এই সড়কটি মেরামত হয় না। আমরা বহুবার ঝিনাইদহ সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরকে বলেছি। তারা আমাদের অভিযোগ আমলে নেয় না। তাই এলাকার কিছু তরুণ যুবক প্রতিবাদস্বরূপ ভাঙা রাস্তায় জমে থাকা পানিতে নৌকা চালিয়ে প্রতিবাদ করেছে। এলাকার সাধারণ মানুষ ক্ষোভ প্রকাশ করে আরও বলেন, এ রাস্তাটির দুর্দশার কারণে প্রায় ৩০ গ্রামের মানুষ চরম দুর্ভোগের মধ্যে রয়েছে। বিষয়টি নিয়ে ঝিনাইদহ সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের কালীগঞ্জ সার্কেলের উপ-সহকারী প্রকৌশলী আবদার রহমান বলেন, কোটচাঁপুরের চাঁদপাড়া, তালিনা, লক্ষ্মীপুর, সাবদারপুর হয়ে খালিশপুর বাজার পর্যন্ত মোট ৩৯ কিলোমিটার রাস্তা রয়েছে। গত বছরও পিএমপি প্রকল্পের মাধ্যমে রাস্তাটি মেরামতের জন্য প্রস্তাব পাঠানো হয়। কিন্তু হেড অফিস অনুমোদন দেয় নি। তিনি রাস্তাটি চলাচলের অযোগ্য স্বীকার করে বলেন, আশা করা যায় আগামী জুনের পর গোটা রাস্তার কাজ শুরু করা হবে। তিনি বলেন, ইতোমধ্যে এডিপি থেকে ১০ কিলোমিটার রাস্তা করার অনুমোদন এসেছে।
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত