শিরোনাম

কমিউনিটি ক্লিনিকের অ্যাম্বুলেন্স অকেজো

প্রিন্ট সংস্করণ॥ওয়াজেদ আলী, বদলগাছী (নওগাঁ)  |  ০২:১৬, এপ্রিল ১৬, ২০১৯

 নওগাঁর বদলগাছী উপজেলার প্র্রতি ইউনিয়নের কমিউনিটি ক্লিনিকে রোগী পবিহনের অ্যাম্বুলেন্সগুলো দীর্ঘদিন থেকে অকেজো অবস্থায় পড়ে থাকায় জনসাধারণের কোনো উপকারে আসছে না। বিশ্ব ব্যাংকের আর্থিক সহায়তায় দ্বিতীয় লোকাল গভর্ন্যান্স সাপোর্ট প্র্রজেক্টের (এলজিএসপি-২) তথ্য সূত্রে জানা যায়, বিগত ২০১৫-১৬ অর্থবছরে এলজিএসপি-২ প্র্রকল্পের আওতায় দ্বিতীয় কিস্তির বরাদ্দকৃত অর্থ হতে উপজেলার মোট আটটি ইউনিয়নের প্র্রত্যেক ইউনিয়ন কমিউনিটি ক্লিনিকে একটি করে মিনি ভ্রাম্যমাণ অ্যাম্বুলেন্স নির্মাণের জন্য প্র্রকল্প দাখিল করা হয়। এ প্র্রকল্পের প্র্রতিটি অ্যাম্বুলেন্স নির্মাণে ব্যয় ধরা হয়েছিল দুই লাখ ৫০ হাজার টাকা। উন্নতমানের কারিগরি প্র্রতিষ্ঠান দ্বারা অ্যাম্বুলেন্স তৈরির কথা থাকলেও বদলগাছী উপজেলার আটটি ইউনিয়নের চেয়ারম্যানরা প্র্রতিটি ব্যাটারিচালিত অ্যাম্বুলেন্স এক লাখ ৫৫ হাজার টাকায় নির্মাণের জন্য নির্মাতা প্র্রতিষ্ঠান বর্ষাইল মোড়ের সরদার পরিবহন সার্ভিসের প্র্রোপ্র্রাইটর বেলাল হোসেনকে অর্ডার দেন। এরপর ওই প্র্রতিষ্ঠানের মালিক বেলাল হোসেন নিম্নমানের অ্যাম্বুলেন্স তৈরি করে প্র্রতিটি চেয়ারম্যানের নিকট হস্তান্তর করেন। অ্যাম্বুলেন্সগুলো ছয় মাস পর থেকে অদ্যাবধি অকেজো হয়ে প্রড়ে রয়েছে বলে এলাকাবাসী জানায়। ফলে অ্যাম্বুলেন্সগুলো এলাকার জনগণের কোনো উপকারেই আসেনি। উল্লিখিত প্র্রতিষ্ঠানের মালিক বেলাল হোসেনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, চেয়ারম্যানরা এক লাখ ৫৫ হাজার টাকার বিনিময়ে যে মানের অ্যাম্বুলেন্স তৈরির জন্য বলেছিল, তেমনিভাবে নির্মাণ করে তাদের নিকট হস্তান্তর করা হয়। বদলগাছী সদর ইউপি চেয়ারম্যান আ. সালাম মণ্ডল, পাহাড়পুুর ইউপ্রি চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান কিশোর, মথুরাপুর ইউপি চেয়ারম্যান আ. রহমান অন্যান্য চেয়ারম্যান বলেন, বরাদ্দকৃত অর্থের বিপরীতে অ্যাম্বুলেন্সগুলো নির্মাণ করা হয়েছিল। কিছুদিন চলার পর ব্যাটারি নষ্ট হওয়ায় অ্যাম্বুলেন্স গুলো অকেজো অবস্থায় রয়েছে। এ বিষয়ে বদলগাছী উপ্রজেলা নির্বাহী অফিসার মাসুম আলী বেগের সঙ্গে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে তিনি ফোন ধরেননি।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত