শিরোনাম

৯৯৯ এ ফোন করে বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পেল মুক্তা

মো. সানোয়ার হোসেন, মির্জাপুর (টাঙ্গাইল)  |  ১৭:৪৮, এপ্রিল ১৫, ২০১৯

 

৯৯৯ এ ফোন করে বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পেল স্কুলছাত্রী মুক্তা। বাংলাদেশের জরুরী হেল্প লাইন নম্বর ৯৯৯ এর মাধ্যমে মির্জাপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আবদুল মালেক ও ইউপি চেয়ারম্যানকে মির্জাপুরে বাল্যবিয়ে হচ্ছে এমন সংবাদটি পৌ‍ঁছে দেয়া হয়। সংবাদ পেয়েই ঘটনাস্থলে গিয়ে মির্জাপুর উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) মো. আজগর হোসেন বাল্যবিয়ে বন্ধ করেন। সোমবার (১৫ এপ্রিল) ঘটনাটি উপজেলার বাঁশতৈল ইউনিয়নের বাঁশতৈল গ্রামের মো. মতিয়ার রহমানের বাড়ীতে ঘটেছে।

সূত্র মতে, উপজেলার বাঁশতৈল গ্রামের মো. মতিয়ার রহমানের মেয়ে মুক্তা (১৫) ও পাশ্ববর্তী সখিপুর উপজেলার এক ব্যবসায়ীর ছেলের সাথে বিয়ের দিন নির্ধারিত করা হয়। বিয়ের আয়োজনও সম্পন্ন করা হয়েছিল। তবে ৯৯৯ ‍এর সংবাদ পেয়ে উপজেলা সহকারি কমিশনার ভূমি মো. আজগর হোসেন ঘটনাস্থলে গিয়ে বাল্যবিয়ে বন্ধ করেন।

এ ব্যাপারে মেয়ের মা একটি মুচলেকা দেন, তাতে উল্লেখ রয়েছে আগামী তিন বছরের মধ্যে অর্থাৎ ১৮ বছর হওয়ার আগে তার মেয়েকে তিনি বিয়ে দেবেন না। বর্তমানে মেয়েটি বাঁশতৈল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আতিকুর রহমান মিল্টনের হেফাজতে রয়েছেন বলেও জানা গেছে।

বিয়ে বন্ধ করার পর উপস্থিত এলাকাবাসীকে বাল্যবিয়ের কুফল সম্পর্কে ধারণা দেন এবং বাল্য বিয়ে প্রতিরোধে সকলের সহযোগিতা কামনা করেন উপজেলা সহকারি কমিশনার ভূমি মো. আজগর হোসেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত