শিরোনাম

আজ পবিত্র আশুরা

প্রিন্ট সংস্করণ॥ নিজস্ব প্রতিবেদক  |  ০০:৩৩, অক্টোবর ০১, ২০১৭

আজ পবিত্র আশুরা। ইসলামিক পঞ্জিকা অনুযায়ী মহররমের দশম দিনকে পবিত্র আশুরা বলা হয়। এটি ইসলাম ধর্ম অনুসারীদের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ দিন। এই পবিত্র আশুরার দিনেই পৃথিবীতে নানা স্মরণীয় ও শোকের ঘটনা ঘটেছে। যার কারণে মুসলিম ইতিহাসে এই দিনটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। মুসলিম বিশ্বে ত্যাগ ও শোকের প্রতীকের পাশাপাশি বিশেষ পবিত্র দিবস হিসেবে পালন করা হয়। বাংলাদেশেও যথাযোগ্য মর্যাদায় পবিত্র আশুরা পালিত হবে। প্রায় ১ হাজার ৩৩৫ বছর আগে এই দিনে মহানবী হজরত মুহাম্মদ (সা.)-এর দৌহিত্র হজরত ইমাম হোসেইন (রা.) কারবালা প্রান্তরে শহীদ হন। ১০ মহরম হজরত ইমাম হোসেইন (রা.) এবং তার পরিবার ও অনুসারীরা সত্য ও ন্যায়ের যুদ্ধ করতে গিয়ে ফোরাত নদের তীরে কারবালা প্রান্তরে ইয়াজিদ বাহিনীর হাতে শহীদ হন। এ ঘটনা স্মরণ করে বিশ্ব মুসলিম সম্প্রদায় যথাযোগ্য মর্যাদায় দিনটি পালন করে থাকে। শান্তি ও সম্প্রীতির ধর্ম ইসলামের মহান আদর্শকে সমুন্নত রাখতে তাদের এই আত্মত্যাগ মানবতার ইতিহাসে সমুজ্জ্বল হয়ে রয়েছে। কারবালার এই শোকাবহ ঘটনা ও পবিত্র আশুরার শাশ্বত বাণী সবাইকে অন্যায় ও অত্যাচারের বিরুদ্ধে সোচ্চার হতে এবং সত্য ও সুন্দরের পথে চলতে প্রেরণা জোগায়।
এ ছাড়া ১০ মহররম আশুরার দিন মহান আল্লাহ তায়ালা পৃথিবী সৃষ্টি করেছেন এবং এদিন কেয়ামত ঘটাবেন। এর বাইরে এদিন হজরত ইব্রাহিম (আ.) নমরুদের অগ্নিকু- থেকে রক্ষা পেয়েছেন, হজরত ইউনুস (আ.) মাছের পেট থেকে মুক্তি পান। এ রকম অসংখ্য ঘটনায় তাৎপর্যম-িত এ দিনটি মুসলিম সম্প্রদায় ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের সঙ্গে পালন করে থাকে। পবিত্র আশুরায় ষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া পৃথক বাণী দিয়েছেন।
এদিন সরকারি ছুটি। দিবসটি উপলক্ষে বিভিন্ন জাতীয় দৈনিক বিশেষ ক্রোড়পত্র প্রকাশ করবে। বাংলাদেশ বেতার ও বাংলাদেশ টেলিভিশনসহ বিভিন্ন বেসরকারি রেডিও-টিভি চ্যানেলও এই দিনের তাৎপর্য নিয়ে বিশেষ অনুষ্ঠান সম্প্রচার করবে। সংবাদপত্রগুলোর অফিস বন্ধ থাকায় সোমবার দেশে কোন সংবাদপত্র প্রকাশিত হবে না। তবে সংবাদপত্রগুলোর অনলাইন সংস্করন যথারীতি চালু থাকবে।
এ উপলক্ষে রাজধানী ঢাকাসহ দেশব্যাপী বিভিন্ন ধর্মীয় সংগঠন নানা কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। প্রতীকী শোক পালন করতে প্রতি বছরই তাজিয়া মিছিল বের করে ইমামবাড়াগুলো। এবারও পুরান ঢাকায় হোসনি দালান থেকে তাজিয়া মিছিল বের হবে। এছাড়া মোহাম্মদপুর, মিরপুর, বকশিবাজার, লালবাগ, পল্টন, মগবাজার থেকেও আশুরার মিছিল বের হয়। মোগল আমল থেকেই এই অঞ্চলে তাজিয়া মিছিলের প্রচলন হয়।
প্রতি বছরের মতো এবারও তাজিয়া মিছিলে থাকবে ইমাম হোসেনের প্রতীকী কবর। চারদিকে কাচ আর উপরে প্লাস্টিকের শেড দিয়ে ঘেরা থাকবে প্রতীকী কবরটি। তাজিয়ার নিচে রয়েছে ৬ টি চাকা।
এদিকে, সুষ্ঠু, সুন্দর এবং নির্বিঘ্নে পবিত্র আশুরা পালনে সব ধরনের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র সাঈদ খোকন। গতকাল শনিবার পুরান ঢাকার হোসেনী দালান পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা জানান। ঢাকা শিয়া সম্প্রদায়পন্থী মুসলিমরা এই হোসেনী দালান ঘিরে পবিত্র আশুরা পালন করে থাকেন। মেয়র বলেন, সবাই যেন নির্বিঘেœ আশুরা পালন করতে পারেন, সে জন্য সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে সব ধরনের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত