শিরোনাম:
amar-sangbad-logo বৃষ্টির কারণে দ্বিতীয় ওয়ানডে ম্যাচ পরিত্যক্ত        amar-sangbad-logo ‘অপারেশন টোয়াইলাইট’ সমাপ্ত ঘোষণা        amar-sangbad-logo দক্ষিণ আফ্রিকায় গুলি করে বাংলাদেশিকে হত্যা         amar-sangbad-logo বাংলাদেশ-যুক্তরাজ্য ‘কৌশলগত আলোচনায়’ সমঝোতা চুক্তি সই        amar-sangbad-logo ১০ হাজার ১৪৭ কোটি টাকা ব্যয়ে ১২ প্রকল্পের অনুমোদন        amar-sangbad-logo শিক্ষক লাঞ্ছনা : মামলার মুখে নারায়ণগঞ্জের এমপি সেলিম ওসমান        amar-sangbad-logo চট্টগ্রামে আরও পাঁচ দিনের রিমান্ডে জঙ্গি দম্পতি        amar-sangbad-logo ভুয়া প্রশ্নপত্র ফাঁসের অভিযোগ কলেজ প্রিন্সিপাল-শিক্ষকরাও জড়িত        amar-sangbad-logo প্রশ্নপত্র ফাঁস হচ্ছে ফেসবুক, ইমো, হোয়াটসএ্যাপে        amar-sangbad-logo ‘একুশ’ যাবে কার জিম্মায়, সে আদেশ বুধবার         amar-sangbad-logo প্রতিবন্ধিতা ও দুর্যোগ ঝুঁকি ব্যবস্থাপনা বিষয়ক ২য় আন্তর্জাতিক সম্মেলন ডিসেম্বরে       

মালয়েশিয়ায় শ্রমিক পাঠানো বন্ধ করেছে মিয়ানমার

অনলাইন ডেস্ক | ১৩:০৬, ডিসেম্বর ০৮, ২০১৬

মালয়েশিয়ায় শ্রমিক পাঠানোর উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে মিয়ানমার। রোহিঙ্গাদের ওপর দমন-নিপীড়নের তীব্র নিন্দা জানানোয় এই পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে মিয়ানমার সরকার।

দেশটির অভিবাসন মন্ত্রণালয় জানায়, মালয়েশিয়ায় কাজ করতে যাওয়ার জন্য নতুন লাইসেন্স দেয়া স্থগিত করা হয়েছে। ৬ ডিসেম্বর থেকে মালয়েশিয়ায় শ্রমিক পাঠানো সাময়িকভাবে বন্ধ করা হয়েছে।

মিয়ানমারের হাজার হাজার নাগরিক মালয়েশিয়ায় শ্রমিক হিসেবে কর্মরত রয়েছে। বিভিন্ন কারখানায় স্বল্প বেতনের মজুরিতে কাজ করেন তারা।
মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে দীর্ঘদিন ধরে মুসলিম সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর উপর নির্যাতন চলছে।

৯ অক্টোবর দেশটির সীমান্তবর্তী পুলিশ ফাঁড়িতে সন্ত্রাসী হামলায় ৯ জন পুলিশ নিহত হয়। এরপর থেকেই মিয়ানমারের সেনাবাহিনী সন্ত্রাস নির্মূলের নামে রাখাইন রাজ্যে অভিযান পরিচালনা করছে। চলমান ওই অভিযানে রোহিঙ্গাদের ঘরবাড়ি পুড়িয়ে দেয়ার পাশাপাশি নির্বিচারে রোহিঙ্গা নারী, পুরুষ এবং শিশুকে হত্যা করা হচ্ছে।

মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাক গত রবিবার রোহিঙ্গা গণহত্যায় অনুমোদন দেয়ার জন্য মিয়ানমারের নেত্রী অং সান সুচির তীব্র সমালোচনা করেন। এরপরই মিয়ানমার কর্তৃপক্ষ মালয়েশিয়ায় তাদের শ্রমিক পাঠানো নিষিদ্ধ করে।

রাজাক বলেছিলেন, আমরা অং সান সুচিকে বলতে চাই, যথেষ্ট হয়েছে। আমরা অবশ্যই ইসলাম এবং মুসলমানদের রক্ষা করবো। এধরনের গণহত্যা বিশ্ববাসী বসে বসে দেখতে পারে না।



 

 

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
close-icon