শিরোনাম

ঐক্যফ্রন্টের ৭ দফা দাবি অযৌক্তিক : ওবায়দুল কাদের

নিজস্ব প্রতিবেদক  |  ১৮:৪৪, অক্টোবর ২২, ২০১৮

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সড়ক পরিবহন সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ঐক্যফ্রন্টের সাত দফা দাবি অযৌক্তিক, অবাস্তব ও অপ্রয়োজনীয়। এবং তফসিল ঘোষণার আগে সংলাপের দাবি অযৌক্তিক।

দেশে এখন এমন কোন পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়নি যে সংলাপে বসতে হবে। নভেম্বর মাসের প্রথম সপ্তাহে নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা হয়ে যাবে। এটা নির্বাচন কমিশনের মোটামুটি সিদ্ধান্ত। সংবিধান অনুযায়ীই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। তাদের দাবি মানার কোনও যৌক্তিকতা নেই।

সোমবার (২২অক্টোবর) রাজধানীর কেআইবি অডিটোরিয়ামে জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস-২০১৮ উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, আমাদের রাস্তায় যানজট-জলজট-জনজট এই তিনটি যখন মিলে মিশে একাকার হয়ে যায়, তখন সেই দৃশ্যপটটা অস্বাভাবিক।
কাজেই আমাকে যখন কেউ সফল মন্ত্রী বলেন, আমার প্রশংসা করতে চায় আমি মনে মনে সত্যি বেদনার অঙ্কুরে বিদ্ধ হই, মনে মনে একটু কষ্ট পাই, সঙ্গে লজ্জাও পাই। কারণ আমার চোখের সামনে যখন রাস্তায় বিশাল একটা যানজট দেখি এবং সেই যানজটের মধ্যে আটকে আছে নারী, শিশু ও মুমূর্ষু রোগী। যানজটের কারণে অনেকের হয়তো জীবনের শেষ নিশ্বাস রাস্তায় ত্যাগ করতে হয়। এসব কবে বন্ধ করতে পারব? এটাই আমার চিন্তা। প্রতিদিন দেখা যায় সামান্য একটা গাড়ি অ্যাকসিডেন্ট হয়েছে, সেখানে চালকের দোষ নাকি পথচারীর দোষ সেটা পরে দেখা গেলো, কিন্তু হাজার হাজার গাড়ি লম্বা যানজটের সারি। পথে পথে মানুষের কি যে অবর্ণনীয় কষ্ট।

সড়কে এখনো মৃত্যুর কাফেলা থামছে না, অনিয়মের কাফেলা থামছে না, এখনো বিশৃঙ্খলার কাফেলা থামছে না। এখনো অনিয়মের কাফেলা চলমান। এখানে আমাদের দগদগে ব্যর্থতা। আমি মন্ত্রী, আমি এর দায় এড়াতে পারি না। সড়কে-মহাসড়কে থ্রি হুইলার এখনও চলছে। আমরা কন্ট্রোল করতে পারিনি। আমরা ২২টি সড়কে এসব বন্ধের ঘোষণা করার পরও কন্ট্রোল করতে পারিনি। পুরোপুরি সাফল্যের কৃতিত্বের দাবিদারও আমি নই। আমাদের এতো কিছু করার পরও এখনও অনেক দূর পথ পাড়ি দিতে হবে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, সবার প্রচেষ্টায় একটা চিত্র পাল্টে গেছে। আগে যেখানে একজনও হেলমেট পড়ত না এখন সেখানে মোটরসাইকেলের দু’জনই হেলমেট পড়ছে। আমার মাঝে মাঝে ইচ্ছে হয় রাস্তায় দাঁড়িয়ে প্রত্যেককে একটা করে গোলাপ দিয়ে শুভেচ্ছা জানাই।

আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, আমরা যারা রাজনীতি করি আমরা সচেতন না হলে দেশ সচেতন হবে না। দেশকে বদলাতে হলে, সড়ক পরিবহনের যে বিশৃঙ্খলার ছবি সেটা পরিবর্তন করতে হলে বা বদলাতে হলে আমাদের বদলাতে হবে আগে। আমরা না বদলালে দেশ বদলাবে না। আমরা নিজেরা আইন করি আমরাই আইন ভঙ্গ করি।

সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব মো নজরুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন-নৌ পরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান, বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী এ কে এম শাহজাহান কামাল, স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী মো. মশিউর রহমান রাঙ্গাঁ, সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদী স্থায়ী কমিটির সভাপতি মো. একাব্বর হোসেন, সড়ক ও মহাসড়ক বিভাগের প্রধান প্রকৌশলী ইকরামুল হাসান, নিরাপদ সড়ক চাই এর চেয়ারম্যান ইলিয়াস কাঞ্চন, সংসদ সদস্য মনিরুল ইসলাম প্রমুখ।

 

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত