শিরোনাম

শেখ হাসিনার ৩১ ফুট লম্বা ছবি হাতে আঁকলেন সুভাষ দাস

মোঃ শাহ আলম কালীগঞ্জ, ঝিনাইদহ  |  ১৭:৩৪, অক্টোবর ১১, ২০১৮

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার লম্বা ৩১ ফুট আর চওড়া ২৩ ফুট সাইজের ছবি হাতে এঁকে আলোড়ন সৃষ্টি করেছে আর্ট শিল্পী সুভাষ দাস। এর আগে তিনি জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৩২ ফুট লম্বা একটি ছবি হাতে এঁকে পত্রিকার শিরোনাম হয়েছিলেন। সুভাষ দাসের দাবি বাংলাদেশে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এত বড়ছবি কেউ হাতে আঁকেনি। শেখ হাসিনার উন্নয়ন ও তার কাজ কর্মের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে তিনি তাকে উৎসর্গ করেই এই ছবি একেছেন। সম্প্রতি শেখ হাসিনার ৭২তম জন্ম দিনে তিনি ঝিনাইদহ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে জনগনের দেখার উদ্দেশ্য এই ছবিটি প্রদর্শনীর ব্যবস্থা করেন। সুভাষ দাস ঝিনাইদহ জেলার কালীগঞ্জ পৌরসভার আড়পাড়া- গ্রামের মৃত সন্তোষ দাসের ছেলে।

সুভাষ দাস জানান, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার কন্যা সফল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে তিনি মন থেকে ভাল বাসেন। তাদের উন্নয়ন দেখে তিনি অনুপ্রেণিত। তিনি মনে মনে ঠিক করেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭২তম জন্মদিনে তাকে উৎসর্গ করে নিজে হাতে একটি ছবি আকঁবেন। প্রায় ২০ দিন চেষ্টা করে ৩১ ফুট লম্বা ও ২৩ ফুট চওড়া ক্যানভাসে তিনি শেখ হাসিনার ছবি আকেন। এই ছবিটি আকতে তার প্রায় ২০ হাজার টাকার কাপড়, কাঠ, রং লেগেছে। সম্পুর্ণ ব্যক্তিগত উদ্যোগেই তিনি এটি একেছেন।

সুভাষ দাস আরও জানান, ছবিটি ঝিনাইদহ পৌর মেয়রের সার্বিক সহযোগিতায় ঝিনাইদহ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সামনে সকলের দেখার জন্য উন্মুক্ত করি। যারা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে ভাল বাসেন তারা অনেকে ছবিটি দেখতে এসেছিলেন অনেকে ছবিটির সাথে ছবি তুলেছেন।

পেশায় আর্ট শিল্পী সুভাষ দাস জানান, তার বয়স প্রায় ৫৪বছর। ৪০ বছর ধরে তিনি ছবি আকছেন। কালীগঞ্জ শহরের কোটচাদপুর সড়কের শিল্পী আর্ট নামে একটি দোকান রয়েছে তার। ছোট ঘরে তিনি এর আগে জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৩২ ফুট লম্বা একটি ছবি একে ছিলেন ২০১৬ সালে। সেই ছবিটি নিয়ে সেই সময় বিটিভি, একাত্তার টিভি প্রচার করেছিলেন। বিভিন্ন জাতীয় পত্রিকাও স্থান পেয়েছিলেন তার ছবি। তিনি দাবি করেন হয়তো অনেকে ডিজিটাল ব্যানারে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অনেক বড় সাইজের ছবি করেছেন তবে হাতে একে এত বড় ছবি কেউ করেন নি।

কেন এমন ছবি আকলেন এমন প্রশ্নের জবাবে, সুভাষ দাস জানান, মন থেকে ভাল বেসেই একেছি। স্বপ্ন আছে বাংলাদেশের জন্য যারা কাজ করেছেন। যারা জাতীর কাছে সম্মানীত ব্যাক্তি তাদের সকলের ছবি আকবেন এবং একটি ছবি উৎসব করবেন। সুভাষ দাস একজন আর্ট শিল্পী নন, তিনি ইতিমধ্যে জাতির জনক শেখ মুুজিবুর রহমানকে নিয়ে লিখেছেন ৪টি গান এবং শেখ হাসিনার উন্নয়ন নিয়ে ২টি গান লিখে নিজের কন্ঠে ভারত থেকে রেকোডিং করে বাংলাদেশের বিভিন্ন টিভি চ্যানেলে প্রচার করেছেন।

সুভাষ দাসের ছেলে সৈকত জানান, বাবা ছবি আকার কাজই করেন। এছাড়াও নিজ বাড়িতে একটি আর্ট স্কুল পরিচালন করেন। শিশুদের চিত্রাংকন শেখান। অনেক গরীব মেধাবীদের ফ্রি আর্ট শেখান। সৈকত বলেন বাবার স্বপ্ন, দেশের সকল গুনিজনদের ছবি একে একদিন ছবির উৎসব করবেন। এর জন্য সরকারি ও বেসরকারি সহযোগিতার প্রয়োজন।

কালীগঞ্জ পৌরসভার ভারপ্রাপ্ত মেয়র ও পৌর আওয়ামী লীগের সাংগঠনি সম্পাদক আশরাফুল আলম আশরাফ জানান, সুভাষ দাস কালীগঞ্জের সন্তান। তিনি কালীগঞ্জের গর্ব,দীর্ঘদিন ধরে তিনি ছবি আকা পেশায় আছেন। এর আগে তিনি বঙ্গবন্ধুর ছবি একেছিলেন। অনেক গুনিজনের মুরালও তিনি তৈরি করেছেন। শেখ হাসিনার ৩১ ফুট লম্বা সাইজের ছবি হাতে আকার জন্য তিনি তাকে ধন্যবাদ জানান।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত