শিরোনাম

নির্বাচনকালীন সরকার অক্টোবরে: কাদের

নিজস্ব প্রতিবেদক  |  ১৩:০৫, জুন ২০, ২০১৮

চলতি বছরের অক্টোবরের দিকে নির্বাচনকালীন সরকার গঠিত হতে পারে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। বুধবার (২০ জুন) সচিবালয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ে কর্মকর্তাদের সঙ্গে ঈদ পরবর্তী পর্যালোচনা সভা শেষে সাংবাদিকদের তিনি একথা জানান।

ওবায়দুল কাদের বলেন, নির্বাচনের শিডিউল ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গে নির্বাচনকালীন সরকার দায়িত্ব গ্রহণ করবে। নির্বাচনকালীন সরকার বলতে নতুন কোনো সরকার গঠিত হবে না। বর্তমান সরকারই নির্বাচনকালীন সরকারের দায়িত্ব নেবে। তবে নির্বাচনকালীন সরকারের আকার এতো ঢাউস হবে না। মন্ত্রিপরিষদের আকার ছোট হবে। তবে এ বিষয়টি পুরোপুরি প্রধানমন্ত্রীর এখতিয়ারে। চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত তিনি নেবেন।

বিএনপি নির্বাচনে না আসলে নির্বাচন এখতরফা হবে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, কোনো একতরফা নির্বাচন হবে না। অনেক বেশি দল নির্বাচনে আসবে। বিএনপি না আসলে নির্বাচন প্রশ্নবিদ্ধ হবে কেন? নির্বাচন কমিশন নির্বাচন পরিচালনা করবে। সেখানে যদি সংবিধান লঙ্ঘন হয় তখনই নির্বাচন প্রশ্নবিদ্ধ হবে। বিএনপি অন্ধ হলে কি প্রলয় বন্ধ হবে?

বিএনপির উদ্দেশে প্রশ্ন রেখে কাদের বলেন, জাতীয় নির্বাচনকে তারা ভয় পাচ্ছেন কেন? সিটি নির্বাচনকে তো ভয় পাচ্ছেন না।বিএনপির আন্দোলনের ঘোষণার বিষয়ে তিনি বলেন, দেশে কোনো আন্দোলন হবে না। জনগণ সাড়া দেবে না। তাদেরও দলীয় কোনো প্রস্তুতি নেই।আর আন্দোলন করে কোনও কিছু করার শক্তি-সামর্থ্য বিএনপির নাই।’

স্থানীয় নির্বাচনে সরকারের প্রভাব থাকলেও থাকতে পারে, তবে জাতীয় নির্বাচনে তো সরকারের কোনও প্রভাবই থাকবে না। তারপরেও নির্বাচনে অংশ নিতে তাদের কেন সংশয় সেটা তাদেরকেই জিজ্ঞাসা করুন। 

প্রসঙ্গত, জাতীয় সংসদে ২০১১ সালের ৩০ জুন গৃহীত হয় সংবিধানের পঞ্চদশ সংশোধনী। এ সংশোধনীতে নির্বচানের সময়ে তত্ত্বাবধায়ক সরকার গঠনের যে ব্যবস্থা ছিল, তা বিলোপ করে রাজনৈতিক সরকারের অধীনে নির্বাচন অনুষ্ঠানের ব্যবস্থা রাখা হয়। সে অনুযায়ী দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনকালীন বহাল ছিল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন রাজনৈতিক সরকার। তবে ওই সরকারকে একটি সর্বদলীয় সরকারের রূপ দেয়া হয়েছিল জাতীয় পার্টি ও অন্যান্য আরও দু-একটি রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধিদের অন্তর্ভুক্ত করে।

আওয়ামী লীগ সরকার তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা বাতিল করলেও ১৯৯৫-৯৬ সালে তৎকালীন বিএনপি সরকারের আমলে এক বিরতিহীন হরতাল ও দুর্বার আন্দোলনের মাধ্যমে জাতীয় সংসদ নির্বাচনের সময়ে দল-নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবি আদায় করে নিয়েছিল। তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা বিলোপ করার বিরুদ্ধে আন্দোলন করে আসছে বিএনপি। অতি-সম্প্রতি তারা নির্বাচনকালীন একটি সহায়ক সরকার গঠনের কথা বলা শুরু করেছে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত