শিরোনাম

নতুন ইসি কি নিরপেক্ষ হবে

১৬:২১, জানুয়ারি ১২, ২০১৭

নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন গঠনে দেশের ২৩টি রাজনৈতিক দল সংবিধান অনুযায়ী আইনের প্রণয়নের দাবি জানিয়েছেন। তবে সময়ের সল্পতার কারণে নতুন নির্বাচন কমিশন আইন ছাড়া নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে। ফলে নির্বাচন কমিশন স্বাধীন ও নিরপেক্ষ হবে কি না এনিয়ে জনমনে নতুন শঙ্কার জন্ম দিয়েছে।

গত সার্চ কমিটির মাধ্যমে রকিব কমিশন জাতীয় ও স্থানীয় সরকারের নির্বাচনে নিজেদের নিরপেক্ষতা নিয়ে বেশ সমালোচনার মুখে পড়েছিল। নির্বাচনে সহিংসতা, ভোট কারচুপি, কেন্দ্র দখল ও পুলিশের গুলি এবং সংঘর্ষে বেশ কিছু মানুষের প্রাণহানির ঘটনা নির্বাচন কমিশনকে প্রশ্নবিদ্ধ করেছিল। আবারও সার্চ হওয়া কারণে শঙ্কা সৃষ্টি করছে। অনেকের মনে প্রশ্ন উঠেছে সার্চ কমিশন মাধ্যমে নতুন ইসি শতভাগ স্বাধীন ও নিরপেক্ষ ভাবে গঠিত হবে? আবার সার্চ কমিটির মাধ্যমে ইসি নিয়োগ হলে কেবল কাগজে-কলমে হবে এমন দাবি করছে বিশ্লেষকরা।

গত ১৮ ডিসেম্বর থেকে নির্বাচন কমিশন গঠনে রাষ্ট্রপতির সাথে সংলাপ শুরু হয় এবং ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সংলাপের মাধ্যমে এ সংলাপ শেষ হয়। ইতিমধ্যে দেশের ২৩টি রাজনৈতিক দল এপর্যন্ত ১৭৭টি প্রস্তাব দিয়েছে দিয়েছে। সকল দলে নির্বাচন কমিশন গঠনে আইন প্রণয়নের প্রস্তাব দিয়েছে। সাচ কমিটির মাধ্যমে কেমন হবে ইসি? এমন প্রশ্নের জবাবে সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) সম্পাদক বদিউল আলম মজুদার আগামী নির্বাচন কেমন হবে এটি নির্ধারণ করবে নতুন ইসি। আর নতুন ইসি নিরপক্ষে কি না এটা নির্ধারণ করবে প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, রাষ্ট্রপতি সংলাপের মাধ্যমে রকীবউদ্দিন কমিশন এসেছিলো।

কিন্তু রকীবউদ্দিন কমিশন নিয়ে অনেক বির্তক রয়েছে। নিজেদের নিরপেক্ষতার প্রমাণ দিতে পারেনি। একারণে একথা বলতেই পারি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চাইলে ইসি হবে নিরপেক্ষ। গতকাল বুধবার বিকালে বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতির দেড় ঘণ্টার সংলাপে এই প্রস্তাব রাখে আওয়ামী লীগ। আওয়ামী লীগ নেতারা জানান, এই আলোচনায় তারা মোট চারটি প্রস্তাব দিয়েছে।

এর মধ্যে আছে সংবিধানের ১১৮ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী রাষ্ট্রপতি নির্বাচন কমিশন গঠন করবেন, সংবিধানে নির্বাচন কমিশন গঠনের বিষয়ে যে আইনের কথা বলা আছে, তা প্রণয়ন এবং নির্বাচন কমিশনের ক্ষমতা বৃদ্ধি। আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি শেষ হচ্ছে বর্তমান নির্বাচন কমিশনের মেয়াদ। তার আগেই নতুন নির্বাচন কমিশনের নিয়োগ দিতে হবে। সংবিধান অনুযায়ী রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদই এই নিয়োগ দেবেন। দশম সংসদ নির্বাচনের আগেই আওয়ামী লীগ ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে ভোট নেয়ার পক্ষে ছিল। বিকাল চারটায় সভাপতি শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগের প্রতিনিধি দল বঙ্গভবনে যান।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত