শিরোনাম

ইঞ্জিনিয়ারিং ছেড়ে বাসের ড্রাইভার প্রতীক্ষা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক  |  ১৬:৫৮, জুলাই ১১, ২০১৯

গতবাঁধা জীবনে আটকে থাকা পছন্দ নায় তার। তাই বেছে নিলেন বাসের ড্রাইভিং সিট। ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ডিগ্রি থাকলেও সেদিকে সামান্যও ভ্রুক্ষেপ করলেন না।

এই তরুণীর নাম প্রতীক্ষা দাস৷ ভারতের মুম্বাইয়ে বসবাস। এ রাজ্যের প্রথম বাসচালক হিসেবে নাম লিখিয়েছেন তিনি। যে কারণে এখন আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে বছর চব্বিশের এই তরুণী৷ খবর ইন্ডিয়া টাইমসের

ছোট থেকে মুম্বাইয়ে বেড়ে উঠেছেন প্রতীক্ষা৷ আগাগোড়াই অন্যরকম মেয়েটি৷ পড়াশোনায় বরাবরের ভাল মেয়েটির বড় হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে গাড়ির প্রতি প্রেম জাগে৷ বাবা-মা চেয়েছিলেন, ইঞ্জিনিয়ারিং নিয়ে পড়াশোনা করেই পায়ের মাটি শক্ত করুক৷ সেই মতো মালাডেক ঠাকুর কলেজে ভরতি করে দেওয়া হয় প্রতীক্ষাকে৷ মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং পাশ করেন তিনি৷

কিন্তু ইঞ্জিনিয়ার হিসাবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করার কথা ভুলেও ভাবেননি মুম্বইয়ের কন্যা৷ পরিবর্তে জীবনে প্রতিষ্ঠিত হওয়ার জন্য তিনি বেছে নেন বাসের স্টিয়ারিং৷ ব্যস্ততায় মোড়া-ভিড়ে ঠাসা বাণিজ্যনগরীর বিভিন্ন প্রান্তে যাত্রীদের পৌঁছে দেওয়ার গুরুদায়িত্ব কাঁধে তুলে নিয়েছেন তিনি৷

কিন্তু কেন এমন অন্যরকম জীবন বেছে নিলেন তিনি? ছোট থেকেই গাড়ির প্রতি ভালবাসা প্রতীক্ষার৷ বাইক, স্কুটি সবই চালিয়েছেন তিনি৷

ইঞ্জিনিয়ারিং পাশ করার পর আরটিও অফিসার হওয়ার স্বপ্ন দেখতেন তিনি৷ সেজন্য প্রয়োজন ছিল ভারী গাড়ি চালানোর লাইসেন্স৷ স্বপ্নপূরণের জন্য বড় ভারী গাড়ি চালানো শেখেন প্রতীক্ষা৷ ব্যস! তারপর থেকেই বাস চালানোর ইচ্ছাই যেন তাড়া করে বেড়াচ্ছিল ওই তরুণীকে৷ প্যাশন আঁকড়েই জীবনের আঁকাবাঁকা পথে হাঁটতে শুরু করেছেন প্রতীক্ষা৷

আরআর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত