শিরোনাম

বাঁচানো গেলো না সেই ৩৩০ কেজির নূরকে!

আমার সংবাদ ডেস্ক  |  ১৪:৪১, জুলাই ০৮, ২০১৯

বাঁচানো গেলো না ৩৩০ কেজির নূরকে! সোমবার (০৮জুলাই) লাহোরের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। 

সার্জারির মাধ্যমে ওজন কমাতে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন পাকিস্তানের সবচেয়ে ওজনের এই ব্যক্তি। পাকিস্তানের সবচেয়ে মোটা মানুষ ছিলেন তিনি। অতিরিক্ত ওজনের কারণে কয়েক বছর ধরেই খাটই তাঁর ঠিকানা ছিল। হাঁটাচলার ক্ষমতা ছিল না। উঠে বসতেও পারতেন না।

ডেইলি পাকিস্তান বলছে, নুরুল হাসান কয়েক সপ্তাহ আগে লাহোরের শালিমার হাসপাতালে একটি সার্জারি করিয়েছিলেন। পরে হঠাৎ শারীরিক অবস্থার মারাত্মক অবনতি ঘটে।

অন্যদিকে, নুরুল হাসানের পরিবার বলছে, সেখানে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মারা গেছেন তিনি।

নুরুল হাসানের পরিবার বলছে, ৩৩০ কেজির নুর হাসানের দূর্দশা দেখে সেনাবাহিনীর প্রধান জেনারেল কামার জাবেদ বাজওয়ার নির্দেশে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। কিন্তু সমস্যা দেখা দেয় বিশালদেহী নূরকে পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশের সাদিকাবাদের বাড়ি থেকে লাহোরে নিয়ে যাওয়া নিয়ে।

তাঁর ঘরের ছোট দরজা দিয়ে অস্বাভাবিক স্থুলকায় নূর হাসানকে বের করা সম্ভব ছিল না। শেষ পর্যন্ত পাক সেনাবাহিনী ও স্থানীয় কয়েকজন যুবকের সহায়তায় তাঁর ঘরের দেওয়াল ভেঙে বার করা হয়েছিল তাঁকে।

উল্লেখ্য, এর আগে পাকিস্তানের ৩৬০ কেজি ওজনের এক ব্যক্তির এই বিশেষ ল্যাপরোস্কোপিক সার্জারি করে ২০০ কেজির নিচে নামিয়ে আনা সম্ভব হয়েছিল।

গত বছর পাকিস্তান এন্ডোক্রিন সোসাইটি কর্তৃক প্রকাশিত একটি জরিপে দেখা গেছে, পাকিস্তানি জনসংখ্যার ২৯ শতাংশ বেশি ওজনের, যার মধ্যে ৫১ শতাংশ স্থূলতা শ্রেণীতে শ্রেণীবদ্ধ।

এমএআই

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত