শিরোনাম

‘এখানে ডাক্তার পেটানোর সামগ্রী পাওয়া যায়’

আন্তর্জাতিক ডেস্ক  |  ১৫:০৮, জুন ১৪, ২০১৯

বেশ কিছু দাবি দাওয়া নিয়ে পশ্চিমবঙ্গের এনআরএস মেডিকেল কলেজের জুনিয়র ডাক্তারদের ধর্মঘট চলছে কয়েকদিন ধরে। এতে চিকিৎসা ব্যহত হওয়ার অভিযোগে ডাক্তারদের বেধরক পেটায় পুলিশ বাহিনি। এ নিয়ে আরেক ডাক্তারের অভিনব প্রতিবাদ ভাইরাল হয়েছে ইন্টারনেটে।

ভারতের সংবাদ প্রতিদিন জানিয়েছে, হাসপাতালে জুনিয়র ডাক্তারদের পেটানোর বিরুদ্ধে এমন অভিনব প্রতিবাদ জানালেন মেদিনীপুরের প্রথিতযশা চিকিৎসক সিদ্ধার্থ ঘোষ। মেদিনীপুর শহরের ডাকবাংলো রোডে নিজের বাড়িতে তার ডাক্তারি চেম্বার।

অর্থোপেডিক বিশেষজ্ঞ এই ডাক্তার তার চেম্বারে ঢোকার মুখে একটি মোটা বাঁশের টুকরো, তার উপর একটি পাথর ও একটি গামছা রেখে দিয়েছেন। পাশে সাঁটানো পোস্টারে লেখা আছে ‘ডাক্তার পেটানোর বাঁশ, পাথর ও মুখ ঢাকার গামছা পাওয়া যায়।’

বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) বিকেলে চেম্বারে রোগী দেখার আগেই অভিনব প্রতিবাদের পন্থাটি বেছে নিয়েছেন তিনি। নিজের ফেসবুক ওয়ালে তা পোস্টও করেছেন। যা ইতিমধ্যেই ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

সিদ্ধার্থ বলেন, চারদিকে যেভাবে ডাক্তার পেটানো চলছে তাতে প্রতিবাদ জানাতেই হয়। আর রোগী বা রোগীর পরিজনদের যাতে ডাক্তারকে মারার জন্য বাইরে গিয়ে বাঁশ বা পাথর যোগাড় করতে সমস্যা না হয়। সেজন্য আগেভাগেই সব জোগাড় করে রাখলাম। এই অভিনব পন্থাতেই প্রতিবাদ জানালাম।

গত ১০ জুনের পর পশ্চিমবঙ্গে এখনও চিকিৎসাক্ষেত্রে জারি রয়েছে অচলাবস্থা। বৃহস্পতিবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এসএসকেএম-এ গিয়ে আন্দোলনরত চিকিৎসকদের হুঁশিয়ারি দেন। বলেন, চার ঘণ্টার মধ্যে কাজে না ফিরলে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মুখ্যমন্ত্রীর এই হুঁশিয়ারিতে কার্যত হিতে-বিপরীত হয়। কাজে না ফিরে আরও তীব্রতর আন্দোলনের পথ ধরেন চিকিৎসকরা। তাদের দাবি মুখ্যমন্ত্রী ক্ষমা না চাইলে তারা কাজে ফিরবেন না।

আরআর

 

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত