শিরোনাম

শিশুদের শাস্তি দিতে পারবেন না জাপানের বাবা-মায়েরা

প্রিন্ট সংস্করণ॥আমার সংবাদ ডেস্ক  |  ০০:২৬, মার্চ ২১, ২০১৯

সমপ্রতি জাপানে বাবা-মার নির্যাতনে এক শিশু মারা যাওয়ার ঘটনার জের ধরে দেশটি শিশুদের প্রতি সব ধরনের শারীরিক নির্যাতন নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। গত মঙ্গলবার জাপানের মন্ত্রিসভা পিতা-মাতাদের জন্য শিশুদের শারীরিকভাবে শাস্তি দেয়া নিষিদ্ধ করার একটি প্রস্তাব অনুমোদন করেছে। প্রস্তাবটি চলতি পার্লামেন্ট (ডায়েট) অধিবেশনে পাশ হলে আগামী বছরের এপ্রিল থেকে এটি আইন হিসেবে কার্যকর হবে। প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবের সরকার এমন এক সময় এই আইনটি পাস করতে চলছে, যখন জাতীয় পুলিশ সংস্থা কয়েক সপ্তাহ আগে শিশু নির্যাতনের বড় ধরনের রেকর্ড হওয়ার পরিসংখ্যান প্রকাশ করেছে। জানুয়ারিতে মিয়া কুরিহারা নামের এক দশ বছরের শিশুকে তার বাবা শরীরে ঠাণ্ডা পানি ঢেলে দেয় ও খাবার থেকে বঞ্চিত করে রাখে। এরই এক পর্যায়ে শিশুটি মারা যাওয়ার ঘটনায় পুরো জাপানজুড়ে ব্যাপক সমালোচনা চলছে। এর আগে গত বছর মার্চ মাসে খাবার ও চিকিৎসা সেবা দেয়ার ক্ষেত্রে বাবা-মা’র অবহেলার কারণে টোকিওতে পাঁচ বছর বয়সী ইয়া ফুনাতো নামের এক শিশুর মৃত্যু হয়েছিল। এরই প্রেক্ষিত্রে মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রী আবের নেতৃত্বে মন্ত্রিসভায় শিশুদের প্রতি শারীরিক নির্যাতন ও হয়রানি বন্ধে আইন করার সিদ্ধান্ত আসে। এ আইনের বিষয়ে আবে সাংবাদিকদের বলেন, শিশুদের সুরক্ষা দিতে বড়দের আরও দায়িত্বশীল হওয়া প্রয়োজন, আর সে বিষয়টিকে জোরালো করতেই আমরা এ আইনটি করলাম। এ আইন প্রস্তাবে বাবা-মা, পালিত বাবা-মা কিংবা শিশু সদনগুলোতে শিশুদের শারীরিক শাস্তি পুরোপুরি নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এ ছাড়া শিশু কল্যাণ কেন্দ্রে আইনজীবী এবং চিকিৎসকের উপস্থিতি বাধ্যতামূলক করা হয়েছে যেন যে কোনো প্রয়োজনে তারা বিশেষজ্ঞ সহায়তা দিতে পারেন। শিশুদের উপর হয়রানি বন্ধে এ আইন বড় ধরনের ভূমিকা পালন করবে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। এর আগে গত ফেব্রুয়ারিতে জাপানের জাতীয় পুলিশ সংস্থার একটি পরিসংখ্যানে বলা হয়, দেশটিতে ২০১৮ সালে ৮০ হাজার ১০৪ জন শিশু বিভিন্নভাবে শারীরিক ও যৌন নির্যাতনের মতো ঘটনার শিকার হয়েছে।
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত