শিরোনাম

বাবাকে বাঁচাতে মেয়ের কিডনি দান

প্রিন্ট সংস্করণ॥আমার সংবাদ ডেস্ক  |  ০১:৪২, মার্চ ১৭, ২০১৯

যুক্তরাষ্ট্রের নর্থ ক্যারোলিনা অঙ্গরাজ্যের এক নারী তার পালক পিতাকে কিডনি দান করবেন। গতকাল থেকে ২৭ বছর আগে সেই পালক পিতা তাকে একটি শিশু আশ্রয় কেন্দ্র থেকে তুলে নতুন জীবন দেন। আশ্রিত মেয়ের কিডনি দানের মাধ্যমে সেই পালক পিতা বেঁচে থাকার স্বপ্ন দেখছেন।বিবিসির এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, কিডনি দানকারী ওই মেয়ের নাম ডি লরেন ম্যাকনাইট। বিল্লি হাউজ নামে পালক পিতার সঙ্গে কোনো রক্তের সম্পর্ক নেই তার। কিন্তু আশ্রিত মেয়ে যখন জানতে পারেন তার সঙ্গে পালক পিতার রক্তের গ্রুপের মিল আছে তিনি বেশ আশ্চর্য হন। বিল্লি হাউজের কিডনি খারাপ হতে থাকে ২০১৬ সাল থেকে। ডাক্তাররা তাকে বলেন, তিনি যদি কিডনি প্রতিস্থাপন না করেন তাহলে আগামী পাঁচ বছরের বেশি তিনি বাঁচবেন না। তারপর থেকে কিডনির খোঁজ শুরু করলেও কোথাও না পেয়ে হতাশ হয়ে পড়েন।ডাক্তারের কাছ থেকে এমন কথা শোনার পর তিনি বিপদে পড়েন। কেননা পরিবারের কারো সাথে তার মিল না থাকায় ৬৪ বছর বয়সী যাজক কিডনি প্রতিস্থাপনের আশা হারিয়ে ফেলেন। তবে শেষমেষ আলো হয়ে তার জীবন বাঁচাতে হাজির হয়েছেন আশ্রিত মেয়ে। গত শুক্রবার মার্কিন টেলিভিশন শো গুড মর্নিং আমেরিকাকে পাঁচ সন্তানের জনক হাউজ বলেন, তিনি তার মেয়েকে নিয়ে ভীষণ গর্বিত। মেয়ের এমন আত্মত্যাগ তাকে নতুন করে বাঁচার পথ তৈরি করে দিয়েছে বলে জানান তিনি। মেয়ে সম্পর্কে বলতে গিয়ে তিনি বলেন, সে আমাকে বলেছিল, ‘বাবা, তুমি ভাবছো যে, তুমি আমাকে একটা শিশু পালন কেন্দ্র থেকে তুলে এনে আমার জীবন বাচিয়েছো। কিন্তু প্রকৃতপক্ষে, তুমি আমার জীবন বাঁচিয়েছো তাই আমিও তোমার জীবন বাঁচাতে চাই।’ ব্যাপ্টিস্ট মিশনের যাজক বিল্লি হাউজ ২০১৬ সালে পিত্তথলিতে একটি সার্জারির পর থেকে কিডনি সমস্যায় ভুগছেন। যখন কোনো আত্মীয়ের সঙ্গে তার সামঞ্জস্য খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না তখন তার জীবন প্রদীপ হয়ে আবির্ভূত হলেন তার আশ্রিত মেয়ে।

 

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত