শিরোনাম

ঠাণ্ডাজনিত রোগ থেকে রক্ষা করতে পারে ব্যায়াম

আমার সংবাদ ডেস্ক  |  ১১:৪৮, জানুয়ারি ১০, ২০১৯

ব্যায়ামে শীতের জড়তা বা আলসেমি কেটে যায়। সবরকম কাজকর্মেও গতি ফিরে আসে। আবার ব্যায়াম শরীরের রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থাকে শক্তিশালী করে তুলতে পারে। শীতের দিনে নিয়মিত ব্যায়াম সর্দি-কাশি, জ্বরের মতো ঠাণ্ডাজনিত রোগ থেকে বাঁচাতে পারে। তাই আপনার এসময় সহজ কিছু ব্যায়াম শিখে রাখা জরুরি। তেমন কিছু শীতের বিশেষ ব্যায়াম নিয়ে আজ থাকছে বিশেষ আয়োজন-

১. শীতের সকালে বা সন্ধ্যায় ব্যায়ামের সময় ফুলহাতা জার্সি পরে নিন। সেই সঙ্গে ঢিলেঢালা ট্রাউজার পরুন। আর পায়ে পরতে হবে ব্যায়ামের জন্য উপযুক্ত সি্নকার বা কেডস। ব্যায়ামের সময় আপনার সঙ্গে তোয়ালে রাখতে পারেন। কখনো ঘাম হলে তা মুছে ফেলতে পারবেন। আর অবশ্যই ছোট পাত্রে পানি রাখুন। ঘামের সঙ্গে শরীর থেকে পানি বেরিয়ে যায় বলে ব্যায়ামের পর পর্যাপ্ত পানি পান করতে হবে।

২. প্রতিদিন সকাল বা সন্ধ্যায় টানা ২০ থেকে ৩০ মিনিট জোরে হাঁটুন। এতে করে শরীর থেকে ঘাম ঝরে যাবে। এই সময়ে শরীর সুস্থ রাখতে আর মেদ ঝরাতে সাইক্লিং খুব ভালো ব্যায়াম হতে পারে। দড়ি লাফ বা স্কিপিং রোপ বা জাম্প রোপ করতে পারেন। যদি কারও হাঁটুতে সমস্যা বা অন্য কোথাও কোনো শারীরিক সমস্যা থাকে তো অবশ্যই চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ করে নিন। এছাড়া খালি হাতে কিছু ফ্রি হ্যান্ড ব্যায়ামও করতে পারেন।

৩. এবারে একটু অন্যরকম ব্যায়াম করে নিতে পারেন। সোজা হয়ে দাঁড়িয়ে দুই হাত পাখির ডানার মতো ছড়িয়ে দিন দুই ধারে। এবার চরকির মতো হাত দুটি ঘোরান সামনের দিকে। এভাবে মোট ১০ বার ঘুরাবেন। এভাবে তিনবার ঘুরাবেন মোট ৩০ বার। এবার একই নিয়মে আপনার হাত দুটি পেছনে নিয়ে ঘুরাবেন।

৪. এবারে আসি অন্য আরেকটি ব্যায়ামের দিকে। আপনার দুই পা বেশ খানিকটা ফাঁক করে দাঁড়ান। এবার দুই হাত দুই পাশে ছড়িয়ে দিন। এরপর ডান হাত দিয়ে বাঁ পায়ের পাতা এবং বাঁ হাত দিয়ে ডান পায়ের পাতা স্পর্শ করার চেষ্টা করুন। অন্তত ৫০ বার এই ব্যায়ামটি করবেন এবং যত দ্রুত সম্ভব করে নেবেন।

৫. এবারের ব্যায়ামটিও বেশ কার্যকর। প্রথমে সোজা হয়ে দাঁড়ান। এরপর আপনার হাত দুটি মাথার উপরে টান টান করে ধরে রাখুন। আপনি এবার সামনের দিকে ঝুঁকে পড়ে পায়ের পাতা স্পর্শের চেষ্টা করুন। এভাবে টানা ২৫ বার করুন। কিছুক্ষণ বিরতি দিয়ে আবার ২৫ বার করুন।

৬. শক্ত বিছানায় সোজা হয়ে শোবেন। দুই হাত মাথার উপরে দিয়ে সোজা করে বিছানার সঙ্গে রাখুন। এবার আপনার কোমর এবং পা না নাড়িয়ে আস্তে আস্তে শরীরটা তোলার চেষ্টা করুন। তোলার পর হাত দিয়ে আপনার পা ছুঁতে চেষ্টা করবেন। এভাবে ১৫ থেকে ৩০ বার করুন।

৭. শুয়ে থাকা অবস্থাতেই দুই হাত দিয়ে মাথার পেছনটা ধরে রাখুন। এবারে মাথাটা মেঝে থেকে খানিকটা উপরে তুলে ফেলুন। এবার দুই পা একসঙ্গে জোড়া লাগিয়ে আস্তেসুস্থে যতটা সম্ভব উপরে তুলে ফেলুন। এভাবে সাধ্যমতো কয়েকবার করুন।

৮. এবারে আরেকটি ব্যায়াম করবেন। আপনার হাত দুটি আগেরবারের মতোই মাথার পেছনে থাকবে। আর আপনার কনুই দুটো থাকবে একটু সামনের দিকে। এবার বাম পায়ের হাঁটু দিয়ে ডান কনুই ছুতে চেষ্টা করুন। এবার ডান পায়ের হাঁটু দিয়ে বাম কনুই স্পর্শ করতে হবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত