শিরোনাম

সহবাসের যে ১২টি বিষয় জানা জরুরি

আমার সংবাদ ডেস্ক  |  ১৭:১৩, জুলাই ০৭, ২০১৯

যৌনতা মানুষের জীবনের একটি অত্যাবশ্যকীয় অধ্যায়। যৌনতা শুধুই উপভোগের ব্যাপার নয়। এর মাধ্যমেই সৃষ্টিকর্তার জমিনে মানুষের আবাদ চলমান থাকে। যৌনতা আছে বলেই হাজার হাজার বছর ধরে পৃথিবীতে মানুষের অস্তিত্ব টিকে রয়েছে। তাই যৌনতাকে হালকা চোখে না দেখে বরং গুরুত্বের চোখে দেখা দরকার।

সর্বাধুনিক এবং শান্তির ধর্ম ইসলাম বৈধ যৌনতাকে উৎসাহিত করেছে। বলা হয়েছে, স্বামী-স্ত্রীর মিলনে রয়েছে অপার রহমত ও সওয়াব।

কিন্তু অনেকেই হয়ত ইসলামিক শরীয়ত মোতাবেক সহবাসের স্বাভাবিক নিয়ম বা পন্থা সম্পর্কে জানেন না। এখানে এ বিষয়ে পাঠকদের একটু ধারণা দেয়া হলো।

সহবাসের স্বাভাবিক পন্থা হলো এই যে, স্বামী উপরে থাকবে আর স্ত্রী নিচে থাকবে। প্রত্যেক প্রাণীর ক্ষেত্রেও এই স্বাভাবিক পন্থা পরিলক্ষতি হয়।

বলা হয়েছে, স্ত্রীরা হচ্ছে স্বামীর শস্য ক্ষেতের তুল্য। তা আবাদের জন্য, উপভোগের জন্য সর্বপ্রকার স্বাধীনতা দিয়েছে ইসলাম। তবে স্ত্রী সহবাসের ১২টি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় মেনে চলা আবশ্যক। সেগুলো হলো-

১। স্বামী-স্ত্রী উভয়ই পাক পবিত্র থাকতে হবে।

২। কোন শিশু বা পশুর সামনে সংগমে রত হবে না

৩। মুস্তাহাব হলো “বিসমিল্লাহ” বলে সহবাস শুরু করা। ভুলে গেলে যখন বীর্যপাতের পূর্বে মনে মনে পড়ে নেবে।

৪। সহবাসের পূর্বে সুগন্ধি ব্যবহার করাও আল্লাহর রাসুলের [সা.] সুন্নত।

৫। দুর্গন্ধ জাতীয় জিনিস পরিহার করা উচিত। উল্লেখ্য যে , ধুমপান কিংবা অপরিচ্ছন্ন থাকার কারণে দুর্গন্ধ সৃষ্টি হয়। আর এতে কামভাব কমে যায়। আগ্রহের স্থান দখল করে নেয় বিতৃষ্ণা।

৬। পর্দা ঘেরা স্থানে সংগম করবে।

৭। সংগম শুরু করার পূর্বে শৃঙ্গার (চুম্বন, স্তন মর্দন ইত্যাদি) করবে।

৮। কোনোভাবেই কেবলামূখী না হওয়া।

৯। স্বামী-স্ত্রী উভয়ই একেবারে উলঙ্গ হবে না।

১০। বীর্যপাতের পর ততক্ষণাত বিচ্ছিন্ন হবে না, বরং স্ত্রীর বীর্যপাত হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করবে।

১১। বীর্যপাতের সময় মনে মনে নির্ধারিত দোয়া পড়বে। কেননা যদি সে সহবাসে সন্তান জন্ম নেয়
তাহলে সে শয়তানের প্রভাব মুক্ত হবে।

১২। নিয়ত ঠিক করুন। হযরত আলী (রা.) তাঁর অসিয়ত নামায় লিখেছেন যে, সহবাসের ইচ্ছে হলে এই নিয়তে সহবাস করতে হবে যে, আমি ব্যভিচার থেকে দূরে থাকবো। আমার মন এদিক ওদিক ছুটে বেড়াবেনা আর জন্ম নেবে নেককার ও ভালো সন্তান। এই নিয়তে সহবাস করলে তাতে সওয়াব তো হবেই সাথে সাথে উদ্যেশ্যও পূরণ হবে, ইনশাআল্লাহ। আল্লাহ তাআলা আমাদের সবাইকে বুঝার এবং আমল করার তৌফিক দান করুন। আমীন।

সবাইকে শেয়ার করুন..

এমআর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত