শিরোনাম

মানসিক চাপ মারাত্মক ক্ষতি!

আমার সংবাদ ডেস্ক  |  ১০:২৬, মে ২৩, ২০১৯

আমরা অনেকে হুট করেই চাপের মাঝে ফেলে দেই নিজেকে। যেখানে এটার প্রয়োজন রয়েছে সেখানে তো বটেই, এমনকি যেখানে প্রয়োজন নেই সেখানেও মানসিক চাপ নিয়ে থাকি। এই কাজটি আমাদের দেহ এবং মনের ওপর মারাত্মক প্রভাব ফেলে। শুধু তাই নয় এই মানসিক চাপের প্রভাব দেখা যায় জীবনযাপনেও। তাৎক্ষণিকভাবে হয়তো এই মানসিক চাপের প্রভাবটি বোঝা যায় না। কিন্তু পরবর্তীতে এর ক্ষতিকর প্রভাব নিজেই বুঝতে পারবেন।

মানসিক চাপ আমাদের দৈনন্দিন জীবনের অনেক বড় একটি সমস্যা। আমরা অনেকে হুট করেই চাপের মাঝে ফেলে দেই নিজেকে। যেখানে এটার প্রয়োজন রয়েছে সেখানে তো বটেই, এমনকি যেখানে প্রয়োজন নেই সেখানেও মানসিক চাপ নিয়ে থাকি। এই কাজটি আমাদের দেহ এবং মনের ওপর মারাত্মক প্রভাব ফেলে। শুধু তাই নয় এই মানসিক চাপের প্রভাব দেখা যায় জীবনযাপনেও। তাৎক্ষণিকভাবে হয়তো এই মানসিক চাপের প্রভাবটি বোঝা যায় না। কিন্তু পরবর্তীতে এর ক্ষতিকর প্রভাব নিজেই বুঝতে পারবেন।

অনিদ্রা সমস্যা শুরু হয়
বলাই বাহুল্য যে মানসিক চাপের মস্তিস্কের ওপর অনেক বেশি প্রভাব থাকে। আমরা যখন কোনো ব্যাপার নিয়ে অনেক বেশি দুশ্চিন্তা করি তখন আমাদের মস্তিস্ক সজাগ থাকে, ঘুমের আগমন একেবারেই হয় না। এভাবে ক্রমশ অনিদ্রার সমস্যা দেখা দিতে থাকে। এবং অনিদ্রাজনিত নানা শারীরিক সমস্যা দেখা দেয়।

শরীরে ভর করে বার্ধক্য
অল্প বয়সেই বুড়িয়ে যাওয়ার সবচাইতে বড় একটি কারণ হচ্ছে অতিরিক্ত মানসিক চাপ নেয়া। মানসিক চাপের ফলে আমাদের মস্তিস্কের ওপর চাপ পড়ে যার প্রভাব দেখা যায় দেহের ওপর। শরীরে ভর করে বার্ধক্য। বয়সের আগেই দেহের অঙ্গপ্রত্যঙ্গের স্বাভাবিক কার্যকলাপে বিঘ্ন ঘটতে থাকে। তাই অতিরিক্ত মানসিক চাপ নেয়ার ব্যাপারে সতর্ক থাকাই ভালো।

সব সময় নেতিবাচক চিন্তা মাথায় ঘোরে
যখন আপনি অনেক বেশি মানসিক চাপ নেবেন তখন আপনার চিন্তাধারা অনেকাংশে নেতিবাচক হয়ে যাবে। সব সময় উটকো চিন্তা মাথায় ভিড় করবে। সাধারণ ভাবে এবং ইতিবাচক ভাবে চিন্তা করার ক্ষমতা হারিয়ে যেতে শুরু করবে। এবং এভাবে সবসময় শুধু নেতিবাচক চিন্তা ঘুরলে নিজের ওপর এবং মানুষের ওপর থেকে বিশ্বাস পুরোপুরি হারিয়ে যাবে। এতে করে মানসিক অশান্তি কাটবে না একেবারেই।

মানসিক চাপের ফলে হুট করে সিদ্ধান্তে চলে যাওয়ার প্রবণতা দেখা দেয়
হুটহাট সিদ্ধান্ত নেয়ার প্রবণতা বেড়ে যায় মানসিক চাপে থাকলে। খুব বেশি মাত্রায় দুশ্চিন্তা করলে সিন্ধান্তহীনতা দেখা দেয়। নিজের জন্য কোনটি ভালো তা বুঝতে পারা যায় না। সেকারণে হুট করে একটি সিন্ধান্ত নিতে দেখা যায়। এবং তা বেশিরভাগ সময়েই ভুল হয়ে যায়। এর প্রভাব দেখা যায় জীবনযাপনে।

সঠিকভাবে চিন্তা করার ক্ষমতা কমে যায়
মানসিক চাপের ফলে সঠিকভাবে চিন্তা করার ক্ষমতা একেবারেই কমে যায়। সঠিক বিচার বিবেচনা করে কাজ করার ক্ষমতা নষ্ট হয়ে যায়। অতিরিক্ত দুশ্চিন্তার ফলে মস্তিস্ক সঠিকভাবে কাজ করতে পারে না। আপনি লক্ষ্য করে দেখবেন যখন আপনি অনেক বেশি দুশ্চিন্তা করেন তখন অন্য কোনো কিছুই মাথায় কাজ করে না। প্রতিনিয়ত এঅবস্থা চলতে থাকলে মস্তিস্কের স্থায়ী ক্ষতি হয়ে যায়। সুতরাং অতিরিক্ত মানসিক চাপ নেয়ার ক্ষেত্রে সতর্ক থাকুন।

এমআর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত