শিরোনাম

দুর্নীতির মামলায় কৃষি ব্যাংকের ৬ কর্মকর্তা কারাগারে

আদালত প্রতিবেদক  |  ১৯:৫০, ফেব্রুয়ারি ২০, ২০১৯

 

দুদকের দায়ের করা কৃষি ব্যাংকের ১৪৮ কোটি টাকা ঋণ দুর্নীতির মামলায় প্রতিষ্ঠানটির ৬ কর্মকর্তাকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। বুধবার (২০ ফেব্রুয়ারি) ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কেএম ইমরুল কায়েস আসামিদের জামিনের আবেদন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নিদের্শ দেন।

আসামিপক্ষে কাজী নজিবুল্লাহ হিরু ও গাজী মো. শাহ আলমসহ কয়েকজন আইনজীবী জামিন আবেদনের শুনানি করেন। দুদকের পক্ষে প্রসিকিউটর মাহমুদ হোসেন জাহাঙ্গীর জামিনের বিরোধিতা করেন। উভয়পক্ষের শুনে আদালত তাদের কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

যাদেরকে কারাগারে পাঠানো হলো-কৃষি ব্যাংকের সাবেক মুখ্য আঞ্চলিক ব্যবস্থাপক জুবায়ের মঞ্জুর, উপ-মহাব্যবস্থাপক ও বনানী শাখার উপ-ব্যবস্থাপক এ কে এম মোশাররফ হোসেন, সাবেক উপ-মহাব্যবস্থাপক ও শাখা ব্যবস্থাপক এ বি এম আতাউর রহমান, সাবেক সহকারী মহা-ব্যবস্থাপক ও শাখা ব্যবস্থাপক মনোয়ারা বেগম, সাবেক এপি.ও ও ঋণ সংক্রান্ত মূল্যায়ন কমিটির সদস্য প্রকৌশল শহিদুল ইসলাম এবং সাবেক এসপিও মো. গানাউল্লাহ।

আসামিরা গত বছর ১২ সেপ্টেম্বর হাইকোর্টে আত্মসমর্পণ করেন। হাইকোর্ট তাদের প্রথমে ৪ সপ্তাহের এবং পরে আরও ১ সপ্তাহসহ মোট ৫ সপ্তাহের জামিন প্রদান করেন। আদেশে জামিনের মেয়াদের মধ্যে ঢাকার মহানগর দায়রা জজ আদালতে আত্মসমর্পণের আদেশ ছিল। সে অনুযায়ী আসামিরা ওই বছর ১১ অক্টোবর আত্মসমর্পণ করেন। কিন্তু ওইদিন মামলার নথি না থাকায় আদালত আসামিদের জামিনে রেখে (২০ ফেব্রুয়ারি) শুনানির দিন ঠিক করেছিলেন। সে অনুযায়ী বুধবার শুনানি শেষে আদালত আসামিদের জামিনের আবেদন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

উল্লেখ্য, ফিয়াজ এন্টারপ্রাইজ, ফিয়াজ ট্রেডিং এবং অটো ডিফাইনের মালিক জনৈক ওয়াহিদুর রহমানকে আসামিরা পরস্পর যোগসাজসে ৫টি মরগেজ দলিলের বিপরীতে কৃষি ব্যাংক বনানী শাখা ১৩৮ কোটি টাকা ২০১০ সালে ঋণ দেয়। পরবর্তীতে মরগেজ দলিলগুলো ভুয়া মর্মে প্রমাণিত হয়। পরে সুদসহ ১৪৮ কোটি টাকা পরষ্পর যোগসাজসে আত্মসাতের অভিযোগে গত বছর আগস্ট মাসে রাজধানীর বনানী থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত