শিরোনাম

আটক ১৩ জনের বিরুদ্ধে ২ মামলা

প্রিন্ট সংস্করণ॥নরসিংদী প্রতিনিধি  |  ০০:৩৫, নভেম্বর ১৮, ২০১৮

নরসিংদীর রায়পুরা উপজেলার চরাঞ্চল বাঁশগাড়ি ও নীলক্ষায় আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের মধ্যে পৃথক সংঘর্ষে ৪ জন নিহত হওয়ার ঘটনায় আটক ১৩ জনের বিরুদ্ধে অস্ত্র আইনে দুটি মামলা দায়ের করেছে পুলিশ। গতকাল শনিবার সকালে রায়পুরা থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) রাফিউল করিম রাফি বাদি হয়ে অস্ত্র আইনে মামলা দুটি করেন। গত শুক্রবার রাতে মেঘনা নদীর চরমধুয়া শিকদার বাড়ি ঘাট ও বাঁশগাড়ি ইউনিয়নের সোবাহানপুর ঘাট থেকে ৯টি আগ্নেয়াস্ত্র ও গুলিসহ ওই ১৩ জনকে আটক করে পুলিশ। পুলিশ জানায়, সংঘর্ষের পর রাতে নৌকায় করে পালানোর সময় মেঘনা নদীর চরমধুয়া শিকদার বাড়ি ঘাট থেকে বাঁশগাড়ি বালুয়াকান্দি গ্রামের ডা. আমিনুল ইসলাম, লিটন, মঙ্গল মিয়া, মাইনুদ্দিন, রাসেল, মামুন মিয়া, রুবেল মিয়া, সালাউদ্দিন, সবুর উদ্দিন ও জিয়াউদ্দিনকে আটক করে পুলিশ। ওই সময় তাদের কাছ থেকে একটা দুইনালা বন্দুক, ৬টা একনালা বন্দুক, একটা পাইপগান ও একটি কার্তুজ জব্দ করা হয়। অপরদিকে, মেঘনা নদীর বাঁশগাড়ি ইউনিয়নের সোবাহানপুর ঘাট থেকে গয়েছ আলী, কামাল মিয়া, রানা মিয়া, মোহাম্মদ গজ আলীকে আটক করে পুলিশ। তাদের কাছ থেকে একটা একনালা বন্দুক ও ৬টি কার্তুজ জব্দ করা হয়। তারা প্রত্যেকেই চরমধুয়া গ্রামের বাসিন্দা।রায়পুরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মহসিন উল কাদির বলেন, আটক ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে পুলিশ বাদি হয়ে অস্ত্র আইনে দুটি মামলা দায়ের করেছে। হত্যার ঘটনায় এখনো থানায় কেউ মামলা দায়ের করেনি। আইনশৃঙ্খলা স্বাভাবিক রাখতে এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত