শিরোনাম

ঢাবি ভর্তি পরীক্ষায় জালিয়াতি: ১২জনের কারাদণ্ড

আদালত প্রতিবেদক  |  ১৯:০২, অক্টোবর ২০, ২০১৭

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় প্রক্সি ও ডিজিটাল জালিয়াতির মূল হোতা ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নেতাসহ তিনজনকে সিআইডিতে হস্তান্তর এবং ১২ জনকে কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। শুক্রবার(২০ অক্টোবর) পরীক্ষা শেষে ঢাকা জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালত আটক ব্যক্তিদের প্রত্যেককে এক মাস করে বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেন।

এর আগে, ১৫জনকে আটক করা হয় বলে জানান বিশ্ববিদ্যালয়ের বিদায়ী ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর এম আমজাদ আলী। এদের মধ্যে এক ছাত্রলীগ নেতাসহ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই শিক্ষার্থী রয়েছেন। তারা জালিয়াত চক্রের অন্যতম হোতা।

‘ক’ ইউনিট ভর্তি পরীক্ষার আগে থেকে তাদের খুঁজছিল সিআইডি। তারা হলেন- পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র ও ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সহসম্পাদক মহিউদ্দিন রানা এবং ফলিত রসায়ন বিভাগের আব্দুল্লাহ আল মামুন।

বাকি ১২ ভর্তিচ্ছু হলেন- নুর মোহাম্মাদ মাহবুব, ফরহাদুল আলম রানা, ইশরাক হোসেন রাফি, আব্দুল্লাহ আল মুকিম, রিশাদ কবির, আসাদুজ্জামান মিনারুল, ইশতিয়াক আহমেদ, জয় কুমার সাহা, রেজওয়ানা শেখ শোভা, মাশুকা নাসরীন, তারিকুল ইসলাম ও নাসিরুল হক নাহিদ।

ঢাকা জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তৌহীদ এলাহী গণমাধ্যমকে জানান, দণ্ড প্রদানকারীদের মাস্টার কার্ডের মতো ইলেকট্রনিক ডিভাইসে সিমকার্ড ঢুকিয়ে কেন্দ্রের বাইরে যোগাযোগ করে উত্তর সংগ্রহের সময় ধরা হয়। তাদের কান থেকে অতিক্ষুদ্র তারবিহীন হেডফোন পাওয়া যায়। পরে আদালতের কাছে দোষ স্বীকার করলে আটক ব্যক্তিদের প্রত্যেককে এক মাস করে বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়। ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, শুক্রবার সকাল ১০টা থেকে বেলা ১১টা পর্যন্ত চলে এ ভর্তি পরীক্ষা। ঢাবিতে ৫৩টি ও বিশ্ববিদ্যালয়ের বাইরে ৩৩টি স্কুল-কলেজসহ মোট ৮৬টি কেন্দ্রে একযোগে এই পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয় শুক্রবার। এ পরীক্ষায় প্রতিটি আসনের বিপরীতে লড়েছে ৬১ জন ভর্তিচ্ছু। চলতি বছর ‘ঘ’ ইউনিটে এক হাজার ৬১০টি আসনের বিপরীতে ৯৮ হাজার ৫৪ জন শিক্ষার্থী আবেদন করেন। এই ইউনিটে বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীদের জন্য এক হাজার ১৪৭টি, ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের জন্য ৪১০টি ও মানবিক শাখার জন্য ৫৩টি আসন রয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার দপ্তরে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীরা কলা ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের প্রায় সব বিভাগে, ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের শিক্ষার্থীরা ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদ ছাড়া প্রায় সব বিভাগে ভর্তি হতে পারবেন। আর কলা অনুষদের শিক্ষার্থীদের জন্য যে ৫৩টি আসন রয়েছে, সেগুলো ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের নয়টি বিভাগ এবং গণিত ও পরিসংখ্যানে ভর্তি হওয়ার জন্য।

 

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত