শিরোনাম

মহানায়কের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস আজ

প্রিন্ট সংস্করণ॥শফিকুজ্জামান  |  ০০:৩৪, জানুয়ারি ১০, ২০১৯

সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, স্বাধীনতার মহানায়ক, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস আজ। দীর্ঘ নয়টি মাস রক্তক্ষয়ী মহান মুক্তিযুদ্ধের পর পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীকে পরাজিত করে ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর বিজয় অর্জন করেছিলো বীর বাঙালি। বাংলাদেশ স্বাধীন হলেও ৭১-এর ৭ মার্চ যাঁর ডাকে সাড়া দিয়ে মহান মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েছিলো লাখ লাখ বীর মুক্তিযোদ্ধারা, সেই অবিসংবাদিত নেতা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বন্দি ছিলেন পশ্চিম পাকিস্তানের কারাগারে। ফলে বাংলাদেশ স্বাধীনতা অর্জন করলেও মহান নেতার অনুপস্থিতিতে অপূর্ণ থেকে যায় বিজয়ের গৌরব উদ্যাপন। অনেক অনেক চড়াই উৎরাই পার করে অবশেষে দীর্ঘ প্রতীক্ষা আর উৎকণ্ঠার অবসান ঘটিয়ে ১৯৭২ সালের ১০ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব স্বাধীন বাংলাদেশের মাটিতে পা রাখেন। ফিরে এলেন বাংলা মায়ের কুলে। সেই থেকে দিনটি পালিত হয়ে আসছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস হিসেবে। এরই ধারাবাহিকতায় আবারো ফিরে এলো সেই ঐতিহাসিক স্মৃতিময় দিনটি। বঙ্গবন্ধু স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক বাণী দিয়েছেন। দিবসটি পালনের জন্য বিভিন্ন দল ও সংগঠন নানান কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে কেন্দ্রীয় কার্যালয়, বঙ্গবন্ধু ভবন ও সারা দেশে দলীয় কার্যালয়ে দলীয় ও জাতীয় পতাকা উত্তোলন। সকালে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণসহ দিনব্যাপী নানান কর্মসূচি পালন করবে বাঙালি জাতি। ১৯৭২ এর ১০ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধু স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের ফলে দেশের স্বাধীনতা সুসংহত হয়। দেশে ফিরে বঙ্গবন্ধু বৈষম্যহীন, শোষণমুক্ত সমাজ গড়াসহ অনেক স্বপ্নের কথা বলেছিলেন। কিন্তু বাঙালির দুর্ভাগ্য, তিনি দেশ গঠনে বেশীদিন সময় পাননি। ১৯৭৫ এর ১৫ আগস্ট যড়যন্ত্রকারীদের হাতে সপরিবারে তাঁকে নির্মমভাবে নিহত হতে হয়। কিন্তু আজ যখন মহান নেতার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উদযাপিত হচ্ছে, তখন সদ্য অনুষ্ঠিত হওয়া একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিজয়ী হয়ে তাঁরই যোগ্য কন্যা চারবারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধুর প্রাণের সংগঠন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ টানা তৃতীয়বারের মতো সরকার গঠন করেছে। আজকের দিনে নতুন সরকারের কাছে দেশের জনগণের প্রত্যাশা- বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়তে হবে। শোষণমুক্ত, বৈষম্যমুক্ত, দারিদ্র্যমুক্ত এবং উন্নত জাতি হিসেবে বাঙালি বিশ্ব দরবারে মাথা উঁচু করে থাকুক, গর্বিত হোক উন্নত ও সমৃদ্ধশালী বাংলাদেশে নাগরিক হয়ে।
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত