শিরোনাম

তীব্র যানজটে ভোগান্তি চরমে

প্রিন্ট সংস্করণ॥নিজস্ব প্রতিবেদক  |  ০১:২৭, মে ১০, ২০১৯

সপ্তাহের শেষ কর্মদিবসে রাজধানীতে তীব্র যানজট লক্ষ্য করা গেছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই অফিসগামী যাত্রীরা যানজটের কারণে চরম ভোগান্তিতে পড়েন। সকালের দিকেই রাজধানীর সড়কগুলোতে তীব্র যানজট দেখা যায়।

বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে যানজটের তীব্রতা বাড়তে থাকে। শাহবাগ, মৎস্য ভবন, বাংলামটর, কারওয়ানবাজার, পান্থপথ, আগারগাঁও, পল্টন মোড়, রমনা ও আশপাশের এলাকার সড়কগুলোতে দীর্ঘ সময় যানবাহন আটকা পড়ে সৃষ্টি হয় যানজটের।

এদিকে রাস্তায় যানজট থাকায় বারডেম হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা রোগীরা ভোগান্তিতে পড়েছেন বেশি। টঙ্গী থেকে শাহবাগের বারডেম হাসপাতালে মাকে নিয়ে এসেছেন বিউটি আক্তার। রাস্তায় গাড়ির দীর্ঘসারি।

তিনি বলেন, রাস্তায় অনেকক্ষণ জ্যামে আটকা ছিলাম। সকাল ৮টায় রওনা হয়েছি, এখানে আসতে ১২টা বাজলো। মাকে ডাক্তার দেখিয়ে বাড়ি ফিরবো কয়টায় আল্লাহই জানে। যাত্রাবাড়ী থেকে রোগী নিয়ে বারডেম হাসপাতালে এসেছেন সারোয়ার মিয়া। তিনি বলেন, রাস্তায় দীর্ঘক্ষণ জ্যামে আটকে ছিলাম।

তাই রোগীকে নিয়ে হাসপাতালে আসতে একটু কষ্ট হয়েছে। কাপড় ব্যবসায়ী মো. জামাল হোসেন সকাল ৯টার দিকে শেওড়াপাড়া এলাকা থেকে রওনা দিয়ে পল্টনে আসতে তার সময় লেগেছে আড়াই ঘণ্টা। তিনি বলেন, সপ্তাহের অন্য দিনে এ রাস্তা দিয়ে তিনি এক থেকে দেড়ঘণ্টার মধ্যে পল্টন আসেন।

কিন্তু গতকাল বৃহস্পতিবার তীব্র যানজটের থাকায় সময় বেশি লেগেছে। মিরপুরের কাজীপাড়া থেকে ফার্মগেটে এসেছেন ব্যবসায়ী আব্বাস মিয়া। তিনি বলেন, মেট্রোরেলের কাজ চলার কারণে প্রতিদিনই আমাদের জ্যামের সঙ্গে লড়াই করে কর্মস্থলে আসতে হয়। তবে এটি চালু হলে জ্যাম অনেকাংশেই কমবে।

খামারবাড়ি এলাকা থেকে গাড়ি থেকে নেমে হাঁটা শুরু করেছেন বেসরকারি একটি প্রতিষ্ঠানের চাকরিজীবী মোহাম্মদ শোয়েব। তিনি বলেন, মিরপুর-১১ নং সেকশন থেকে গাড়িতে উঠেছি মতিঝিলে যাবো। খামারবাড়ি পর্যন্ত আসতে তার সময় লাগলো দেড়ঘণ্টা। এখানে বসে থাকলে আরও আধা ঘণ্টা বেশি সময় লাগবে। তাই গাড়ি থেকে নেমে হাঁটা দিয়েছি।

এ ব্যাপারে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার মীর রেজাউল আলম বলেন, মেট্রোরেল, গ্যাসলাইন এবং ওয়াসার খোঁড়াখুঁড়ির কারণে রাস্তা সংকুচিত হয়ে যাওয়ায় কিছুটা জ্যাম সৃষ্টি হয়েছে। তবে আগের তুলনায় জ্যাম অনেক কমেছে। তিনি আরও বলেন, ট্রাফিক পুলিশ যানজট কমাতে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। নাগরিকদের সুবিধার্থে ট্রাফিক বিভাগ যানজট নিরসনে সর্বদাই সচেষ্ট রয়েছেন।

 

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত