শিরোনাম

৫টি নদী ও ২টি খাল পুনঃখনন কাজ ব্যহত হওয়ার আশঙ্কা

আজাদ হোসেন, চুয়াডাঙ্গা  |  ১৯:৪০, জানুয়ারি ১২, ২০১৯

পানি প্রবাহ ফিরিয়ে আনার জন্য ৮০ কোটি টাকা ব্যয়ে চুয়াডাঙ্গা পানি উন্নয়ন বোর্ডের আওতায় চুয়াডাঙ্গা-মেহেরপুর জেলার ৫টি নদী ও ২টি খাল পুনঃখনন করার কাজ জনবল সংকটের কারণে ব্যহত হওয়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। জনবল সংকট দূর করার জন্য বারবার সংশ্লিষ্ট দপ্তরে চিঠি দিয়েও কোন কাজ হচ্ছেনা বলে জানিয়েছেন চুয়াডাঙ্গা পনি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী জাহেদুল ইসলাম।

চুয়াডাঙ্গা পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী জাহেদুল ইসলাম জানান, ৬৪ জেলার অভ্যন্তরস্থ খাল, ছোট নদী এবং জলাশয়ে পানি প্রবাহ ফিরিয়ে আনার জন্য পুনঃখননের কাজ হাতে নেয়া হয়েছে। কৃষি কাজে পানি ব্যবহার ও সুযোগ মত মাছ চাষের জন্যই এ কর্মকান্ড ২০ জানুয়ারি থেকে পুরোদমে শুরু হবে। তিনি জানান, চুয়াডাঙ্গা জেলার ১৪ কিলোমিটার নবগঙ্গা নদী, ২৫ কিলোমিটার চিত্রা নদী, ১২ কিলোমিটার কুমার নদী ও ৬ কিলোমিটার নৌকা খাল এবং চুয়াডাঙ্গা পানি উন্নয়ন বোর্ডের আওতায় মেহেরপুর জেলার ৮ কিলোমিটার ছেউটিয়া নদী, ৮ কিলোমিটার কাজলা নদী, মুজিবনগর উপজেলায় স্বরসতী খাল ১০ কিলোমিটার পুনঃখনন করা হবে। পানি সম্পদ মন্ত্রণালয় থেকে এ কাজ বাস্তবায়নে ৮০ কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। গত ২৬ ডিসেম্বর ২০১৮ সালে পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে খনন কাজের উদ্বোধন করা হয়।

২০১৯ সালের জুন মাসের মধ্যে এ কাজ শেষ হতে পারে বলে তিনি জানান। তিনি আরো বলেন, খনন কাজ তদারকি ও বুঝে নেয়ার জন্য জনবল সংকট রয়েছে। কিন্তু তা পূরণে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সহযোগীতা পাওয়া যাচ্ছেনা। উল্লেখ্য মেহেরপুর জেলা চুয়াডাঙ্গা পানি উন্নয়ন বোর্ডের আওতায়। চুয়াডাঙ্গা পানি উন্নয়ন বোর্ডে কর্মকর্তা ও কর্মচারী মিলিয়ে ৬৯ জনের মধ্যে কর্মরত রয়েছেন ২৯ জন, শূন্য রয়েছে ৪৩ জন।

শূন্যপদগুলো হলো- উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী ১ জন, সহকারী প্রকৌশলী (রাজস্ব) ১ জন, উপ-সহকারী প্রকৌশলী শাখা কর্মকর্তা ৩ জন, সহকারী সম্প্রসারণ কর্মকর্তা ১ জন, সহকারী সেচ কর্মকর্তা ১ জন, উচ্চমান সহকারী প্রধানকরণীক ১ জন, ডাটা এন্ট্রি অপারেটর ৩ জন, সার্ভেয়ার (রাজস্ব) ১ জন, সার্ভেয়ার (প্রকৌশলী) ২ জন, ট্রেসার ১ জন, কার্যসহকারী ৬ জন, হিসাব করণীক ১ জন, গাড়িচালক ৩ জন, ইলেট্রেশিয়ান-এ ১ জন, পাম্প অপারেটর ১ জন, অফিস সহায়ক ৯ জন, মালী ১ জন, নিরাপত্তা প্রহরী ৩ জন ও সহকারী কুক ১ জন। বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী জাহেদুল ইসলাম জানান, দ্রুত জনবল সংকট দূর না হলে কাজ এগিয়ে নিয়ে যাওয়া দুস্কর হবে। ভেস্তে যাবে সরকারের মহৎ উদ্যোগ।

 

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত