শিরোনাম
৩৬তম বিসিএসে শিক্ষা (একাউন্টিং) ক্যাডারে প্রথম

‘সঠিক কর্মকৌশল সাফল্যের মূলশর্ত’

আসলাম হোসেন, জবি প্রতিনিধি  |  ০১:৩৭, নভেম্বর ০৪, ২০১৭

৩৬তম বিসিএসে শিক্ষা (একাউন্টিং) ক্যাডারে প্রথম মনির-উজ-জমান মিঠু ছিলেন বাংলাদেশের স্বায়ত্তশাসিত বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে সবচেয়ে ব্যাতিক্রম ও সমস্যাসংকুল রাজধানীর জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়-এর ছাত্র। তিনি জানতেন বিশ্ববিদ্যালয়ে কোলাহল এড়িয়ে কোথায়ও নীরবে বসার জায়গা নাই। না ছিল সকালের নাস্তা আর দুপুরে খাওয়ার ক্যাফেটেরিয়া, একটু পড়ার জায়গা সেটা তো দুঃস্বপ্ন। তিনি স্মরণ করেনÑ আমি একবার কেন্দ্রীয় লাইব্রেরিতে গিয়েছিলাম তবে পড়তে নয়, গল্প করতে। কারণ সেখানে না ছিল ভালো বই, না ছিল ভালো প্রবন্ধ ও গবেষণাকর্ম। ৩৬তম বিসিএসের শিক্ষা ক্যাডারের একাউন্টিং বিভাগে প্রথম হওয়া মুহাম্মদ মনির-উজ-জামান মিঠু এভাবেই তার মনের অভিব্যক্তি প্রকাশ করছিলেন, শিক্ষার প্রতিকূল পরিবেশ থাকা সত্ত্বেও তিনি জানতেন তাকে অনেক দূর যেতে হবে। তার মতে, সঠিক কর্ম কৌশল সময়ানুবর্তিতা সাফল্যের মূলশর্ত। তিনি আরও বলেন, এটা ছিল আমার স্বপ্ন আর সাধনার ফল। আমি বিশ্বাস করি সঠিক উপায়ে পরিশ্রম ধৈর্য এবং আল্লাহর সন্তুষ্টি থাকলে সবকিছু করা সম্ভব। নতুন ভাইবোনদের জন্য পরামর্শ সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখুন এবং বেশি বেশি সৃষ্টিকর্তাকে স্মরণ করুণ। কোনো অবস্থায় ধৈর্যহারা হবেন না। মিঠু বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়ার পর থেকেই বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিসের (বিসিএস) একজন প্রথম শ্রেণীর কর্মকর্তা হওয়ার স্বপ্ন ছিল, পরবর্তীতে বড় ভাইয়াদের কাছ থেকে আরও বেশি অনুপ্রাণিত হই।
মাদারীপুরের সন্তান মুহম্মদ মনির-উজ-জামান মিঠু জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের একাউন্টিং বিভাগের চতুর্থ ব্যাচের ছাত্র ছিলেন। তিনি ৩৫তম বিসিএসে নন ক্যাডার হয়েছিলেন। শিক্ষাজীবনের সবক্ষেত্রে প্রতিভার স্বাক্ষর রেখে ২০০৫ সালে কাঠালবাড়ী উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি এবং ২০০৭ সালে নুরুল আমিন কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করেন। তিনি ২০০৮-০৯ সেশনে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে একাউন্টিং এন্ড ইনফরমেশন ডিপার্টমেন্টে ভর্তি হন। দুই ভাই দুই বোনের মধ্যে মুহাম্মদ মনির-উজ-জামান মিঠু সর্বকনিষ্ঠ। তাইতো পিতা-মাতার ভালোবাসাটাও একটু বেশি পেয়েছিলেন আর এই ভালোবাসার প্রতিদান দিতেও ভুল করেননি।
তিনি বলেন, আমি ভাবিনি প্রথম হবো, সেটা কেউ ভাবেও না। আমার ইচ্ছা ছিল যেকোনো একটা ক্যাডার পাবো, বাজিমাতের মতো পেয়ে গেলাম। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের স্মৃতিচারণ করে তিনি বলেন, মেসে থাকার তিক্ত অভিজ্ঞা, ভার্সিটির পরিবহন সমস্যা।
মুহাম্মদ মনির-উজ-জামান মিঠুর বাবা বলেন, বিসিএসে এমন সফলতায় উচ্ছ্বসিত, আমার সন্তানের সাফল্যে আমি গর্বিত। তবে ওর প্রতি আমার বিশ্বাস ছিল ও ভালো কিছু করবে।
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত