শিরোনাম

ভৈরবে স্কুলছাত্র হত্যায় ৩ সহপাঠী গ্রেপ্তার

জামাল মিয়া, ভৈরব (কিশোরগঞ্জ)  |  ২৩:৩৯, মে ৩১, ২০১৯

নিখোঁঁজের ১ দিন পর ভৈরবে ফারদিন আলম ওরফে রুপক (১৭) নামে এক শিক্ষার্থীর গলাকাটা বস্তাবন্দি মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সে জেলার ভৈরব বাজারের ব্যবসায়ী বিপ্লব মিয়ার পুত্র।

শুক্রবার দুপুরে শহরের ভৈরবপুর এলাকার ব্যবসায়ী আবু বক্কর এর ৬ তলা ভবনের ছাদ থেকে এ মৃতদেহটি উদ্ধার করা হয়। মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য কিশোরগঞ্জ সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেছে।

নিহতের পরিবার ও পুলিশ জানায়, গত বৃহস্পতিবার রাতে তার সহপাঠীরা তাকে মোবাইল ফোনে ডেকে নেয়। এরপর থেকে সে নিখোঁজ ছিলো।

তার পরিবারের সদস্যরা বিভিন্ন জায়গায় খোঁজাখোঁজি করে না পেয়ে রাতেই ভৈরব থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করে এবং র্যাব-১৪ ভৈরব ক্যাম্পে অবহিত করে কিন্তু গতকাল দুপুরে ভবনের ছাদে লাশটি বস্তাবন্দি হয়ে পড়ে থাকতে দেখে এলাকাবাসী পুলিশে খবর দেয়।

পরে পুলিশ মৃতদেহটি উদ্ধার করে। হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে রেজুয়ানুল কবির, রাব্বি ও আরাফাত পাটোয়ারী নামে ৩ সহপাঠীকে আটক করেছে পুলিশ।

পুলিশ জানায়, আটককৃতরা খুনের কথা স্বীকার করেছে। পুলিশ আরো জানায়, আটককৃতরা মোবাইল ফোনে রুপককে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে ভবনের ছাদে আটকে রেখে তার পরিবারের কাছ থেকে মুক্তিপণ আদায় করবে এ ভেবে প্রথমে তাকে আটকে রাখে।

এক পর্যায়ে তারা ভাবে এ ঘটনা পুলিশ ও র্যাবকে তারা জানিয়ে দিলে বিপদে পড়বে। তাই তারা প্রথমে গলায় রশি দিয়ে ২ পাশ থেকে টেনে তাকে হত্যা করে।

কিন্তু হত্যার পর ছুরি দিয়ে জবাই করে নিশ্চিত হয়ে মৃতদেহ ফেলে চলে যায়।

নিহতের পরিবার ও ভৈরব থানার ওসি মো. মুখলেছুর রহমান জানায়, নিহত রুপক ও তার ৩ সহপাঠি সদ্য এসএসসি পাশ করেছে। তারা একই সাথে দীর্ঘদিন ধরে চলাফেরা করতো। এ ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসছে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত