শিরোনাম

ক্ষেতলালের স্কুলে তালা দিলো শিক্ষার্থীরা

ক্ষেতলাল (জয়পুরহাট) প্রতিনিধি  |  ১৮:৩৭, এপ্রিল ২০, ২০১৯

একই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে দুটি কমিটি, তিনজন প্রধান শিক্ষকদের মধ্যে রশি টানাটানি এবং শিক্ষক সঙ্কটসহ বিদ্যালয়ের নানা সমস্যার কারণে গত বৃহস্পতিবার (১৮ এপ্রিল) ক্লাস বর্জন করেছে জয়পুরহাটের ক্ষেতলাল উপজেলার হিন্দা উচ্চবিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। তাদের অভিযোগ দীর্ঘদিন থেকে শ্রেণিকক্ষে অধিকাংশ শিক্ষক অনিয়মিত পাঠদানসহ কমিটি ও প্রধান শিক্ষক নিয়ে দ্বন্দ্ব থাকায় অনিয়মিত বিদ্যালয় পরিচালনা হওয়ায় সব শিক্ষার্থী ক্লাস বর্জন ঘোষণা দেয়।

দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী কামরুল ও পারভেজ জানায়, বিদ্যালয়ের উন্নয়ের জন্য সেশন ফিসহ অন্যান্য ফি শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে নিয়মিত আদায় করা হলেও তা যথাযথভাবে খরচ করা হয় না। বর্তমান বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের শ্রেণিকক্ষে বসার ব্রেঞ্চ এবং ব্যবহারের জন্য টয়লেট নেই। এই প্রতিষ্ঠানে তিনজন শিক্ষক প্রধান শিক্ষক হিসেবে দাবি করলেও সৃষ্ট সমস্যাগুলোর সমাধানে কেউ এগিয়ে আসেন না। তাই এসব সমস্যা দ্রুত সমাধানে দাবিতে সব শিক্ষার্থী একত্রি হয়ে শ্রেণিকক্ষে তালা লাগিয়ে ক্লাস বর্জন করছি।

বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের ক্লাস বর্জনের সংবাদ পেয়ে ওই বিদ্যালয়ে গিয়ে প্রধান শিক্ষক লজাবত আলীর কোনো দেখা পাওয়া যায়নি। দায়িত্বপ্রাপ্ত শিক্ষককে তার বিষয়ে জিজ্ঞেস করলে তিনিও বলতে পারেন না প্রধান শিক্ষক এখন কোথায়। প্রধান শিক্ষকের সঙ্গে মোবাইল ফেনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলে তাকে ফোনে পাওয়া যায় না। প্রধান শিক্ষক সম্পর্কে মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারকে জিজ্ঞেস করলে তিনিও বলেন, কোথায় গেছেন আমাকেও বলেননি। স্কুল চলাকালীন সময়ে স্কুলে গিয়ে আমিও তিন দিন তাকে পাইনি।

হিন্দা হাইস্কুলের শিক্ষার্থীদের ক্লাস বর্জনের সংবাদ পেয়ে উপজেলার মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ছফিউল্লাহ ও বড়াইল ইউপি চেয়ারম্যান আবু রাশেদ আলমগীর ঘটনাস্থলে গিয়ে শিক্ষার্থীদের প্রতিশ্রæত দিয়ে ক্লাসে ফিরিয়ে আনেন।

সহকারী শিক্ষক বাবলু বলেন, ম্যানিজিং কমিটি ও প্রধান শিক্ষকে নিয়ে জটিলতার কারণে সাত মাস যাবৎ স্কুলের কোনো শিক্ষক কর্মচারী বেতন-ভাতা পাইনি। তবে সকল শিক্ষক নিয়মিত স্কুলে আসে ও ক্লাস করায়।

এ ব্যাপারে উপজেলা মধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ছফিউল্লাহ সরকার বলেন, কমিটি ও প্রধান শিক্ষক নিয়ে দ্বন্দ্ব সহ বিদ্যালয়ে নানা সমস্যা রয়েছে। ফলে শিক্ষকরা ইচ্ছেমতো বিদ্যালয়ে আসা-যাওয়া করছেন এমন অভিযোগ উঠেছে। তবে কমিটি ও প্রধান শিক্ষক নিয়ে মামলা সংক্রান্ত জটিলতা থাকার কারণে আমি ও উপজেলা চেয়ারম্যান এসে একজন সহকারী শিক্ষককে এক মাসের জন্য ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকরে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। আশা করি, দ্রুত কমিটি গঠন এবং প্রধান শিক্ষকের জটিলতা সমাধান হবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত