শিরোনাম

তিতুমীর কলেজে আন্তঃবিভাগ বিতর্ক প্রতিযোগিতা সম্পন্ন

মোঃ শাহাদাত হোসেন নিশাদ, তিতুমীর  |  ১৯:৪৯, এপ্রিল ১৮, ২০১৯

মাহবুব হাসান রিপন শ্বপ্ন দেখেছিলো তিতুমীর কলেজে প্রতিষ্ঠিত করবে বিতর্কক্লাব। যে বিতর্ক ক্লাব পৌঁছে যাবে উচ্চতার শিখরে। তারই ধারাবাহিকতায় এই প্রথম তিতুমীর কলেজে দীর্ঘ ৫০ বছর পর অনুষ্ঠিত হয় আন্তঃবিভাগ বিতর্ক প্রতিযোগিতা ও কর্মশালা।

বৃহস্পতিবার (১৮ এপ্রিল) সকাল ১০ টায় শহীদ বরকত মিলনায়তনে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরু হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কলেজ অধ্যক্ষ প্রফেসর মোঃ আশরাফ হোসেন, বিশেষ অতিথি ছিলেন উপাধ্যক্ষ ড.মোসা. আবেদা সুলতানা, শিক্ষক পরিষদের সাধারন সম্পাদক প্রফেসর মালেকা আক্তার বানু ,প্রধান আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ন্যাশনাল ডিবেট ফেডারেশনের সভাপতি একেএম শোয়েব , সরকারি তিতুমীর কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি মোঃ রিপন মিয়া, সাধারন সম্পাদক মাহমুদুল হক জুয়েল মোড়ল , বিতর্ক ক্লাবের মডারেটর ও রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সালমা বেগম , বিতর্ক ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি মাহবুব হাসান রিপন প্রমুখ ।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, দেশ কে সমৃদ্ধ শালী করতে বির্তাকিক ও মুক্তবুদ্ধি চর্চা কারীদের অগ্রণী ভূমিকা রাখতে হবে। দেশ ও দশের মুক্তির এই মাধ্যম বির্তককে এগিয়ে নিতে হবে। বিতর্ক এমন একটি জিনিস যা মানুষকে শিখায় ধৈর্য্য ধারণ করতে, উচ্চতার শিখরে নিজেকে শ্রেষ্ঠত্ব প্রমান করতে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে বিতর্ক বিষয়ক কর্মশালা পরিচালনা করেন বাংলাদেশ টেলিভিশনের শ্রেষ্ঠ বিতার্কিক উত্তম রায়। ক্যারিয়ার বিষয়ক কর্মশালা পরিচালনা করেন বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি ডিরেক্টর মো:নাজমুল হুদা।

এ বিষয়ে রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ও ডিবেট ক্লাবের মডারেটর সালমা বেগম বলেন, দিনটি ছিল কেবল সরকারি তিতুমীর কলেজের তুখোড় বিতার্কিকদের জন্য। তিতুমীর কলেজ বিতর্ক ক্লাবের সভাপতি মাহবুব -এর নির্দেশনা ও অন্যান্য সদস্যদের অক্লান্ত পরিশ্রমের ফল আজকের এই সৃজনধর্মী মহাযজ্ঞ। তিতুমীর কলেজে এবারই প্রথম এতবড় পরিসরে এই আয়োজন শুরু হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত তিন দিন ধরে বিতর্ক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে পুরো কলেজ প্রাঙ্গণ জুড়ে। উচ্ছ্বসিত এই আয়োজনে বিচারক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজের জাতীয় পর্যায়ের বিজয়ী বিতার্কিকগণ।

বির্তক প্রতিযোগিতায় কলেজের ২২ টি বিভাগ থেকে ৩০০ শিক্ষার্থী অংশ নিয়েছিল। এর মধ্যে আন্তঃবিভাগীয় দল ৪৪ টি, বারোয়ারি বির্তকে ১০০জন এবং কুইজ প্রতিযোগিতায় ২০ টি দল অংশগ্রহণ করছে।

আন্তঃবিভাগ বিভাগ বির্তকের ফাইনালে উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগকে হারিয়ে রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগ বিজয় লাভ করে। বিকালে পুরস্কার বিতরণ এর মাধ্যমে তিন দিন ব্যাপি এই অনুষ্ঠানের পরিসমাপ্ত হয়।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত