শিরোনাম

ছুটির দিনে জমজমাট বাণিজ্য মেলা

আহমেদ ফেরদাউস খান  |  ২০:৩২, জানুয়ারি ১২, ২০১৮

সরকারি ছুটির দিনে দর্শনার্থীর ভিড়ে জমজমাট হয়ে ওঠেছে আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা প্রাঙ্গণ। অন্যদিনের চেয়ে বিক্রিও বেড়েছে। শুক্রবার (১২ জানুয়ারি) দেখা গেছে হাজারো মানুষের স্রোত এক হয়ে মিশেছে মেলা প্রাঙ্গণে। একই সঙ্গে ব্যস্ততা বেড়েছে বিক্রেতাদেরও। সপ্তাহের অন্য যে কোনো দিনের তুলনায় তারা একটু বেশিই ব্যস্ত ছিলো। ক্রেতাদের অতিরিক্ত চাপ সামলাতে অনেকেই হিমসিম খাচ্ছে। শুধু রাজধানীবাসীই নয়, দেশের নানা অঞ্চল থেকে এদিন দর্শনার্থীদের ভিড় জমাতে দেখা গেছে মেলার স্টলগুলোতে।

রাজশাহী থেকে আসা দর্শনার্থী রাহিদুল ইসলাম বলেন, ঢাকার বাইরে থাকায় মন চাইলেই মেলায় আসা হয় না। দুদিন আগেই ঢাকায় এসেছি স্বপরিবারে। আজ বন্ধের দিন, কাজ না থাকায় সবাই মিলে মেলায় ঘুরতে এসেছি। পছন্দমত কিছু পেলে কিনে নেব। কাজ আর অফিসের চাপে রুটিনের বাইরে সময় বের করতে না পেরে গতকাল শুক্রবার মেলায় এসেছেন ব্যস্ত সময় পার করা যান্ত্রিক এ শহরের বাসিন্দারা।

রাজধানী উত্তরা থেকে আসা বেসরকারি চাকুরিজীবী আরিফুল ইসলাম বলেন, সারা বছরই আশায় থাকি পরিবার নিয়ে বাণিজ্য মেলায় ঘুরতে যাবো। কেনাকাটা করবো। কিন্তু সময় হয়ে উঠে না। তাই আজ ছুটির দিনেই ছুটে এলাম পরিবার নিয়ে। মন না চাইলেও আসতে হবে। না আসলে হয়ত আর আসার সুযোগই পাওয়া যাবে না। তাই আজকে ছেলে-মেয়ে ও পরিবার নিয়ে এসেছি। ছুটির দিনটি পরিবারের সাথে মেলায় কাটাতে ভালোই লাগছে।

একইভাবে ব্যস্ততা বেড়েছে বিক্রেতাদেরও। বনফুলের বিক্রয় প্রতিনিধি জয় সাহা আমার সংবাদকে বলেন, প্রতি শুক্রবার-শনিবার মেলায় এমন ভিড় থাকে। এই দু’দিন আমরাও খুব ব্যস্ত থাকি। এছাড়া ছুটির দিনগুলোতে বিকেল থেকে রাতে বন্ধ হওয়া পর্যন্ত ভিড় বেশি থাকে। এদিন দুপুর থেকেই দেখা গেছে মেলার প্রধান ফটক দিয়ে নামতে শুরু করেছে ক্রেতা ও দর্শনার্থীদের ঢল। সময় বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে টিকিট কাউন্টার আর মেলার গেটের লাইন দীর্ঘ থেকে দীর্ঘতর হচ্ছে।

স্কুল, কোচিংয়ের বিড়ম্বনা না থাকায় ছুটির দিনে শিক্ষার্থীরাও মেলায় দলবেধে ঘুরতে এসেছে। তারা আড্ডা, কেনাকাটা ও সেলফিতে মেতে উঠেছে। এছাড়া নানা বয়সের বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের উপস্থিতিতে মুখর হয়ে উঠেছে মেলা প্রাঙ্গণ। মেলা প্রাঙ্গণ ঘুরে দেখা যায়, গৃহস্থলী এবং শিশু ও নারী সামগ্রীর স্টলগুলোতে ভিড় বেশি। ইলেকট্রনিক্স পণ্য, রান্নার সামগ্রী ও পোশাকের দোকানগুলোতেও এদিন চোখে পড়ার মতো ভিড় দেখা গেছে। ক্রেতা-দর্শনার্থীর ভিড় বাড়ায় বেশ খুশি বিক্রেতারাও।

স্যামস্যাংয়ের বিক্রেতা মালিয়া হক জানান, ছুটির দিন ছাড়া মেলার ক্রেতা-দর্শনার্থীর ভিড় থাকে না। আজ ছুটির দিন হওয়ায় ভিড় কিছুটা বেড়েছে। অন্যদিনের থেকে আজ বিক্রি কিছুটা বেশি। আশা করছি সময় গেলে আরো বাড়বে।

গৃহস্থলীর সামগ্রী বিক্রেতা মো. ইয়ানুর রহমান বলন, বাণিজ্য মেলায় শুক্রবার ক্রেতা-দর্শনার্থীর ভিড় বাড়বে এটাই স্বাভাবিক। ভিড় বাড়ার কারণে আমাদের বিক্রিও কিছুটা বেড়েছে। আশা করছি এখন থেকে বিক্রি এভাবেই থাকবে। নানা ছাড়ে পণ্য বিক্রি হলেও মানহীন খাবারে বেশি দাম নেয়ার অভিযোগ করছেন ক্রেতারা।

ইমরান হোসেন নামের এক ক্রেতা জানান, মেলার ভিতরে সব খাবারে দাম অনেক বেশি। বাইরের থেকে মেলায় খাবারের দাম ডাবল নিচ্ছে বলে তিনি জানান। তবে খাবার বিক্রেতারা বলছেন মেলা কর্তৃপক্ষের বেঁধে দেয়া দাম নেয়া হচ্ছে। এর বেশি দাম নেয়ার সুযোগ নেই বলে তারা জানান।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর (ইপিবি) ভাইস চেয়ারম্যান বিজয় ভট্টাচার্য বলেন, বেশি দাম রাখলে ক্রেতারা জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরে অভিযোগ করার সুযোগ রয়েছে। ক্রেতারা অতিরিক্ত দাম রাখার ব্যাপারে অভিযোগ করলে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে তিনি জানান।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত