শিরোনাম

শৈলকুপার ২ টাকার শসা ঢাকায় ৪০ টাকা

১৫:৪৬, জুন ১৭, ২০১৭

ঢাকায় সবজির দাম বাড়ছে লাগামহীন। সবজি বিক্রেতারা বৈরী আবহওয়ার অজুহাতে অধিক মুনাফা করলেও ঠকছে গ্রামের কৃষক এবং সাধারণ ক্রেতারা। গ্রামের কৃষকদের কাছ থেকে ৫-১০ টাকায় প্রতিকেজি সবজি কিনে ঢাকায় বিক্রি করা হচ্ছে ৫০ থেকে ৬০ টাকায়।

এভাবে প্রতিদিনই হু হু করে সবজির দাম বেড়েই চলেছে। সবথেকে বেশি ঠকানো হচ্ছে শসায়। ব্যবসায়ীরা কৃষকদের বলছে দুর্যোগ আবহাওয়ায় শসাসহ সব সবজিই ঢাকাসহ দেশের অন্যস্থানে কম বিক্রি হচ্ছে, তাই দাম পাওয়া যাচ্ছে না। এভাবে নানা ছল করে কৃষকদের কাছ থেকে পানিরদরে কিনে ঢাকায় সবজি বিক্রি হচ্ছে চড়া দামেই।

জানা গেছে ঝিনাইদহের শৈলকুপায় ২ থেকে ৩ টাকা কেজি শসা বিক্রি করছে কৃষকরা। অথচ ঢাকায় খুচরা বাজারে গতকাল শসা বিক্রি হয়েছে প্রতিকেজি ৩৫ থেকে ৪০ টাকায়। এতে চাষীরা সর্বস্বান্ত হচ্ছে এবং সাধারণ ক্রেতারা শসা, বেগুন, পেঁপে, চিচিঙ্গাসহ অন্যান্য সবজি কিনতে গিয়ে হাঁপিয়ে উঠছে।

গতকাল রাজধানীর শ্যামলি মোহনপুর এলাকায় ভ্যানে প্রতিকেজি শসার দাম চাওয়া হয়েছে ৪০ টাকা। একই দর ছিল শ্যামলি সমবায় মার্কেটে। শসার এতদাম কেন-এমন প্রশ্নের জবাবে মোহনপুর এলকার সবজি বিক্রেতারা আমার সংবাদকে বলেন, খারাপ আবহাওয়ার কারণে ঢাকায় সবজি কম আসছে এবং ক্রেতাও কম। তাছাড়া পাইকারি মার্কেট থেকে অন্যসময়ের তুলনায় বেশি দামে সবজি কিনতে হয়েছে। তাই সবজির দাম বাড়ছে।

জানা গেছে কিছুদিন আগেও এককেজি শসা ২০ টাকায়, চিচিঙ্গা, পেঁপে ৩০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়েছে। একলাফেই কেজিতে ১০ থেকে ২০ টাকা বেড়ে গেছে। ভুক্তভোগীরা অভিযোগ করছে দাম বাড়ানোর একটি কৌশল সবসময়ই খোঁজে ব্যবসায়ীরা। সুযোগ পেলেই তার ব্যবহার করে। আর গ্রামের কৃষকদের ঠকানোর জন্য মাঠে আছে একশ্রেণীর দালাল, ফড়িয়া ও ব্যবসায়ী। এই দালালরাই কৃষকদের বিভ্রান্ত করে কমদামে বিক্রি করতে বাধ্য করে। ফলে ন্যায্যমূল্য থেকে সবসময়ই বঞ্চিত হচ্ছে কৃষকরা।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত