শিরোনাম

জ্বালানি তেল রপ্তানি হ্রাস অব্যাহত রেখেছে সৌদি আরব

প্রিন্ট সংস্করণ॥অর্থনৈতিক প্রতিবেদক  |  ০১:০৬, মার্চ ২১, ২০১৯

জ্বালানি তেলের বাজারে আরেকটি ‘বিপর্যয়’ ঠেকাতে গত বছরের ডিসেম্বর থেকেই রফতানি কমাতে শুরু করেছে সৌদি আরব। এ ধারাবাহিকতায় গত জানুয়ারিতে অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের রফতানি কমিয়ে দৈনিক ৭২ লাখ ৫৪ হাজার ব্যারেলে (বিপিডি) নামিয়ে এনেছে ওপেকের এ বৃহত্তম উৎপাদক। খবর রয়টার্স গত সোমবার জয়েন্ট অর্গানাইজেশনস ডাটা ইনিশিয়েটিভের (জেওডিআই) হালনাগাদ ডাটাবেজে দেখা গেছে, জানুয়ারিতে এক মাসের ব্যবধানে দৈনিক উৎপাদন চার লাখ ব্যারেল কমিয়েছে সৌদি আরব। সেই সঙ্গে অপরিশোধিত তেলের মাসিক মজুদও ৪৫ লাখ ৪২ হাজার ব্যারেল কমে ২০ কোটি ৮ লাখ ৩৪ হাজার ব্যারেলে নেমেছে। তেল উৎপাদক ১১৪টি দেশের সরকারি ডাটা সংকলন করে জেওডিআই। এদিকে মার্কিন নিষেধাজ্ঞায় পড়ে ইরানের তেল রফতানি কমে যাওয়ার সুযোগে অন্যান্য উৎপাদকরা বেশি উৎপাদনের ফলে বাজারে সরবরাহ বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কায় ডিসেম্বরেই উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা পুনর্নির্ধারণ করেছে রাশিয়া। জানুয়ারি থেকে এ সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন শুরুও হয়েছে।
তবে নভেম্বরেই ইরানের আটটি ক্রেতাকে বিশেষ বিবেচনায় ছাড় দেয়ার পর থেকেই তেলের বাজারে অতিরিক্ত সরবরাহ আশঙ্কা আমলে নেয় সৌদি আরব। আগাম সতর্কতা হিসেবে ডিসেম্বরেই রফতানি কমিয়ে ফেলে তারা। ডিসেম্বরেই রফতানি দৈনিক প্রায় ৫ লাখ ৫০ হাজার ব্যারেল কমিয়ে ৭৬ লাখ ৮৭ হাজার ব্যারেলে নামিয়ে আনে। সে ধারাবাহিকতা অব্যাহত রয়েছে।
গত সপ্তাহে সৌদি কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, জ্বালানি তেলের বাজারে ফের ভারসাম্য ফিরিয়ে আনতে এবং বিশ্ব বাজারে দাম যৌক্তিক রাখতে এপ্রিলেও তারা অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের দৈনিক রফতানি ৭০ লাখের ঘরেই রাখবেন। যদিও সৌদির প্রধান ক্রেতাদের দাবি ছিল রফতানি দৈনিক ৭৬ লাখ ব্যারেলের ওপরে রাখার।
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত