শিরোনাম

কালিয়াকৈরে স্টুডেন্ট কাউন্সিল নির্বাচন

দেলোয়ার হোসেন, কালিয়াকৈর (গাজীপুর)  |  ২১:০৪, ফেব্রুয়ারি ২০, ২০১৯

গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলায় বুধবার সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত সকল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে ‘স্টুডেন্ট কাউন্সিল’ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপজেলা প্রথমিক শিক্ষা অফিস ও বিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, সারা দেশের ন্যায় কালিয়াকৈর উপজেলায় ১২২টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে একযুগে ‘স্টুডেন্ট কাউন্সিল’ নির্বাচন-২০১৯ইং অনুষ্ঠিত হয়েছে। সকাল ৯টা থেকে শুরু করে দুপুর ১টা পর্যন্ত চলে ভোট গ্রহণ।

নির্বাচনের মূল উদ্দেশ্য হলো শিশু বয়স থেকে নেতৃত্ব বিকাশ এবং বিদ্যালয় সুষ্ঠ ভাবে পরিচালনা করা। স্টুডেন্ট কাউন্সিল নির্বাচনের ফলে শিশুকাল থেকে গনতন্ত্রের বিষয়ে চর্চা করা, গনতান্ত্রিক মূল্যবোধের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হওয়া, অন্যের মতামতের মূল্যায়ন করা এসব শিক্ষা গ্রহণ করে থাকে। সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ‘স্টুডেন্ট কাউন্সিল’ নির্বাচনে সাতটি পদে শিক্ষার্থীরা প্রতিদন্ধিতা করে। যেমন, অভ্যর্থনা ও আপ্যায়ন, ক্রীড়া ও সংস্কৃতি, পুস্তক ও শিখন সামগ্রী, স্বাস্থ্য, পানি ও সম্পদ, পরিবেশ এবং বৃক্ষরোপন ও বাগান।

এ নির্বাচনে জাতীয় নির্বাচনের ন্যায় ব্যালট বাক্স, ব্যালট পেপার, ভোট কেন্দ্র, নির্বাচন কমিশনার, প্রিজাইডিং অফিসার, সহকারি প্রিজাইডিং অফিসার, পোলিং এজেন্ট উপস্থিত ছিল। সার্বিক নিরাপত্তার দায়িত্বে ছিল পুলিশ, আনসার ও গ্রাম পুলিশ। এ নির্বাচনে কমিশনার থেকে শুরু করে সকল বিষয়ে দায়িত্ব পালন করেছে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। শিক্ষার্থীদের সার্বিক বিষয়ে সহযোগীতা করেছে স্ব-স্ব বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষিকা।

২০নং বড়ইবাড়ী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গিয়ে দেখা যায়, নির্বাচন কমিশনারের নির্দেশে প্রিজাইডিং অফিসার, সহকারি প্রিজাইডিং অফিসার, পোলিং এজেন্ট ও কেন্দ্রের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সকলেই নিজ নিজ দায়িত্ব পালন করছে। ক্ষুদে ভোটাররা (শিক্ষার্থী) তাদের ভোট দেয়ার জন্য সারিবদ্ধ হয়ে ভোট কেন্দ্রে অপেক্ষা করছে। ভোট গ্রহণ শেষে দুপুর ২.৩০ মিনিটে ফলাফল ঘোষণা করা হয়।

কালিয়াকৈর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা রমিতা ইসলাম জানান, বর্তমান সরকারের এটি একটি যুগান্তকারি পদক্ষেপ। ‘স্টুডেন্ট কাউন্সিল’ নির্বাচনের ফলে শিশুকাল থেকে গনতন্ত্রের চর্চা, গনতান্ত্রিক মূল্যবোধের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হওয়া, অন্যের মতামতের মূল্যায়ন করা, শিখন শিখানো পদ্ধতিতে সহায়তা করা, ছাত্র ভর্তি ও ঝরা রোধে সহযোগীতা করা, বিদ্যালয়ের পরিবেশ উন্নয়নে শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করা।

এছাড়াও অভ্যর্থনা ও আপ্যায়ন, ক্রীড়া ও সংস্কৃতি, পুস্তক ও শিখন সামগ্রী, স্বাস্থ্য, পানি ও সম্পদ, পরিবেশ এবং বৃক্ষরোপন ও বাগান করা। এ সাতটি বিষয় অব্যাহত রাখার জন্য স্টুডেন্ট কাউন্সিল নির্বাচন গুরুত্বপূর্ন ভূমিকা পালন করে থাকে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত