শিরোনাম

চাকরির নামে ২৭ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ

প্রিন্ট সংস্করণ॥এম.এ আউয়াল, নরসিংদী প্রতিনিধি  |  ০১:৩১, মে ২৪, ২০১৮

নরসিংদী শহর পুলিশ ফাঁড়িতে কর্মরত মেহেদী হাসান নামে জনৈক পুলিশ কনস্টেবল এর বিরুদ্ধে বিভিন্ন লোককে চাকুরী দেয়ার নামে প্রতারণার মাধ্যমে ২৭ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে বলে এক লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেছে।  মো: হাবিবুর রহমান, রিনা বেগম ও মো: তৌফিক নামে তিনব্যাক্তি স্বাক্ষরিত নরসিংদী পুলিশ সুপার বরাবরে এক লিখিত অভিযোগ দাখিল করেন। অভিযোগে জানা যায়, পুলিশের কনস্টেবল মেহেদী হাসান যাহার আইডি নং-৮৯০৮৯১৯৬৩৮ এবং ব্যাচ নং- ১১৯৫ আজ থেকে প্রায় ৩ বছর পূর্বে বীর মুক্তিযোদ্ধা মো: হাবিবুর রহমানের নাতী মোজাম্মেল হোসেনকে পেশকার পদে চাকুরী দেয়ার নামে প্রতারণা করে ৮ লাখ টাকা। রিনা বেগমের ছেলে আলাউদ্দিনকে পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের অধীনে ইউনিয়ন পরিদর্শক পদে চাকুরী দেয়ার নামে ৭ লাখ পচিশ হাজার টাকা। এবং তৌফিক মিয়ার ভাতিজা মামুনকে জিআরপি পুলিশে চাকুরী দেয়ার নামে ১১ লাখ ৫০ হাজার টাকাসহ মোট ২৬ লাখ ৭৫ হাজার টাকা প্রতারণার মাধ্যমে হাতিয়ে নেয়। দীর্ঘ ৩ বছর অতিবাহিত হবার পরও মেহেদী হাসান উল্লেখিত ব্যক্তিদের চাকুরীর কোন ব্যবস্থা বা তাদের নিকট থেকে নেয়া টাকা ফেরৎ দিচ্ছেনা। বরং মেহেদী হাসানের নিকট টাকা চাইলে তিনি ভুক্তভোগীদের বিভিন্ন ভয়ভীতি দেখায়।  অভিযোগে বলা হয়েছে, উল্লেখিত ভূক্তভোগীরা তাদের শেষ সম্ভল বাড়ির ভিটি বিক্রি করে তাকে টাকা দিয়ে বর্তমানে অত্যন্ত মানবেতর জীবন যাপন করছে। নরসিংদীর পুলিশ সুপার মো: সাইফুল্লাহ আল মামুন বলেন, ‘ভুক্তভোগী সবার অভিযোগ  পেয়েছি। খোঁজ নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেব। ’বিষয়টি নিয়ে পুলিশ কনস্টেবল মেহেদী হাসানের সাথে আলাপ করলে তিনি জানান, এ ব্যাপারে বিভাগীয়ভাবে তদন্ত চলছে। যদি আমি দোষি প্রমাণিত হই তাহলে আইনগতভাবে যা হয় তা আমি মাথা পেতে নিব। তবে টাকা নেয়ার বিষয়ে জ্ঞিাসাবাদ করলে তিনি বিষয়টি এড়িয়ে যান। এ ব্যাপারে আশু হস্তক্ষেপ কামনা করার জন্য সংশ্লিষ্ট বিভাগের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট ভোক্তভোগীরা আকুল আবেদন জানিয়েছেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত