শিরোনাম

এ কেমন বাবা!

নিজস্ব প্রতিবেদক  |  ২১:২১, জুলাই ১১, ২০১৯

নিজ ঔরসজাত নাবালিকা কন্যাকে ধর্ষণের দায়ে জালাল ভূঁইয়া (৪০) নামে এক ব্যক্তিকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত।

বুধবার (১০ জুলাই) খিলগাঁও থানার এসআই মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আব্দুল করিম আসামিকে ঢাকার সিএমএম আদালতে হাজির করে মামলাটি তদন্ত শেষে না হওয়া পর্যন্ত জেলহাজতে আটক রাখার আবেদন করেন।

আদলতে বিচারক মামলার নথি পর্যালোচনা করে আসামিকে কারাগারে পাঠান।

মামলার বাদি মামলার অভিযোগে বলেন, ঢাকার খিলগাঁও থানা এলাকায় ছোট ভাই ও মাসহ এক রুমের বাসায় ভাড়া থাকেন। তার বাবা দুই-তিন মাস আগে মাদকদ্রব্যের মামলায় তিন-চার মাস জেল খেটে বাসায় আসে। গত ৭ জুলাই রাত ১১টার দিকে তার পরিবারের সবার খাবার শেষে ভিকটিমের বাবা তার মাকে চিনির সাথে পাউডার জাতীয় জিনিস মিশিয়ে খাওয়ায়। পরে  তার মা ছোট ভাইকে নিয়ে ঘুমিয়ে গেলে সে মেয়েকে শ্লীলতাহানির পরিকল্পনা করে।

জানা যায়, রাত ১টার দিকে সবাই ঘুমিয়ে গেলে মেয়েকে জড়িয়ে ধরে মেঝেতে নামিয়ে তার মুখ চেপে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে।  মেয়েটি অনেক কান্নাকাটি ও তার মাকে ধাক্কা দিয়ে জাগানোর চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়। পরদিন বিকেলে মায়ের জ্ঞান ফিরলে মেয়ে বিষয়টি তাকে জানায়। তারপর দুজনে খিলগাঁও থানায় গিয়ে মেয়ে বাদি হয়ে মামলা করে।

বিষয়টি নিশ্চত হতে ভিকটিমের আত্মীয়র সাথে যোগাযোগ করলে তার সম্পের্কের বড় বোন তানিয়া আমার সংবাদকে জানান, ঘটনাটি পুরোপুরি সত্য।

তিনি বলেন, ভিকটিমকে মেডিকেলে নেয়া হয়েছে। আমার কাছে ঘটনাটি বললে আমি মামলা করতে বলি।

তিনি আরো বলেন, আমি সাহায্য না করলে মেয়েটি হয়তো কোনো দুর্ঘটনা ঘটাতে পারত। মেয়েটি নবম শ্রেণিতে পড়ে। এই জঘন্য ঘটনায় ন্যায়বিচার প্রার্থনা করেন তিনি।

আরআর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত